পাতা:ফাল্গুনী - রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.pdf/৯

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


ফাল্গুনী & প্রতিহারী, বাইরে ঐ কা’রা গোল করচে, বার কর, আমি একটু শান্তি চাই । নাগপত্তনে তুর্ভিক্ষ দেখা দিয়েছে, প্রজারা সাক্ষাৎ প্রার্থনা করে । আমার ত সময় নেই মন্ত্রী, আমি শান্তি চাই । তা’রা বলচে তাদের সময় আরো অনেক অল্প— তা’র মৃত্যুর দ্বার প্রায় লঙ্ঘন করেচে—তা’র ক্ষুধাশান্তি চায়। ক্ষুধাশান্তি ! এ সংসারে কি ক্ষুধার শান্তি আছে ??? ক্ষুধানলের শাস্তি চিতানলে । তাহ’লে মহারাজ, ঐ হতভাগ্যদের— ঐ হতভাগ্যদের প্রতি এই হতভাগ্যের উপদেশ এই যে, কাল-ধীবরের জাল ছিন্ন করবার জন্তে ছটফট করা বৃথা, আজই হোক কালই হোক সে টেনে তুলবেই। অতএব— অতএব শ্রুতিভূষণকে প্রয়োজন এবং তার বৈরাগ্য বারিধি পুথি । প্রজারা তাহ’লে তুর্ভিক্ষ— দেখ মন্ত্রী, ভিক্ষা ত অন্নের নয়, ভিক্ষা আয়ুর । সেই

i