পাতা:কাশীদাসী মহাভারত.djvu/৭৯২

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


૧ાન્ય cणांछनबन्नगरबूङ९ उख्ञांपोंौछेक्न थन९ ॥ [ व्षदांखांब्रङ । 'কহিনু তোমারে রাজা ধর্মের কুমার । | তুমি ইন্দ্র ভূমি যম ভূমি পশুপতি । ঈশ্বরের মায়া বুঝে শক্তি আছে কার । ত্রিজগৎ নাথ ভূমি ত্ৰিজগৎপতি । মহাভারতের কথা অমৃতের সার । তুমি সুর্ঘ্য বরুণ স্বরূপ কলেবর। কাশীদাস দেব কহে রচিয়া পয়ার s- কুবের শমন তুমি জগৎ ঈশ্বর ॥ -- তোমার মাঝায় বদ্ধ সব চরাচর । ত্ৰিগুণ ঈশ্বর ভূমি প্রকৃতির পর ॥ ব্যাধের প্রতি উতঙ্ক মুনির উপদেশ ও শ্রীকৃষ্ণের স্তব । এতেক শুনিযু কথা ধৰ্ম্ম নরমণি । পুনরপি জিজ্ঞাসিল করি যোড়পাণি ॥ উত্তঙ্ক কিরূপে কৃষ্ণে করিল স্তবন। কোন মূৰ্ত্তি ধরি কৃষ্ণ দেন দরশন ॥ কি বর দিলেন কৃষ্ণ তুষ্ট হয়ে তায় । কহিবে সকল কথা বিশেষে আমায়ু ॥ ভীষ্ম কন অবধান করহ রাজন । মহামুনি উতঙ্ক বিখ্যাত তপোধন ॥ শিশুকাল হৈতে কৃষ্ণ পরিচর্য্যা করে। বেদশাস্ত্র নিষ্ঠাশীল সৰ্ব্বগুণ ধরে । পাইল পরম গতি শ্রীকৃষ্ণে দেখিয়া । করিল গোবিন্দে স্তুতি প্রণত হইয় ॥ জয় জন্ম নারায়ণ জগৎ কারণ । জয় জগন্নাথ প্রভু ব্ৰহ্ম সনাতন ॥ নমো কুৰ্ম্ম অবতার মন্দারধারক । নমো ভূগুপতি রাম ক্ষজ-কুলান্তক ॥ নমে রাম অবতার রাবণনাশন । বলিমদহর নমো নমস্তে বামন গু নমো ধন্বন্তরীকায় অমৃতধারক । নমো যজ্ঞকায় হিরণ্যাক্ষ-বিদারক । নমস্তে মোহিনীরূপ অমরমোহন । নমস্তে নৃসিংহ মহাদৈত্যবিনাশন । নমো রামকৃষ্ণরূপ গোকুল-বিহার । নমো নমো জয় জয় বুদ্ধ অবতার ॥ ভবিষ্যৎ অবতার নমঃ কল্কিরপ । নমো হরি অবতার নমো বিশ্বরূপ ৷ নমো ক্রসচ্চিদানন্দ বিশ্বপয়ায়ণ । নমো নমো জগৎপতি ব্ৰহ্ম সনাতন ॥ অনন্ত তোমার রূপ গুণ জাতিহীন । গুণেতে বজ্জিত তুমি গুণেতে প্রবীণ ॥ জ্ঞানের স্বরূপ তুমি তুমি মায়াধর । নিৰ্ম্মী নিৰ্ম্মেহ তুমি মায়ার ঈশ্বর ॥ তোমা বিনা আর কিছু নাহিক সংসার । আত্মারূপে সৰ্ব্বভূতে করহ বিহার ॥ অম্ভরীক্ষ নাভি তব, পাতাল চরণ । মস্তক আকাশ তব অরুণ লোচন ॥ দশদিক স্তোত্র তব, শশী বামেক্ষণ । , তোমার শরীরে ব্যপ্ত চরাচরগণ ॥ শঙ্খ চক্র গল্প পদ্ম শাঙ্গ আদি ধারী । নানা অলঙ্কারে তক্ষু ভূষিত মুরারী ॥ পীতবাস পরিধান রাজীবলোচন । বনমালী বিভূষিত গরুড়বাহন ॥ ত্রিভঙ্গ ললিতররূপ বেশ মনোহর । নৰ দল বিকলিত শু্যাম কলেবর ॥ দেখিয়া উতঙ্ক মুনি হইল ব্যাকুল । আনন্দ অশ্রুতে ভাসে অঙ্গের দুকূল ॥ দণ্ডবৎ হইয় পড়িল ভূমিতলে । দেখিয়৷ উতঙ্কে কৃষ্ণ করিলেন কোলে আলিঙ্গন দিয়া মিষ্ট কহেন বচন । তব মনোবাঞ্ছা পূর্ণ হৌক তপোধন ॥ একান্ত ভকতি করি আমারে যে ভজে অমুক্ষণ থাকি তার হৃদয়ের মাঝে ॥ মনোমত ঘেই মাগে দেই আমি তারে সে কারণে শুন দ্বিজ কহি যে তোমা:ে যেই বর তব ইচ্ছা মাগ মম স্থানে । | জদেয় হইলে তবু দিব এইক্ষণে ॥ এত শুনি কহে দ্বিজ করি যোড়পাণি । অৰধান নিবেদন শুন চক্রপাণি ॥ ।