পাতা:টাকার কল.pdf/৫

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে চলুন অনুসন্ধানে চলুন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।

সূচনা। আজ কাল অনেক লােক সদ্য বড়লােক হইবার আশায় জাল নােট, কৃত্রিম টাকা প্রভৃতি প্রস্তুত করিতে গিয়া রাজ-বিচারে কঠোর দণ্ড ভােগ করিয়া স্বীয় উচ্চ আশার পরিসমাপ্তি করিতেছে। আমাদের এই “টাকার কলে উৎপন্ন টাকায় সেরূপ ভয়ের কোন ক রণ নাই। ইহা সৰ্ববাদসম্মত নির্দোষ ও প্রাচীন যন্ত্র। সুতরাং কৃত্রিম বা জাল টাকা ইহাতে উৎপন্ন হয় না। এই কলের প্রধান উপাদান “ব্যবসা-বাণিজ্য-কৃষি-শিল্প। ‘‘বাণিজ্যে বসতে কর্মীস্তদর্ফং কৃষিকৰ্ম্মণ”- এই শাস্ত্রীয় মহদ্বাক্য ইহার মূলমন্ত্র। চাকুরীপ্লাবিত বঙ্গদেশে ইহার অত্যধিক প্রচলন ও ব্যবার হইতে থাকিতে দরিদ্র বাঙ্গালী হিন্দু মুসলমান) জাতির দাসত্বজীবনের কঞ্চিৎ অবসান হইতে পারে। এই সুজলা-সুফলা-শস্য-শ্যামা-রত্ন-প্রসবিনী বঙ্গদেশে টাকার কল ও টাকা বানাইবার মাল-মসলা অনেক ; যেদিকে চাও, একটু ধীরভাবে লক্ষ্য করিলে দেখিতে পাওয়া যায়—যাহা আমরা নিতান্ত