পাতা:ঐতিহাসিক চিত্র - পঞ্চম পর্য্যায়.pdf/৮২

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


ঢাকার ইতিহাস । ANO পাল ও বর্শ্ববংশের ক্রমিক অধঃপতনের সঙ্গে সঙ্গে খুষ্টীয় একাদশ শতাব্দীর প্রারম্ভে সেন রাজবংশের অভু্যদয় হয়। সেন রাজবংশের প্রতিষ্ঠাতা আদিশূর বা বিজয়সেন বিক্রমপুরে রাজধানী স্থাপন করিয়া সমতট প্রদেশ শাসন করিতে থাকেন । আবার কাহার ও কাহারও মতে পাল ও সেনবংশু উভয়েই সমসাময়িক এবং পরস্পারে বঙ্গের বিভিন্ন প্রদেশে রাজদণ্ড পরিচালনা করিয়াছিলেন। আদিশূর প্রথমে শৈব ছিলেন। তিনি সিংহাসনারোহণ করিয়া দেখিলেন যে, বৌদ্ধরাজগণের শাসনপ্ৰভাবে ব্রাহ্মণগণ বৈদিক ক্রিয়াকলাপে একান্ত অনভিজ্ঞ হইয়া পড়িয়াছেন । তিনি এই জন্য ক্যান্যকুব্জ হইতে পঞ্চ বেদবিৎ ব্ৰাহ্মণ আনয়ন করেন । এই পঞ্চ ব্ৰাহ্মণের সহিত পাঁচজন কায়স্থ ও ভৃত্যস্বরূপ আগমন করিয়াছিল। আদিশূরের রাজত্ব সম্পর্কে ইহার অধিক কিছুই জানা যায় না। রাজা বিক্ৰমাদিত্যের ওঁ ভূইয়া ও পালবংশীয়গণের ন্যায় তাহার সম্পর্কিত প্ৰাচীন ইতিহাস অন্ধতমসাচ্ছন্ন। আদিশূরের প্রপৌত্র বল্লাল সেনের সময় সেনবংশীয়দিগের রাজত্ব বহুদূর পর্য্যন্ত বিস্তৃত হইয়াছিল। এমন কি মদ্র, কলিঙ্গ এবং কামরূপও র্তাহার অধিকারভুক্ত হয়। বিজয়সেনের পরে সেনবংশীয় নরপতিগণের মধ্যে বল্লালসেন বিশেষ প্ৰসিদ্ধিলাভ করেন । বল্লালসেন তাহার শাসনাধীন বঙ্গদেশকে রাঢ়, বাগড়ি, বারেন্দ্ৰ, মিথিলা ও বঙ্গ এই পাঁচ ভাগে বিভক্ত করেন ; বল্লালসেনের সময় বঙ্গদেশে কৌলিন্য প্রথার প্রচলন হয়। বল্লালের জন্ম সম্বন্ধে নানারূপ জনপ্ৰবাদ শুনিতে পাওয়া যায় । ইংরেজ ঐতিহাসিকগণ প্ৰায় সকলেই বল্লালকে আদিশূরের পুত্ৰ বলিয়া উল্লেখ করিয়া গিয়াছেন। কিন্তু ইহা সম্পূর্ণ মিথ্যা । প্ৰাচীন কুলজীগ্রন্থ চাইতে আমরা জানিতে পারি যে, বল্লাল আদিশূরবংশের কন্যাকুলসঞ্জাত। বল্লালের জন্ম সম্বন্ধে যে সকল গল্প শুনিতে পাওয়া যায়, আমরা স্বরূপচন্দ্র রায়-প্ৰণীত সুবর্ণগ্রামের ইতিহাস চাইতে তাহার একটী গল্প উদ্ধত করিয়া দিলাম।