পাতা:প্রেমিক গুরু.djvu/১২০

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে চলুন অনুসন্ধানে চলুন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।

eశీ প্রেমিক-গুরু پس هم AMMMA AM MAAA AAASA SAASAASSAAAASSSS S S তৎসমুদায় কৃষ্ণলীলায় প্রকটত। প্রজাপালনরূপ গোচারণে (গো অর্থে প্রজা ) কৃষ্ণ, সংসারধামরূপ গোষ্ঠে ক্রীড়া করেন। আনন্দধাম নন্দালয়ে পিতাপুত্রের সম্বন্ধে কৃষ্ণ দেখা দিয়াছিলেন । পিতামাতার বাৎসল্য ভক্তি অপেক্ষাও প্রগাঢ়তর। হিন্দুর ঈশ্বরানুরাগ, বাৎসল্য অপেক্ষাও বোধ হয় অধিক । যশোদা ও নন্দের বাৎসল্য একদা হিন্দুর দেবামুরাগের সহিত তুলনীয় হইতে পারে। হিন্দুরা দেবতাকে ক্ষীর ননী খাওয়ান, হৃদয়ের উৎকৃষ্ট উপহার ও ভক্তিপুষ্প-চন্দনে চর্চিত করিয়া অৰ্চনা করেন । যশোদা ও নন্দের স্তায় স্নেহের শতরঞ্জতে কৃষ্ণকে বাধিতে চাহেন। কিন্তু সে স্নেহ অপেক্ষাও বুঝি আরও উৎকৃষ্ট জিনিস আছে,তাহ রাধার কৃষ্ণামুরাগ। হিন্দুর দেবানুরাগ ক্রমশঃ কুরিত হইয়া বাৎসল্যভাব অপেক্ষাও প্রগাঢ়তর হইয়াছে ; প্রগাঢ়তর হইয়া রাধার প্রেমে উপনীত হষ্টয়াছে । পতি-পত্নীর সম্বন্ধের একটু যেন দুরভাব আছে। পত্নী, পতিকে খুব নিকটে দেখেন বটে, অথচ একটু উচ্চ উচ্চভাবে দেখেন । কেবল যে ললন লুকাইয়া অপর পুরুষের অনুরাগিণী হন, তাহার প্রেমে সে প্রভূতার দূরভাব নাই। রাধাব প্রেম সেইরূপ প্রেম। সংসারই আয়ান এবং ধৰ্ম্মদ্বেষী ব্যক্তিগণ জটিলা-কুটিল । তাই তাহদের লুকাইয় গোপনীয় প্রেমে রাধা, কৃষ্ণকে ভালবাসিতেন ; তাহার সহিত ক্ষণিক মিলনের জন্য লীলায়িত হক্টতেন । মিলন হইলে আনন্দ সাগরে ভাসিতেন । ক্ষণেকর্মিলনে যেমন যোগীর আনন্দ, রাধিকার আনন্দ ততোধিক । রাধিকাএইরূপ অনুরাগে ক্লষ্ণপ্রেমে উন্মত্ত ছিলেন । এযোগ, পতি-পত্নীর যোগ অপেক্ষাও গাঢ়তর । এ প্রেম স্ত্রী-পুরুষের গোপনীয় ঘনিষ্ঠ অনুরাগ। এ অনুরাগ হিন্দূযোগীর ঈশ্বরানুরাগ। সেই অনুরাগের ক্রমন্যুৰ্বি যোগতত্ত্বে অনুভবনীয়। সেই ক্রম কৃষ্টির বহবিকাশই ব্ৰঙ্কলীলা ।