পাতা:গোবিন্দ দাসের করচা.djvu/৪০

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


छूमिक * ૭? বহু প্রমাণ উদ্ধৃত করিয়াছেন (৩) আধুনিক বৈষ্ণবসাহিত্যে প্রতিষ্ঠা গৌরবে যে সংগ্ৰহপুস্তকখানি অগ্রগণ্য, স্বৰ্গীয় জগদ্বন্ধু ভদ্র কৃত সেই স্বপ্রসিদ্ধ “গৌরপদতরঙ্গিনী" গ্রন্থে করচ প্রামাণ্যপুস্তক বলিয়া শ্রদ্ধার সহিত উল্লিখিত হইয়াছে। (৪) প্রভুপাদ মুরারি লাল গোস্বামী (অধিকারী) তাহার সুপ্রসিদ্ধ বৈষ্ণব দিগদর্শনী গ্রন্তে করচা-লেখক গোবিন্দদাসকে বিশিষ্ট স্থান দিয়াছেন। গোস্বামী মহাশয়ের এই দিগদর্শনী বিজ্ঞান-সঙ্গত ভাবে রচিত এবং ইনি প্রত্যেক কথাই বিবিধ প্রমাণের সহিত তন্ন তন্ন করিয়া লিখিয়াছেন। (৫) শ্রীহট্টের বর্তমান কালের সর্বাপেক্ষা শ্রেষ্ঠ লেখক এবং বৈষ্ণব ইতিহাসের অদ্বিতীয় পণ্ডিত শ্ৰীযুক্ত অচ্যুতচরণ তত্ত্বনিধি মহাশয় তদ্‌রচিত নানা প্রবন্ধে করচার শ্রেষ্টত্ব স্বীকার করিয়াছেন । অচ্যুত বাবুর তীহট্টের বিরাট ইতিহাস র্যাহারা পড়িয়াছেন, তাহারা জানেন ইনি গোড়া বৈষ্ণব হইয়াও কিরূপ উদার মতাবলম্বী। (৬) “শ্ৰীশ্ৰীষ্ণুিপ্রিয় গৌরাঙ্গ” পত্রিকা সম্পাদক নবদ্বীপ বুড় শিবতলা নিবাসী শ্ৰীযুক্ত পণ্ডিত হরিদাস গোস্বামী অধুনা বহু বৈষ্ণবগ্রন্থ লিখিয়। যশস্বী হইয়াছেন। তাহার বিরাট গ্রন্থ “নীলাচল লীলার” তৃতীয় খণ্ডে তিনি গোবিন্দদাসের করচাকেই মূলতঃ অবলম্বন করিয়া মহাপ্রভুর বৃত্তান্ত লিপিবদ্ধ করিয়াছেন। যাহারা আমার বিরুদ্ধে বঙ্গীয় গভর্ণমেণ্টের নিকট আবেদন করিয়া করচাকে ধ্বংস করিতে চেষ্ট পাইয়া ছিলেন, তাহাদের মধ্যে এই হরিদাস গোস্বামীর নাম ও ছিল। কিন্তু ঐযুক্ত অচ্যুতচরণ তত্ত্বনিধি মহাশয় আমাকে জানাইয়াছেন “শ্ৰীযুক্ত হরিদাস গোস্বামী মহাশয়ের পত্র এই মাত্র পাইলাম। তিনি লিখিয়াছেন তাহার অনুমতি গ্রহণ করিয়া তাহার নাম দেওয়া হয় নাই।” বস্তুতঃ তিনি করচার কিরূপ অনুরাগী তাহা তাহার “নীলাচল লীলা” পড়িলেই বুঝা যাইতে পারে। (৭) বৈষ্ণব জগতের অন্ততম ঐতিহাসিক শ্ৰীপাট পানিহাট নিবাসী পণ্ডিত শ্ৰীযুক্ত অমূল্যধন রায় ভট্ট মহাশয়ের সুবৃহৎ “শ্ৰীগৌরাঙ্গের ভারত ভ্রমণ” নামক পুস্তকের পাণ্ডুলিপি প্রেসে দেওয়ার জন্ত প্রস্তুত। এই গ্রন্থে মহাপ্রভুর দাক্ষিণাত্য ভ্রমণ সৰ্ব্বৈব তিনি করচাকে অবলম্বন করিয়াই লিখিয়াছেন । (৮) বৈষ্ণবাগ্রগণ্য শ্ৰীযুক্ত রাধাগোবিন্দ চট্টোপাধ্যায় মহাশয় চৈতন্যদেবের দাক্ষিণাত্য ভ্রমণের একখানি মানচিত্র প্রকাশিত করিয়া যশস্বী হইয়াছেন। হাইকোটের ভূতপূৰ্ব্ব বিচারপতি উডরফ সাহেবপ্রমুখ বহু পণ্ডিত এই মানচিত্রের উচ্চপ্রশংসা করিয়াছেন। গোবিন্দদাসের করচাই মানচিত্ৰখানির মূল অবলম্বন । ( ৯ ) স্বগীয় হারাধন দত্ত ভক্তিনিধি মহাশয় বৈষ্ণব সাহিত্যে অগাধ পাণ্ডিত্য প্রদর্শন করিয়া গিয়াছেন। র্তাহার রচিত বহু প্রবন্ধে করচার সশ্রদ্ধ উল্লেখ আছে।

  • বিশেষরূপে শ্ৰীশ্ৰীবিষ্ণুপ্রিয়া গৌরাঙ্গ পত্রিকার তৃতীয় বৎসরের পঞ্চম সংখ্যায় তৎকৃত প্রবন্ধ দ্রষ্টব্য।

এই গ্রন্থকারের রচিত ‘বৃহৎ বৈষ্ণৰ চরিতাভিধান' দ্বাদশ গোপালের ইতিবৃত্ত' প্রভৃতি গ্রন্থেও করচ, भूलउ; यक्जबिउ ठूङ्ग्रेग्राप्झ ।