পাতা:প্রেমিক গুরু.djvu/৯২

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে চলুন অনুসন্ধানে চলুন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।

Գ8 প্রেমিক-গুরু অধিষ্ঠান জন্ত তীর্থ পুণ্যস্থান বলিয়া কীৰ্ত্তিত হয়। প্রত্যেক তীর্থস্থানই ভগবান কিম্বা ভগবচ্ছদৃশ কোন মহাত্মার লীলাভূমি। সুতরাং তথায় তাহাদের অসাধারণ শক্তি, জ্ঞান বা ভক্তি পুঞ্জীকৃত হইয়া আছে ; কোন ব্যক্তি তথায় যাইবামাত্র সেই পুঞ্জীকৃত শক্তি তাহাকে অনুপ্রাণিত করিয়া ফেলে। তাহার ফলে সেই ব্যক্তির তত্তং বৃত্তি জাগ্রত হইয়া পড়ে। বিশেষতঃ প্রত্যহ কত লোক তীর্থস্থানে একই মনোবৃত্তি লইয়া গমন করিতেছে, তাহাদের সমষ্টি মনোবৃত্তি তথায় পুঞ্জীকৃত ইচ্ছাশক্তি রূপে প্রাচুভূত হইয়া তীর্থবাসী মানবগণের হৃদয়কে অনুপ্রাণিত করিয়া, তদুপযোগী করিয়া লয় । সুতরাং আপন আপন ভাবানুযায়ী তীর্থে বাস বা ভ্রমণ করিলে, হৃদয়ে ভক্তির ভাব জাগ্রত হয় । বিশেষতঃ তীর্থ ভ্রমণের উদ্দেশুে নানা দেশ ভ্রমণ করিলে, ভগবানের বিশ্ব-সৃষ্টি-কৌশলের বিচিত্র ব্যাপার –কত নদ-হ্রদ-সাগর, কত পৰ্ব্বত, অধিত্যকা, উপত্যকা, কত শ্বাপদ-সস্কুল বনভূমে নানাজাতি কুমুমের সুন্দর সুষম সন্দর্শন করিয়া কাহার না প্রাণ ভক্তিরসে আপ্লত হয়। আরও এক সুবিধা ; তীর্থভ্রমণকালে অনেক সাধুমহাত্মার সঙ্গলাভ করিয়া কৃতাৰ্থ হইতে পারা যায়। তবে যাহারা প্রেমভক্তি অথবা গোপীভাবনিষ্ঠ প্রেমরস লাভ করিতে ইচ্ছক, তাহাদিগকে মথুরামগুলেই অবস্থিতি করিতে হইবে । কারণ প্রেমভক্তির উত্তাল-তরঙ্গ এক মথুরামগুল ভিন্ন অন্ত কোথাও উঠে নাই, পুরাণশাস্ত্রে ব্রজভূমি মথুরামগুলের মাহাত্ম্য বিশেষরূপে বর্ণিত আছে। যথা : শ্ৰুতা স্মৃত কীৰ্ত্তিতা চ বাঞ্ছিত প্রেক্ষিতা গত । স্পৃষ্টশ্রিত সেবিতা চ মথুরাভীষ্টদ মৃণাম ॥ —ব্রহ্মাও পুরাণ ।