পাতা:প্রমোদকামিনী কাব্য.pdf/৫৫

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটিকে বৈধকরণ করা হয়েছে। পাতাটিতে কোনো প্রকার ভুল পেলে তা ঠিক করুন বা জানান।
৪৬
প্রমোদকামিনী কাব্য।


“যে অনলে, প্রণয়িনি! কর লো রন্ধন,
দেহের অনল মোর,
হরষে হইয়া ভোর,—
হেরিবে, মিশিয়া তাতে এ বিধু-বদন।

“দেহের সমীর মম আনন্দিত হয়ে,
লাগিবে তোমার গায়;
আদর করিয়া হায়,
যথা পাবে পরিমল এনে দিবে বয়ে।

“আকাশে মিলিত হয়ে আকাশ আমার,
উন্মীলি সহস্র আঁখি,
তোমারে ঘেরিয়া থাকি,
দেখিবে লাবণ্যরাশি সুধার আধার।”

পতির আদরে সতী মনে মনে হাসে;
অসীম আনন্দ রাশি,
বদন সরোজে আসি,
কোমল-অধরোপরি ঈষৎ প্রকাশে।