পাতা:কাব্যগ্রন্থ (নবম খণ্ড).pdf/৬০৮

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


ফাল্গুনী সর্দার । আমি তা’কে বিশ্বাস করিনে। বাঃ, তুমি যে উণ্টো কথা বল্লে । সেই বুড়োই ত সব চেয়ে বেশি করে আছে । বিশ্বব্রহ্মাণ্ডের পাজরের ভিতরে তা’র বাসা । পণ্ডিতজি বলে, বিশ্বাস যদি কাউকে না করতে হয় সে কেবল আমাদের । আমরা আছি কি নেই তা’র কোনো ঠিকানাই নেই। চন্দ্রহাস । আমরা যে ভারি কাচা, আমরা যে একেবারে নতুন, ভবের রাজ্যে আমাদের পাকা দলিল কোথায় ? সর্দার। সর্ববনাশ করলে দেখ চি ? তোরা পণ্ডিতের কাছে আনাগোনা শুরু করচিস নাকি ? তা’তে ক্ষতি কি সর্দার ? সর্দার । পুথির বুলির দেশে ঢুকলে যে একেবারে ফ্যাকাসে হ’য়ে যাবি। কাৰ্ত্তিকমাসের শাদা কুয়াশার মত। তোদের মনের মধ্যে একটুও রক্তের রং থাকবে না । আচ্ছ এক কাজ কর ! তোরা খেলার কথা ভাবছিলি ? হা সর্দার, ভাবনায় আমাদের চোখে ঘুম ছিল না। আমাদের ভাবনার চোটে পাড়ার লোক রাজদরবারে নালিশ করতে ছুটেছিল। সর্দার । একটা নতুন খেলা বলতে পারি। বল, বল, বল ! ○切”8