পাতা:চতুরঙ্গ - রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.pdf/৭৬

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


চতুরঙ্গ ילר নিশ্চয় দামিনী আড়াল হইতে ব্যাপারখানার আভাস পাইয়াছিল। দরজার কাছে আসিয়া সে আমাকে বলিল, *আপনাকে যে বইগুলা অানাইয়া দিতে বলিয়াছিলাম সে কি এখনো আসে নাই ।” আমি চুপ করিয়া রহিলাম। গুরুজি বলিলেন, “মা, সে বইগুলি তো তোমার পড়িবার যোগ্য নয় ।” দামিনী কহিল, “আপনি বুঝিবেন কী করিয়া।” গুরুজি ভ্ৰকুঞ্চিত করিয়া বলিলেন, “তুমিই বা বুঝিবে কী করিয়া ।” “আমি পূর্বেই পড়িয়াছি, আপনি বোধ হয় পড়েন নাই।” “তবে আর প্রয়োজন কী * “আপনার কোনো প্রয়োজনে তো কোথাও বাধে না, আমারই কিছুতে বুঝি প্রয়োজন নাই ?” “আমি সন্ন্যাসী, তা তুমি জান ।” “আমি সন্ন্যাসিনী নই তা আপনি জানেন । আমার ও বই গুলি পড়িতে ভালো লাগে। আপনি দিন ।” গুরুজি বালিশের নীচে হইতে বইগুলি বাহির করিয়া আমার হাতের কাছে ছুড়িয়া ফেলিলেন, আমি দামিনীকে দিলাম । ব্যাপারটি যে ঘটিল তার ফল হইল, দামিনী যে-সব বই আপনার ঘরে বসিয়া একলা পড়িত তাহা আমাকে ডাকিয়া পড়িয়া শুনাইতে বলে । বারান্দায় বসিয়া আমাদের পড়া হয়, আলোচনা চলে— শচীশ সমুখ দিয়া বারবার আসে আর যায়,