পাতা:কল্পদ্রুম তৃতীয় খণ্ড.djvu/৬২৬

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


কল্পক্রম । একীদোকানে যাইয়া মনের সাধে এক এক পেট ছানাবড়া খাইয়া বিশ্রাম করিতে লাগিলেন। বরুণ কহিলেন এখানকার চেলি কাপড় বড় বিখ্যাত । চেলিতে হাতী, ঘোড়া সেপাই প্রভৃতির প্রতিমূৰ্ত্তি গুলি সুন্দরব্ধপে অঙ্কিত । থাকে। ঐ বালুচরের চেলি কুৎসিত স্ত্রীলোককেও পরাইলে সুন্দরী দেখায় নারা । বরুণ ! আমাকে কতকগুলো চেলি কিনে দেও । মর্ত্যে তিন দিন মিয়াদে আসিয়া যেরূপ কাল বিলম্ব করিতেছি আমার কপালে বিস্তর কষ্ট আছে । তবু চেলি ট্ৰেলি দিয়াও যদি মনযোগাতে পারি। বরুণ এ কথায় সন্মত হইয়া নারায়ণকে কতকগুলি চেলি খরিদ করিয়া দিলেন। দেবরাজ ও মহিষীর জন্য ও পুত্রবধূগণের জন্য কয়েকখানি লইলেন । দেখাদেখি পিতামহ ও এক খানি কিনিলেন । ইন্দ্র । ঠাকুর দা, ওখানি কি বুড়া ঠানদিদিকে পরাবেন ? ব্রহ্মা । না ভাই, মনে ভাব চি—মুরধনী যে দিন স্বর্গে যাইবেন তাহাকে এই চেলি খানি পরাইয়া বরণ করে ঘরে তুলবো । বস্থাদি খরিদ হইলে সকলে এক খানি গাড়ি ভাড়া করিয়া মুরশিদাবাদ অভিমুখে চলিলেন । যাইতে যাইতে ইন্দ্র কছিলেন “ বরণ, সম্মুখে ও সুন্দর বাড়ীটা কাহার ? ” বরুণ। উহ। লছমীপংসিংহ নামক এক ধনাঢ্য ব্যক্তির বাড়ী। নগরের মধ্যে ই হার ও ২ । ১ টা দেবালয় ও বিদ্যালয় আছে। বিদ্যালয়ে বিন৷ বেতনে দুঃখি বালকদিগকে বিদা দান করা হইয়া থাকে । এখান হষ্টতে কিছুদূরে যাইলে ইন্দ্ৰ কহিলেন “ বরুণ, এমন সহরত দেখি নাই । ইহার বাজার,হাট, অট্টালিকাদি গণিয়া সংখ্যা করা যাইতেছে না । ভাল সম্মুখে সে প্রকাগু সেকেলে ধরণের বাড়ীটা দেখা যাচ্চে এবাড়ী কাহার ? এবং এস্থানের নাম কি ? বরুণ। এস্থানের নাম মহিমাপুর। যে বাড়ীটা দেখিতেছ উহা মুরশিদাৰাদের শেঠদের । এক সময় শেঠেরাই এতদ্দেশের মধ্যেপ্রধান ধনী ছিল। এই বংশীয় জগৎশেঠ কথার কথায় লক্ষ মূদ্র প্রদান করিতে পারিতেন । ইন্দ্র । জগৎশেঠ কে ? ধরুণ । ভারতের মধ্যে ইনিই সৰ্ব্বপ্রধান বণিক ছিলেন। দুর্দান্ত নবাব সিরাজউদৌলাকে সিংহাসনচু্যত করিবার মে ষড়যন্ত্র হয় মহাত্মা জগৎশেঠই তাছাৰ প্রধান উদ্যোগী। এই সড়গঞ্জের গুণে বিস্তৃত ভারত সাম্রাজ্য ইংরাজ