পাতা:কলিকাতা সেকালের ও একালের.djvu/৭৪২

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


१० 8 কলিকাতা সেকালের ও একালের । চিফজক্টিস হাইড সাহেব, জুরীদের চার্জ দিলেন। জুরীরা একবাক্যে আসামীদের দোষী বলিয়া সাব্যস্ত করিলেন। ষোলঘণ্টা কাল ধরিয়া এই চুরী মোকদ্দমার বিচার চলিয়াছিল। ৬ই আগষ্ট (১৭৯৫ খৃঃ অব্দের ) এক সংবাদে প্রকাশ–“পূৰ্ব্বোক্ত ডাকাতির আসামীদিগকে জেলখানায় আনিয়া রাখা হইয়াছে। ছয়জনের উপর এইরূপ ডাকাতি করার জন্ত প্রাণদণ্ডের আদেশ করা হইয়াছে । অন্তান্ত ডাকাতদের মনে ভয়েtৎপাদন জঙ্গ – যেখানে তাহারা ডাকাতি করিয়াছিল, তাহার নিকটে প্রকাগু স্থানে তাহদের ফাসি দেওয়া হইবে। চৈতন শীলের বাড়ীর কাছে একটী বাজার আছে। স্থির হইয়াছে, এই বাজারেট ডাকাতদের ফাসি হইবে।” পাঠক উল্লিখিত ঘটনা হইতে সবই বুঝিতে পারিবেন । মন্তব্য নিম্প্রয়োজন । আর একটী সাহেবী রাহাজানি । টমাস গিলবার্ট, টমাস হকিন্স ও দানিয়েল বেকার, তিন নম্বর ইউরোপীয়ান সেনাদলের সেনা । তাহদের বিরুদ্ধে এসপ্লানেডে ( ধৰ্ম্মতলায় ) রাহাজানি করিবার অভিযোগ উপস্থিত হয়। বিচারাজ্ঞা এই হইল—“যে তাহাদের হস্তের একাংশ দগ্ধ করিয়া দেওয়া হইবে ও তৎপরে তাহাদিগকে জেলের মধ্যে আটক রাখা হইবে । এজন্য তাহাদের উপর দুই বৎসর কঠিন পরিশ্রমের সহিত কারাবাস দণ্ডাজ্ঞা দেওয়া হইল । সেকালে ডাকাতির দায়ে ফাসি হইত। চুরী ও রাহাঙ্গনি করিলে হাত পোড়াইয়া দেওয়া হইত, তারপর দীর্ঘকাল সশ্রম মেয়াদ । সে সময়ে কলিকাতায় সাহেব চোর-ডাকাতের বড়ই উৎপাত ছিল। পরে সুগ্ৰীমকোর্ট প্রসঙ্গে পাঠক এ সম্বন্ধে অনেক কথা জানিতে পারিবেন। আলিপুরের পোল ভাঙ্গা। - “গত ৩রা সেপ্টেম্বর ( ১৭৯৫ ) আলিপুরের পোল ভাজিয়া পড়িয়াছে। পোলট বহুদিন হইতেই বেমজবুত হইয়াছিল। গভীর রাত্রে পুলটা ভাঙ্গিয় যাওয়ায় কোনরূপ দুর্ঘটনা ঘটে নাই ।” r & এই আলিপুরের পুল যে কোনটা, আমরা ঠিক বলিতে পারিতেছি না। ওয়ারেণ হেষ্টিংস তাহার আলিপুরস্থ হেষ্টিংস-হাউসে আসিবার সুবিধার জন্য যে পুল প্রস্তুত করান, তাছা কালীঘাটের পোল। অবশু বর্তমান