পাতা:কাশীদাসী মহাভারত.djvu/৮৬৪

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


৮৫২ গায়ত্রিচ্ছন্দসাং মাতব্ৰহ্মযোনি নমোহস্তুতে ॥ এ সময় ব্রাহ্মণেরে দিব কিছু দান । কিছু ধন মাগি আন ধৰ্ম্মরাজস্থান ॥ অন্ধের বচনে ক্ষত্ত কহে যুধিষ্ঠিরে । [মহাভারত। বালবৃদ্ধ যুব ধায় কুলবধূগণে । ধৃতরাষ্ট্র বেশ দেখি কান্দে সৰ্ব্বজনে ॥ ; ওহে অন্ধরাজ তুমি যাও কোথাকারে । কিছু ভিক্ষ চাহে তোমা অন্ধ নৃপবরে ॥ ! কি হেতু তপস্যা বেশ ধরেছ শরীরে । ধৰ্ম্ম বলিলেন ভিক্ষ কিসের কারণ । র্তাহারি সকল রাজ্য প্রজা ধন জন ॥ আমি আদি সকল বিক্রিত র্তার পায়। হেন বাক্য কহিবারে তারে না যুয়ায় ॥ এত বলি যুধিষ্ঠির ডাকি ভ্রাতৃগণে । ধন আনিবারে আজ্ঞা দিলেন তখনে ॥ ধৰ্ম্মরাজ আজ্ঞ পেয়ে চারি সহোদর। ভাণ্ডার হইতে ধন আনে বহুতর ॥ প্রবাল মুকুতা স্বর্ণ মণি মরকত । বিবিধ রতনরাশি কৈল শত শত । হরষিত অন্ধরাজ গান্ধারী সহিত । দ্বিজগণে ধন দান কৈল অপ্রমিত ॥ ভূমিদান অন্নদান করিল বিস্তর। হস্তী অশ্ব ধেনু বৎস রত্ন বহুতর ॥ ভীষ্ম দ্ৰোণ কৰ্ণ আদি রাজা দুর্য্যোধন । সবাকার নাম করি দ্বিজে দিল দান ॥ দানেতে তুষিয়া সব ব্রাহ্মণ মণ্ডল । বনে যেতে অন্ধরাজ হইল বিকল ॥ বহু আশীৰ্ব্বাদ কৈল ভাই পঞ্চজনে । আলিঙ্গন শিরোম্রাণ করিল চুম্বনে ॥ প্ৰণমিয়। পঞ্চ ভাই কান্দে উভরায় । কৃতাঞ্জলি প্ৰণমিল গান্ধারীর পায় ॥ দুই চক্ষু অন্ধ তব অপূৰ্ব্ব শরীর । কিমতে ছাড়েন তোম। রাজ যুধিষ্ঠির ॥ বাহুড় বাহুড় রাজা না যাও কাননে । তোমার বিহনে রাজা জীবে কোনজনে ॥ ধৰ্ম্মপুত্র যুধিষ্ঠির ধৰ্ম্ম অবতার। সেবিবে তোমায় সেই ধৰ্ম্মের আচার ॥ এইরূপে চতুর্দিকে র্কাদে সৰ্ব্বজন । প্রবোধিয়া ধৃতরাষ্ট্র চলিল কানন ॥ পথ দেখাইয়া ক্ষত্ত, আগে অাগে যায় । কুরুক্ষেত্র নিকটে আইল কুরুরায় ॥ তথা হৈতে চলি গেল জাহ্নবীর কুলে । স্নানদান করিলেন নামি গঙ্গাজলে ॥ বসিয়া গঙ্গার তীরে কথোপকথনে । সেই দিন বঞ্চিল জাহ্নবী জলপানে ॥ রজনী প্রভাত হৈল সূর্য্যের উদয় । প্রভাতে উঠিয়া তবে বিছর সঞ্জয় ॥ গঙ্গার পশ্চিমে বন নামে দ্বৈপায়ন । নানাবিধ বৃক্ষলতা শোভিত কানন ॥ অশোক চম্পক বৃক্ষ পলাশ কাঞ্চন । অৰ্জ্জুন খৰ্জ্জুর আয় জাম তরু বন ॥ রাজবৃক্ষ শাল তাল আর আমলকী । কণ্টকী দাড়িম্ব নারিকেল হরিতকী ॥ শিরীষ কদম্ব ঝাটি বদরী খদির। • তিন্তিড়ী বহেড়া আর নারঙ্গ জম্বর ॥ দেবদারু ভদ্রারুক নিম্ব তরুবর । বিচিত্ৰ কদলীবৃক্ষ দেখিতে সুন্দর ॥ নানা পুষ্প সৌরভে শোভিত বনস্থলী । ভ্রমর গুঞ্জরে তাহে কোকিল কাকলী ॥ বিচিত্র তুলসীবৃক্ষ অতি স্থশোভন । বিচিত্র মঞ্জরী তাহে নবদলগণ ॥ আমোদে পূর্ণিত হয় সকল কানন । । পুষ্পভরে লম্ববান যত তরুগণ ॥ আশীৰ্ব্বাদ কৈল দেবী প্রসন্নবদনে । অঙ্গে হাত বুলাইয়া ভাই পঞ্চজনে ॥ একে একে সবাকারে করিয়া বিদায় । বনবাস গমন করিল কুরুরায় ॥ গান্ধারীর স্কন্ধে আরোপিয়া বাম হাত । ধীরে ধীরে চলিলেন:কুরুকুল নাথ ॥ গান্ধারীর বামভাগে চলিল সঞ্জয় । অগ্রে অগ্ৰে চলিলেন ক্ষত্তা মহাশয় ॥ হেনমতে অন্ধরাজ চলেন কানন । দেখিবারে আইল সকল প্রজাগণ ॥