পাতা:কলিকাতা সেকালের ও একালের.djvu/১০০

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


৬২ কলিকাতা সেকালের ও একালের । তিনি সন্ন্যাসীর চরণ বন্দনা করিয়া, কৌশলে পরিচয় লইয়া জানিতে পারিলেন—এই তেজ:পুঞ্জময় সন্ন্যাসীর নাম-কামদেব ব্রহ্মচারী। মানসিংহ যে কয়দিন বারাণসীতে ছিলেন, সেই কয়দিন কামদেব ব্রহ্মচারীর আশ্রমে প্রায়ই যাতায়াত করিতেন। ব্রহ্মচারীর শাস্ত্রজ্ঞান, নিষ্ঠাবৃত্তি দেখিয়া, মহারাজ মানসিংহ মনে মনে তাহার প্রতি অতীব অনুরক্ত হইলেন । এই একান্ত অম্বুরাগ হইতে দৃঢ় ভক্তি আসিল । মানসিংহ পরিচয়ে জানিলেন, এই নিষ্ঠাবান সন্ন্যাসী, সাবর্ণ গোত্রসস্কৃত একজন বঙ্গদেশীয় ব্রাহ্মণ। মহারাজ মানসিংহ, কামদেব ব্রহ্মচারীর শিষ্যত্ব স্বীকার করিলেন । * ভারত-বিজয়ী মানসিংহ, তাহার গুরুর নিকট হইতে কৌশলে, কথার ছলে, বঙ্গদেশ সম্বন্ধে নানাবিধ তথ্য অবগত হন । ইহাতে ভবিষ্যতে র্তাহার যথেষ্ট উপকার হইয়াছিল। মানসিংহ বঙ্গদেশে যাইতেছেন শুনিয়া, বহুদিন পরে কামদেবের মনে লুপ্তপ্রায় পুত্র-স্নেহ জাগিয়া উঠিল। তিনি মানসিংহকে বলিলেন—“বৎস! তোমার ন্যায় শক্তিমান পুরুষ এ ভারতে আর দ্বিতীয় নাই । আমি আমার শিশুপুত্রকে নিঃসহায় অবস্থায় ফেলিয়া রাখিয়া, ব্রহ্মচৰ্য্যাৰলম্বন করিয়াছি। আমার প্রাণ এখন সেই শিশুপুত্রের জন্য অতি কাতর। আমার পুত্রকে যে উপায়ে পার, সন্ধান করিয়া বাহির করিবে । জানিও—ইহাই তোমার গুরু-দক্ষিণা ।” t এই কামদেব ব্রহ্মচারী সম্বন্ধে আমরা দুই একটা অতি প্রাচীন বিবরণ সংগ্ৰহ করিয়াছি। তাহা নিতান্ত কৌতুহলোদ্দীপক। কামদেবের বংশধরগণ–এখনও বর্তমান । আমরা তাহীদের নিকট হইতে কামদেবের স্বহস্ত লিখিত এক আত্মপরিচয় পাইয়াছি। তাহা আমরা পরে সবিস্তারে উদ্ধৃত করিয়া পাঠকের কৌতুহল নিবৃত্তি করিব। e

  • অনেকে বলেন, মানসিংহ আগে বৈষ্ণবমতাবলম্বী ছিলেন। এই কামদেব ব্রহ্মচারীই উহাকে শাক্তমতে দীক্ষিত করেন । এ কথা কতদূর সঙ্গত, তাহ আমরা বলিতে পারি না। মহারাজ মানসিংহ, যে সময়ে বঙ্গদেশে আসিয়া যশোহর জয় করেন, প্রতাপাদিত্যকে বঙ্গী করেন, সে সময়ে তিনি ঘোর-শাক্ত। কারণ এরূপ কিম্বদন্তী আছে—যে মানসিংহ, বুদ্ধৰ হইবার পর, যশোহর নগরে প্রবেশ করিয়া, মহাসমারোহে “যশোরেশ্বরীর" পূজা করিয়াছিলেন। পরে তিনি এই “যশোরেশ্বরীকে” বঙ্গদেশ হইতে নিজের অম্বর-রাজধানীতে লইয়া যান। জম্বর গছরে আজও এ যুৰ্বি বর্তমান । যশোরেশ্বরীর পূজার জন্য মানসিংহ কয়েকজন ৰাঙ্গালী ব্রাহ্মণকেও সঙ্গে লইয়া যান। স্তাহারাই অম্বরপ্রাসাদম্বিত যশোরেশ্বরীর পূজক পদে নিযুক্ত হন। উiছাদের বংশধরেরা আজও তথায় অবস্থান করিতেছেন। তবে উtহাদিগৰে সহসা বাঙ্গালী ৰলিয়া চিনিবার উপায় নাই।