পাতা:কাব্যগ্রন্থ (চতুর্থ খণ্ড).pdf/৯৫

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


বিলয় যেন তা’র আঁখি দুটি নবনীল ভাসে ফুটিয়া উঠিছে আজি অসীম আকাশে । বৃষ্টিধৌত প্রভাতের আলোক-হিল্লোলে অশ্রামাখ হাসি তা’র বিকাশিয়া তোলে। তা’র সেই স্নেহ-লালা সহস্ৰ আকারে সমস্ত জগৎ হ’তে ঘিরিছে আমারে । বরষার নদীপরে ছল ছল আলো, দুর তীরে কাননের ছায়া কালো কালো দিগন্তের শ্যামপ্রান্তে শান্ত মেঘরাজি তারি মুখখানি যেন শতরূপ সাজি । আঁখি তার কহে যেন মোর মুখে চাহি? “আজি প্রাতে সব পাখা উঠিয়াছে গাহি’— শুধু মোর কণ্ঠস্বর এ প্রভাত বায়ে অনন্ত জগৎমাঝে গিয়েছে হারায়ে ।” १झे শ্রাবণ, ১৩ ৩৩ ৷