পাতা:নীতিকণা - নারায়ণচন্দ্র বিদ্যারত্ন.pdf/৯

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটিকে বৈধকরণ করা হয়েছে। পাতাটিতে কোনো প্রকার ভুল পেলে তা ঠিক করুন বা জানান।
নীতিকণা।

কখন কাটিতে তা’রে না পারে পোকায়,
কোন রূপ দাগ কভু নাহি ধরে তা’য়।
বরঞ্চ যতই হ’বে নিত্য ব্যবহার,
ক্রমশঃ বাড়িবে তত উজ্জ্বলতা তা’র।

 


প্রভাত

আর শু’য়ে থাকিব না, রাতি শেষ হ’য়েছে,
প্রভাত-সূচক রবে পাখী গীত ধ’রেছে।
বিবিধ কুসুম চয় চারিদিকে ফুটেছে।
মধুপান অভিলাষে অলিকুল ছুটেছে।
সগৌরবে ছড়াইয়া সমুজ্জ্বল কিরণে,
লাল ছবি ল’য়ে রবি উঠিয়াছে গগনে।
এমন সময় নিদ্রা আর নাহি যাইব,
শয্যা ছাড়ি, প্রকৃতির কত শোভা হেরিব।
রবির কিরণে বিশ্ব আলোকিত হ’য়েছে,
আমরি, মোহনরূপে, প্রকৃতি কি সেজেছে!
নিশির শিশির বিন্দু তৃণোপরি প’ড়েছে,
কে যেন মুকুতারাশি ছড়াইয়ে রেখেছে।