পাতা:ঐতিহাসিক চিত্র (প্রথম বর্ষ) - নিখিলনাথ রায়.pdf/১৬৫

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


যোধাবাই ও যোধাবাই । S(\O গৌরব লাভ করিয়াছিলেন। বাদশাহ তঁাহার বীরত্বে প্রীত হইয় তাহার কন্যার সহিত যুবরাজ সেলিনের বিবাহ প্ৰদান করেন। রাইসিংহের সেই কন্যাই সুবিখ্যাত যোধাবাই। জাহাঙ্গীরের আত্ম-জীবনী ও ফেরিস্তায়, বিকানীর ও অম্বর প্রভৃতির বিবরণে এই বিবাহের উল্লেখ দৃষ্ট হইয়া থাকে। যোধাবাই সেলিম বা সমাট জাহাঙ্গীরের প্ৰিয়পাত্রী ছিলেন । অনিন্দ্যাসুন্দরী মেহের উন্নিসা বা নুরজাহানের রূপস্রোতে ভাসমান হই য়াও জাহাঙ্গীর যোধাবাইএর প্রতি উপেক্ষা প্ৰদৰ্শন করেন নাই। এমন কি তিনি অনেক বিষয়ে যোধাবাইএর অনুরোধ রক্ষা করিতে ত্রুটি করিতেন না। এক সময়ে যোধাবাই এর অনুরোধে জাহাঙ্গার মির্জা জয়সিংহকে অম্বরের সিংহাসন প্ৰদান করিয়াছিলেন । * এতদ্ভিন্ন অনেক সময়ে তিনি যোধাবাই এর পরামর্শে চালিত । হইতেন। যতদিন পৰ্য্যন্ত মেহেরউন্নিসা আগরার প্রাসাদাভ্যন্তরে প্রবেশ করেন। নাই, ততদিন পৰ্য্যন্ত বাদসাহ যোধাবাই এরই প্ৰতি অত্যন্ত অনুরক্ত ছিলেন। তাহার অন্যান্য বেগমেরা তাহাকে এরূপ বশীভূত করিতে পারেন নাই। " যোধাবাই ব্যতীত তঁহির আর ও রাজপুতনা বেগম ছিলেন । কিন্তু র্তাহারা যোধাবাইএর ন্যায় বাদশাহের চিত্ত আকর্ষণ করিতে পারেন নাই। ভুবনজ্যোতিঃ মেহেরউন্নিসা জাহাঙ্গারের প্রণয়িনী হইয়া যোধাবাই এর প্রতি sk “At the instigation of the celebrated Jodabae ( daughter of Rai Sing of Bikanir) the IRajputni wife of Jehangir, Joy sing, grandson of Jaggut sing (brother of Maun, ) was raised to the throne of Atmber, to the normall jealousy says the chroniclo of the favourito quéen, Noorjehan.' ( Tod Vol 1 pp 354–55) জয়সিংহকে সিংহাসন প্রদানসম্বঙ্গে। রাজস্থানের ইতিবৃত্তে একটি কৌতুকাবহ ঘটনার উল্লেখ আছে । বাদাসাহের অন্তঃপুরে একটি বারাওয়ি জাহাঙ্গার ও নোেধাবাই ছিলেন । জয়সিংহ নিয়ে অবস্থিতি করিতেছিলেন। বাদসহ অল্পবয়স্ক রাজপুতকে সেলনি করিয়া অম্বররাজ বলিয়া সম্বো, ধন করেন, এবং তঁহাকে শোধাবাইকে সোলাম করিতে বলেন। রাজপুতানার f図R校mに河 জয়সিংহ যোধাবাইকে সেলাম করিতে পারিতেন না, সেই জন্য তিনি তাহা করিতে অস্বীকৃত হন। তিনি বাদ্যসাহিকে উত্তর করেন যে, আপনার অন্তঃপুরের অন্য যে কোন মহিলাকে সেলাম করিতে পারি, কিন্তু যোধাবাইকে কদািচ পারিব না। যোধাবাই এই কথা শুনিয়া হাস্ত করিয়া বলিলেন, “ ইহাতে কিছু আসিয়া যায় না। আমি তোমাকে অম্বরের রাজত্ব প্রদান করিলাম।