পাতা:চিঠিপত্র (ত্রয়োদশ খণ্ড)-রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.pdf/৩৩৩

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


एषांकांच बांबछोडूबौब रखाचरब cनथt, cनरब ब्ररीखबाष चाकन्न করেছেন । Aছল "বাংলাদেশের দুৰ্গতির লক্ষণ প্রতিদিন পরিস্ফুট হয়ে উঠছে ;. এই সময় বাংলাদেশের রাজনৈতিক পরিমওল নানাকারণে দূষিত হয়ে উঠেছিল । সাম্প্রদায়িক বিরোধ ও দাঙ্গাহাঙ্গামা, কংগ্রেসের ভিতরে নীতিগত ব্যবধান ও দলাদলি, মন্ত্রীদের মধ্যে সাম্প্রদায়িক বা গোষ্ঠীগত স্থযোগ-সুবিধা নেওয়ার চেষ্টা-এ-সবের মধ্যে দুৰ্গতি-লক্ষণ পরিস্ফুট হয়ে ওঠে । এই চিঠিতে রবীন্দ্রনাথ ‘আমার এই শেষ কয়দিন আমার জাপন কর্মক্ষেত্রের একপ্রাস্তে বসে শাস্তিতে যাপন করতে ইচ্ছে করি’— এ-রকম . ইচ্ছা প্রকাশ করলেও দেশের এই দুদিনে তার পক্ষে নিরাসক্তভাবে বসে থাকা সম্ভবপর হয় নি । ২৮ নভেম্বর ১৯৩৮ তারিখে শাস্তিনিকেতন থেকে তিনি জওহরলাল নেহরুকে যে চিঠি লিখেছিলেন । তার মধ্যে র্তার উদবেগের পরিচয় আছে। চিঠিটির অংশবিশেষ উদদ্ভুত হল— My dear Jawaharlal I asked you to come and meet me not because I had any definite plan to discuss or any request to make. I merely wanted to know your own opinion about Bengal whose present condition puzzless me and makes me dispair. My province is clever but morally untrained and supercilious in her attitude towards her neighbours, she breaks into violent hysteric fits. ১. প্রতিলিপি শাড়িশিকেতন রবীন্দ্রভবনে রক্ষিত । 93 е