পাতা:জাপানে-পারস্যে-রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.pdf/২১২

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটিকে বৈধকরণ করা হয়েছে। পাতাটিতে কোনো প্রকার ভুল পেলে তা ঠিক করুন বা জানান।
২০২
জাপানে-পারস্যে

phon) ভগ্নাবশেষ দেখতে যেতে হবে। আমি ছাড়া আমার দলের বাকি সবাই দেখতে গেলেন। একদা এই শহরের গৌরব ছিল অসামান্য পার্থিয়ানেরা এর পত্তন করে। পারস্যে অনেকদিন পর্যন্ত এদের রাজত্ব ছিল। রােমকেরা বারবার এদের হাতে পরাস্ত হয়েছে। পূর্বে বলেছি পার্থিয়েরা খাঁটি পারসীক ছিল না। তারা তুর্ক ছিল বলে অনুমান করা হয়, শিক্ষাদীক্ষা অনেকটা পেয়ে ছিল গ্রীকদের কাছ থেকে। ২২৮ খ্রিস্টাব্দে আর্দাশির পার্থিয়দের জয় করে আবার পারস্যকে পারসীক শাসন ও ধর্মের অধীনে এক করে তােলেন। ইনিই সাসানীয় বংশের প্রথম রাজা। তার পরে বারবার রােমানদের উপদ্রব এবং সব-শেষে আরবদের আক্রমণ এই শহরকে অভিভূত করে ছিল। জায়গাটা অস্বাস্থ্যকর বলে আরবেরা এখান থেকে সমস্ত মালমসলা সরিয়ে বােগদাদে রাজধানী স্থাপন করে,—টেসিফোন ধূলােয় গেল মিলিয়ে, বাকি রইল বৃহৎ প্রাসাদের একটুখানি খিলান। এই প্রাসাদ প্রথম খস্রুর আদেশে নির্মিত হয় সাসানীয় যুগের মহাকায় স্থাপত্যশিল্পের একটি অতি আশ্চর্য দৃষ্টান্তরূপে।

 সন্ধ্যাবেলায় রাজার ওখানে আহারের নিমন্ত্রণ। ঐশ্বর্য-গৌরব প্রমাণ করবার জন্যে কোথাও লেশমাত্র চেষ্টা নেই। রাজার এই অনাড়ম্বর গাম্ভীর্যে আমার চিত্তকে সব-চেয়ে আকর্ষণ করে। পারিষদবর্গ যাঁরা একত্রে আহার করছিলেন হাস্যালাপে তাঁদের সকলের সঙ্গে এর অতি সহজ সম্বন্ধ। আমাদের দেশের সাধারণ লােকেরাও বিশেষ ভােজে আহারের পরিমাণে ও আয়ােজনে নির্বোধের মতাে যে অতিবাহুলতা করে থাকে রাজার ভােজে তা দেখলুম না। লম্বা টেবিলের উপর শাদ চাদর পাতা। বিরলভাবে কয়েকটি ফুলের তােড়া আছে, তা ছাড়া সাজসজ্জার চমক নেই একটুও। এতে আতিথ্যের যথার্থ আরাম পাওয়া যায়।