পাতা:ঝাঁশির রাণী - জ্যোতিরিন্দ্রনাথ ঠাকুর.pdf/৩৩

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে চলুন অনুসন্ধানে চলুন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা হয়েছে, কিন্তু বৈধকরণ করা হয়নি।

ঝাঁশির রাণী।

২৯

স্তুতিবাদ করিয়া, তাঁহাকে বহুমুল্য বস্ত্রালঙ্কার প্রদান করিয়া তঁহির যথো- চিত সম্মান করিলেন। এইক্ষণে, বোছার পক্ষ হইতে সন্ধির প্রস্তাব আসিল। বোরছা-রাজ্য অতীব প্রাচীন ও ক্ষত্রিয়কুলমধ্যে' বোছার রাজবংশ সর্ব্বজন-বন্দ্য হওয়ায় রাণীঠাকুরাণী অতীব উদার বুদ্ধি-সহকারে যুদ্ধের খরচা প্রভৃতি লইয়া, বোছার রাণীর সহিত সখ্যমূলক সন্ধিস্থাপন করিলেন। শ্রীমতী চিমাবাই বলেন, “ঝাঁশির রাণী লক্ষ্মীবাই ও বোছার রাণী লঢ়য়ী বাই-ইহাদের মধ্যে সহোদর ভগিনীর ন্যায় মিলন হইল।”

 এই প্রকারে, ঋশির উপস্থিত বিপদ নিবারণ করিয়া, রাণী লক্ষ্মীবাই ঝঁশি-প্রদেশের সুন্দর ব্যবস্থা করিলেন এবং পত্রের দ্বারা সমস্ত বৃত্তান্ত হ্যামিল্টন সাহেবের গোচর করিবার নিমিত্ত সচেষ্ট হইলেন। কিন্তু দুর্ভাগ্যক্রমে, নথে-খা পথিমধ্যে পত্রবাহককে ধৃত করিয়া, সে পত্র পৌছিতে দিল না। শুদ্ধ তাহা নহে, সে স্বয়ং হামিণ্টন সাহেবকে এই মর্মে একটা পত্র লিখিল যে, রাণী লক্ষ্মীবাই বিদ্রোহীর দলভুক্ত হইয়াছেন—সেই জন্য আমি তাহার বিরুদ্ধে যুদ্ধ করিতে প্রবৃত্ত হইয়াছি। এই সকল কারণে, রাণী লক্ষ্মীবাই ইংরাজদিগের হইয়াই যে ঝাশির সুশাসন ও সুব্যবস্থা করিতেছিলেন, ইংরাজ কর্তৃপক্ষীয়েরা তাহা জানিতে পারিল না।

 ৯।১০ মাস যাবৎ ঋশি ইংরাজের হস্তচ্যুত হইয়া রাণীর শাসনাধীনে ছিল। এই সময়ে তিনি রাজ্যশাসনকার্যে যেরূপ প্রবীণতা, দক্ষতা, প্রজাবৎসল্য, ন্যায়পরতা প্রভৃতি গুণের পরিচয় দিয়াছিলেন তাহা অতীব প্রশংসনীয়। তিনি কিরূপে সময় অতিবাহিত করিতেন, তৎসাময়িকএক ব্যক্তি এইরূপ বর্ণনা করেন:—প্রাতঃকালে ৫টার সময় উঠিয়া,উত্তম সুরভি-দ্রব্য-সহযোগে মঙ্গল-স্নান করিতেন। স্নানাদি করিয়া পরিস্কৃত শুভ্র বস্ত্র পরিধান করিয়া অসিনারূঢ় হইতেন। তদনন্তর, পতিবিয়য়াগের পর কেশ রাখিতে হইলে যে কৃচ্ছ প্রায়শ্চিত্তের আবশ্যক সেই প্রায়শ্চিত্ত সাধন করিয়া, রৌপ্যনির্মিত তুলসী-বৃন্দাবনে শ্রীতুলসীর পূজা করি-