পাতা:ফাল্গুনী - রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.pdf/৭৬

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


৭২ कांड़नौ লব আমরা চলব না-ই পা কারে উপর । বসব। পাছটাে লক্ষ্মীছাড়া, পথে পথেই ঘুরে মরল । হাত হটোকে পিছনের দিকে বেঁধে রাখব। পিছনের কোনো বালাই নেইরে, যত মুস্কিল এই সামনেটাকে নিয়ে । শরীরে যতগুলো অঙ্গ আছে তা’র মধ্যে পিঠটাই সত্যি কথা বলে। সে বলে চিৎ হ’য়ে পড়, চিৎ হ’য়ে পড় । কাচ বয়সে বুকটা বুক ফুলিয়ে চলে কিন্তু পরিণামে সেই পিঠের উপরেই ভর—পড়তেই হয় চিং হ’য়ে । গোড়াতেই যদি চিৎপাত দিয়ে সুরু করা যেত তাহলে মাঝখানে উৎপাত থাকৃত না রে । আমাদের গ্রামের ছায়ার নীচে দিয়ে সেই যে ইরা নদী ব’য়ে চলেছে তা’র কথা মনে পড়চে ভাই । সেদিন মনে হয়েছিল, সে বলচে, চল, চল, চল,— আজ মনে হচ্চে ভুল শুনেছিলুম, সে বলচে, ছল, ছল, ছল । সংসারটা সবই ছল রে । সে কথা আমাদের পণ্ডিত গোড়াতেই বলেছিল।