পাতা:কল্পদ্রুম তৃতীয় খণ্ড.djvu/৫৭১

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


হিন্দুসমাজের বর্তমান শোচনীয় অবস্থার কারণ কি? ৫৬৫ দিগকে মারিবার প্রয়োজন কি ? কোন কোন ধৰ্ম্মসম্প্রদায়ে “ ভ্রাতা " বলিয়া অনেকেই অজ্ঞান হইয় পড়েন, এমনি এলো মেলো হন যে বাহ্যাভ্যন্তর প্রভেদ থাকে না, এই ঘূর্ণ বায়ুতে পড়িয়া অনেক “ তরণী " পাপসাগরে আজীবনের মত ডুবিয়াছে। তাহদের পাপের জন্য কি তাহীদের * ভ্রাতৃপ্ৰেম ” মুগ্ধ অন্ধ পতির দায়ী নয় ? এ সব দেখে শুনে আমাদের কি সতক হওয়া উচিত নয় ?")

  • স্থক্ষ্মেভ্যোহপি প্রসঙ্গে ভ্যঃ স্ক্রিয়োরক্ষ্য বিশেষতঃ । ” এই জন্যই দূরদর্শী নীতিজ্ঞ পণ্ডিতগণ বলিয়া গিয়াছেন, যে স্ত্রীদিগকে অত্যর দুঃসঙ্গ হইতেও বিশিষ্টরূপে রক্ষণ করিবেক। অপিচ “ যে স্থানে অভদ্র দর্শন ও অভদ্র বাক্য শ্রবণে মন অভদ্র হইতে পারে, যে সকল আমোদ প্রমোদে ধৰ্ম্মভাব মলিন হষ্টয়া যায়, যেখানে পাপ প্রলোভন মনকে বিচলিত করে, তথায় অবস্থান কৰ্ত্তব্য নহে । যাহাদিগকে অপবিত্রতা ভাল লাগে ও যাহারা অপবিত্রতাতে মগ্ন হইয়া আছে, তাহদের সংসর্গ বিষবৎ পরিত্যাজ্য। পতিব্ৰত ধৰ্ম্মে যাহাদের অনুরাগই নাই, তাহীদের স্বভাব অতি ভয়ানক । এই সকল দুঃস্থান ও দুঃসঙ্গ হইতে যত্বপূৰ্ব্বক স্ত্রীলোকদিগকে রক্ষা করিবে। ‘পাপসংসর্গে পাপের প্রতি আসক্তি জন্মে। এ উপদেশ কয় জন স্বাধীন প্রণয়ীর মনে লাগে ? তাহাদের কর্ণে হয় ত ইহা বিষবৎ জ্বালাকর হইতেছে! হউক, তাহাতে ক্ষতি নাই। এক দিন তাহাদিগকে এদিকে ঝুঁকিতে হইবে।

আমেরিকাবাসিনীদের “ স্বাধীন প্রণয়ের ” হুজুকে পড়িয়া অনেক ভারতমহিলা মজিয়াছেন। আসামের অন্তঃপাতি কামরূপ কামাখ্যায় যাইয়া “ আসামী স্বাধীন প্রেমের ” নিদর্শন দেখিম এস, অনেক শিক্ষা পাইবে । আমেরিক হারি মানিবে । তথায় অধিকাংশ স্থলে স্ত্রীরা বাটীর “ কৰ্ত্ত ” আর পুরুষেরা “ কত্রী ” হইয়া সংসারে বেশ সং সাজিয়া থাকে। তথায় স্ত্রীলোকে স্বাধীনভাবে যথাতথা যাতায়াত করিতে পারে, যার তার সঙ্গে চলাবল করিতে পারে, কিছুমায় পারিবারিক অথবা সামাজিক শাসন নাই। এই জন্য কামাখ্যার “ কামিনীগণ সেকালে বিদেশী পাইলে “ ভেড়া * করিয়া রাখিত । এখনও অনেককে গাধা করিয়া রাখে। এ সব দেখিয়া কি আমাদের শিক্ষণ হয় না ? পঞ্জাবে স্ত্রীস্বাধীনতার বহুল চিন্তু দেখিয়াছি, তাহার বিষময় ফলও ফলিয়াছে। সে সব এখানে চিত্রিত করিতে লজ্জা হয়, মনে অত্যন্ত ঘৃণার উদ্দীপন হইয়াছে। এই জন্য উত্তর পঞ্জাবের অনেক