পাতা:চিঠিপত্র (প্রথম খণ্ড)-রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.pdf/১৩২

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


দেখি তার দুই চক্ষু জলে ভেসে যায়। আমরা জিগেস করলে কিছু বলেন না । আজও পর্য্যন্ত আমরা বোলতার মনের ভাব তে{ কিছু বুঝতে পারলুম না . কিন্তু আমার বড় কষ্ট হয়। কাকীমা আমি রবি কাকার কাছে অনেক গান শিখেছি । • • বাস্তবিক বলছি তুমি খুব লক্ষ্মী মেয়ে। আমি রবিকাকাকে প্রায় বলি কাকিম। খুব লক্ষ্মী মেয়ে। রবিকাকা শুনে খুব খুলী হন। রবিকাকা কি স্বপ্ন দেখেছিলেন বলছি শোন । বল্লে তোমার বোধহয় কারোর উপর হিংসে হবে । ওসব কথা গোপন করে রাখা কিছু না । কি বল ভাই বলে ফেলাই ভালো। কৰ্ত্ত দাদামশায় বিয়ে দেবেন। রবিকাকা কিছুতেই বিয়ে করবেন না। কৰ্ত্তাদাদামশায় ছাড়বেন না। কথাবার্তা সব ঠিক হয়ে গেল । যেমনি বিয়ে হবে অমনি রবিকাকার ঘুম ভেঙ্গে গেল । যাক তুমি বেঁচে গেলে । তোমাকে আর সতীনের ঘর করতে হল না ... মাঝে মাঝে দুই একটা সতীন হলে তোমার বোধহয় ক্ষতি হবে না। মেয়েটি দেখতে শুনে [ শুনতে ] কিন্তু বেশ ছিল। তবু ভাই রবিকাকা তোমাকে ছেড়ে কিছুতেই থাকতে পারেন না। দেখতে তোমাকে কত ভালবাসেন । তুমি রবিকাকাকে রোজ চিঠি লিখবে বলে লিখলে কৈ ? রবিকাকা এ দুদিন তোমার চিঠি পান নি। আজ আবার কত দুঃখু করছিলেন। তুমি ভাই লিখেছিলে বলুকাদলে তাকে সাম্বন৷ দিস। আমি কত বুঝিয়ে বলি কিছুতেই বোঝেন না। আর কোনো খবর নেই। ইতি স্নেহের অভি సె\e