পাতা:কোরাণ শরিফ - প্রথম ভাগ.pdf/১১

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


কোরাণ শরিফ | সুরা ফাতেহা । * প্রথম অধ্যায় { ৭ অtয়ত্ত । ( দাতা শ ও দয়ালু ঈশ্বরের নামে প্রবৃত্ত হইতেছি । ) ১ । বিশ্বপালক পরমেশ্বরের প্রশংসা ২। + তিনি দাতা ও দয়ালু ৩ {

  • বিশেষ বিশেয সময়ে ও বিশেষ বিশেষ ঘটনা স্বত্রে কোরাণের এক এক সুরা (অধ্যায়) অবতীর্ণ হইয়াছে। ফাতেহা স্বরা সম্বন্ধে এইরূপ উল্লিখিত আছে যে একদা মহাপুৰুষ মোছম্মদ মক্কার প্রশস্তরের পথ দিয়া যাইতেছিলেন, এমন সময়ে “হে মোহম্মদ ৷ ” এই শব্দ শুনিতে পাইলেন। তিনি উৰ্দ্ধে দৃষ্টি করিয়া দেখিলেন যে গগণমার্গে স্বর্ণময় সিংহাসনের উপর একজন জ্যোতিষ্মান পুরুষ দণ্ডায়মান হইয়। র্তাহাকে অtহবান করিতেছেন । মহাপুৰুষ মোহম্মদ ইহা দেখিয়া ভরে পলাইতে ছিলেন, কিন্তু পুনঃ পুনঃ তিনি “ছে মোহম্মদ, ” এই শব্দ শ্রবণ করিলেন । খদিজাবিৰীৱ পিতৃব্য পুত্র দরকা পুরাতন ধৰ্ম্মগ্রন্থ ও ইতিহাস শাস্ত্রে স্থপfণ্ডত ছিলেন এবং বর্তমান সময়ে আরব দেশে একজন স্বৰ্গীয় তত্ত্ববাহক সমুৰিত হইবেন জানিতেন, তিনি এই ব্যাপার অবগত হইয়া হজরত মোহম্মদকে বলিলেন, “যখন এই শব্দ শ্রবণ করিবে পলায়ন করিও না, কি বলা ছয় মনোযোগ পুৰ্ব্বক শুনিও”, হজরত তদনুসারে কর্ণপাত করিয়া গুলিতে লাগিলেন। তখন সেই জ্যোতিৰ্ম্ময় পুৰুষের মুখে এই কথা শ্রবণ করিলেন, “হে মোছম্মদ । আমি জেব্ৰিল, তুমি এই দলের নবি" (স্বগীয় সংবাদদাতা )। তৎপর বলিলেন “আমি সাক্ষ্য দান করিতেছি যে ঈশ্বর ব্যতীত উপাস্য মাই, মোছম্মদ র্তাহার প্রেরিত ও তাছার দাস” । অপিচ ৰলিলেন “ৰল বিশ্বপালক পরমেশ্বৰের প্রশংসা” ইত্যাদি ফাতেহা সুরার শেষ বচন পৰ্য্যন্ত উচ্চারিত হইল। ( তফসির শাহ, অবোদল কাদের ) ।

+ “রহমাণ", শব্দের অর্থ দাতা লিখিত হইল। কিন্তু “য়ছমাণ" শব্দের প্রকৃত