পাতা:ফিরিঙ্গি-বণিক্.djvu/৬০

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


tR ফিরিঙ্গি বণিক এই শেষ সীমা অতিক্রম করিয়া, জলপথে ভারতবর্ষে উপনীত হইবার আশায় ১২৯১ খৃষ্টাব্দে একদল জেনোয়া-নিবাসী সাহসী নাবিক সমুদ্রযাত্ৰা করিয়াছিল । তাহারা আর স্বদেশে প্ৰত্যাবৰ্ত্তন করিতে পারে নাই। তাহাদের সাহস বাতুলতা বলিয়া পরিচিত হইয়াছিল,—তাহা ইউরোপের কাব্যে ইতিহাসে অতিসাহস বলিয়াই নিন্দিত হইয়াছিল ! হেনরী সেই পথেই পোত প্রেরণ করিতে কৃতসংকল্প হইয়াছিলেন। তিনি বুঝিয়াছিলেন,-প্রচলিত জনশ্রুতির অলীকত্ব সংস্থাপিত করিতে না। পারিলে, ভারত যাত্ৰা সফল হইবে না,-- নাবিকগণ সাহস করিয়া অকুল সমুদ্রে অগ্রসর হইবে না। পঞ্চদশ শতাব্দীর মধ্যভাগে হেনরীর সুশিক্ষিত নাবিকগণ “বোজাডর অন্তরীপ” অতিক্রম করিয়া স্বদেশে প্রত্যাবৃত্ত হইলে খৃষ্টান সমাজের ভ্ৰান্ত সংস্কার দূরীভূত হইয়া গেল। বিষুৱ-রেখার নিকটবৰ্ত্তী হইলে যে ভস্মসাৎ হইবার আশঙ্কা নাই, সে কথা জনসমাজে ব্যাপ্ত হইয়া পড়িল । হেনরীর দীর্ঘ সাধনা সিদ্ধিলাভ করিল। ক্ৰমে দক্ষিণাভিমুখে অগ্রসর হইতে পারিলেই যে ভারতবর্ষের পথ আবিষ্কৃত হইবে, তাহাতে কাহারও সংশয় রহিল না । কিন্তু এই কাৰ্য্য সুসম্পন্ন করিতে যত সময় অপেক্ষা করিবার প্রয়োজন, তত সময় সন্ন্যাসীর নশ্বর দেহ ধরাধামে রহিল না । তাহার তিরোভাবে সমগ্ৰ ইউরোপ হাহাকার করিয়া উঠিল । পুণ্যাশ্রমের সাগর-সৈকতের দুৰ্গদ্বারে হেনরীর অসাধারণ আত্মত্যাগের স্মৃতিচিহ্নস্বরূপ এক অত্যুন্নত জয়স্তম্ভ। এখনও মহাসাগর-কল্লোলে স্তম্বমান হইয়া সন্ন্যাসীর সম্মান রক্ষা করিতেছে । তাহার ফলক-লিপিতে ১৪৬০ খৃষ্টাব্দ হেনরীর তিরোভাবকাল বলিয়া উল্লিখিত । * YS S LLS BBBD DDBDSDYDDLDD BDBB DBDSKBBDD BDD DDD S S DDD উল্লেখ না করিয়া স্মৃতিস্তস্তে উল্লিখিত খৃষ্টাব্দকেই হেনূরীর তিরোভাবকাল বলিয়া গ্ৰহণ করা যাইতে পারে {