পাতা:পত্রপুট-রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.djvu/২২

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটিকে বৈধকরণ করা হয়েছে। পাতাটিতে কোনো প্রকার ভুল পেলে তা ঠিক করুন বা জানান।
পত্রপুট
১১
 

তিন

আজ আমার প্রণতি গ্রহণ করাে, পৃথিবী,
শেষ নমস্কারে অবনত দিনাবসানের বেদীতলে।

মহাবীর্যবতী, তুমি বীরভােগ্যা,
বিপরীত তুমি ললিতে কঠোরে,
মিশ্রিত তােমার প্রকৃতি পুরুষে নারীতে;
মানুষের জীবন দোলায়িত করাে তুমি দুঃসহ দ্বন্দে।
ডান হাতে পূর্ণ করো সুধা
বাম হাতে চূর্ণ করো পাত্র,
তােমার লীলাক্ষেত্র মুখরিত করো অট্টবিদ্রূপে;
দুঃসাধ্য করাে বীরের জীবনকে, মহৎজীবনে যার অধিকার।
শ্রেয়কে করাে দুর্মূল্য,
কৃপা করাে না কৃপাপাত্রকে।
তােমার গাছে গাছে প্রচ্ছন্ন রেখেছ প্রতিমুহূর্তের সংগ্রাম,
ফলে শস্যে তার জয়মাল্য হয় সার্থক।
জলে স্থলে তােমার ক্ষমাহীন রণরঙ্গভূমি,
সেখানে মৃত্যুর মুখে ঘােষিত হয় বিজয়ী প্রাণের জয়বার্তা।
তােমার নির্দয়তার ভিত্তিতে উঠেছে সভ্যতার জয়তোরণ,
ত্রুটি ঘটলে তার পূর্ণ মূল্য শােধ হয় বিনাশে।
তােমার ইতিহাসের আদিপর্বে দানবের প্রতাপ ছিল দুর্জয়,
সে পরুষ, সে বর্বর, সে মূঢ়।