পাতা:ঐতিহাসিক চিত্র (প্রথম বর্ষ) - নিখিলনাথ রায়.pdf/৩৪৯

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


সাময়িক-প্ৰসঙ্গ । রুষ-জাপান যুদ্ধ—আর্থার বন্দরের পতনের পর হইতে রুসিয়া ও জাপান মুকডেনের নিকট সৈন্য সমবেত করিয়াছিলেন, তঁাহারা বিপুল উৎসাহে পরস্পরে। পরস্পরকে মথিত করিবার জন্য বদ্ধপরিকর হইতেছিলেন । তাহারই ফলে গাত ফেব্রুয়ারি মাসের শেষ ভাগে মুকডেনের নিকট এক ভয়াবহ সংগ্ৰাম হইয়া গিয়াছে। পৃথিবীর ইতিহাসে এ যুদ্ধের তুলনা নাই। সাহোতীর হইতে আরম্ভ করিয়া মুকডেন পৰ্যন্ত প্ৰায় ৫০ ক্রোশ ব্যাপিয়া এই ভীষণ যুদ্ধ চলিতে থাকে। ২৪ এ ফেব্রুয়ারি হইতে আরম্ভ করিয়া প্ৰায় দুই সপ্তাহের অধিককালও এই লোকধবংসকর যুদ্ধ অবিরামগতিতে চলিয়াছিল । সুখের বিষয় এই যুদ্ধে ও জাপান জয়লাভ করিতে সক্ষম হইয়াছিলেন । এই যুদ্ধে উভয়পক্ষের অনেক বীর চিরদিনের জন্য ধারণী ক্ৰোড়ে আশ্রয় গ্ৰহণ করিয়াছে । জাপান অপেক্ষা রুসিয়ার হতাহত যোদ্ধাগণের সংখ্যা অনেক অধিক । মুকডেনের বিশ্ববিখ্যাত যুদ্ধে জয়লাভ করিয়া জাপান জগতে আপনার অজেয় নাম প্রচার করিয়াছেন । অনেকে এত দিন মনে করিয়াছিলেন যে, মুকডেনের যুদ্ধের ফলাফল না দেখিলে জাপানের জয়লাভসম্বন্ধে চূড়ান্ত মীমাংসা করা যায় না । এক্ষণে আমরা জিজ্ঞাসা করি যে, এবারও কি জাপানের জয়লাভের ॥श्ञ्जाळु মীমাংসা হয় নাই ? যদি নাই। হইয়া থাকে, তাহা হইলে কবে যে ইহার চুড়ান্ত মীমাংসা হইবে তাহা তাহারাষ্ট বলিতে পারেন। মুকডেনের যুদ্ধের পর ক্লাস সৈন্য হার্বিন অভিমুখে পলায়ন করে । টাইলিং নামক স্থানে আর একটি যুদ্ধ হয়, তাহাতেও জাপান জায়লাভ করিয়াছেন। ফলতঃ উত্তরোত্তর প্রত্যেক যুদ্ধে এরূপ জয়লাভ জগতের কোন জাতির ইতিহাসে দেখা যায় না । মাতৃপূজার মহামস্ত্রে দীক্ষিত হষ্টয়া জাপান যে দৃঢ়ব্ৰত গ্ৰহণ করিয়াছে, তাহারই ফলে বিজয়-লক্ষ্মী প্ৰতিবারেই তাহার মস্তকে জয়মাল্য নিক্ষেপ করিতেছেন । ধন্য জাপান। আজ তোমার কৃতিত্বে জগৎ মুগ্ধ !