পাতা:কোরাণ শরিফ - দ্বিতীয় ভাগ.pdf/২০৫

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


সুরা কচফ । tb-a হওয়ার পূৰ্ব্বে অবশ্য সমুদ্র সমাপ্ত হইবে * । ১০৯। তুমি বল আমি তোমাদের ন্যায় মনুষ্য ইহা বৈ নহি, আমার প্রতি প্রত্যাদেশ প্রেরিত হয় যে তোমাদের ঈশ্বর সেই এক ঈশ্বর, আনস্তুর যে ব্যক্তি স্বীয় প্রতিপালকের সাক্ষাৎকারের আশা রাখে অবশেষে তাছার উচিত যে সৎকৰ্ম্ম করে ও আপন প্রতিপালকের উপাসনায় কাহাকে অংশী স্থাপন না করে শ' । ১১০ ৷ (র ১২)

  • * যখন ইহুদিরা মোসলমান দিগকে বলিয়াছিল “তোমরা আপনাদের এই শাস্ত্রীয় বচন পাঠ করিয়া থাক যে,যে ব্যক্তিকে উত্তম জ্ঞান দান করা হয় নিশ্চয় সেই প্রচুর কল্যাণ লাভ করে। মোহম্মদ মনে করেন যে তাহাকে মহা জ্ঞান প্রদত্ত হই য়াছে, অতএব তোমাদেরও প্রভূত জ্ঞান আছে। পুনৰ্ব্বার তোমরা পাঠ কর অল্প বৈ জ্ঞান প্রদান করা হয় নাই । এই দুই কথার মধ্যে কেমন করিয়া যোগ হইতে পারে।” তখনই পরমেশ্বর এই আয়ত প্রেরণ করেন যে ঈশ্বরের জ্ঞানের সীমা নাই, কোন ব্যক্তির যত কেন প্রচুর জ্ঞান ইউকন ডাহার নিকটে অত্যন্ত অর। (उ, ८झीं,) . . . . . তত্ববাহক মহাপুরুষের অধীনতা স্বীকার করা সাধুপুরুষদিগের কাব্য, উহার বিধি বস্তু যোগেই ডাম্বাদের গতি হইয়া থাকে। উহা বাস্থ্যে সংসারত্যাগ বৈরাগ্যাবলম্বন ও নিত্যসাধনা, অন্তরে বাহ পদার্থ অতিক্রম করিয়া ঈশ্বরের সঙ্গে যোগ স্থাপন অর্থাৎ ঈশ্বর ব্যতিরেক পদার্থের সম্বন্ধে অস্তুশক্ষু রুদ্ধ করিয়া রাখা এবং প্রভুর দর্শন ব্যতীত উন্মীলন না করা। একদা জহির আমরির পু জনব হজরতকে বলিয়াছিল "প্রেরিত মহাপুরুষ, আমি ঈশ্বরোদেশে ধৰ্ম্মানুষ্ঠান করিয়া ধাকি, যদি কেহ ভবিষয়ে জ্ঞাত হয় জাঙ্কাদিত হই।" তাহাতে হজরত বলেন “যে ক্রিয়ায় অনাকে সংগী করা হয় ঈশ্বর ভাল গ্রাহ্য করেন না।" তখন পরমেশ্বর এই আয়ত প্রেরণ করিয়া স্বীয় প্লেবিত পুরুষের বাক্যের সভ্যতা প্রতিপাদন করিলেন। (ত, লে) ।

ബ്