পাতা:বঙ্কিমচন্দ্রের উপন্যাস গ্রন্থাবলী (তৃতীয় ভাগ).djvu/১৬১

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


t কপালকুণ্ডল সংসারে আপত্তি কি ?’ প্রকাশ্বে কহিলেন, “আপনাকে একটা কথা জিজ্ঞাসা করিতে আসিয়াছিলাম । এই যে কন্যা আপনার প্রাণরক্ষা করিয়াছে—এ পরহিতার্থ আত্মপ্রাণ নষ্ট করিয়াছে । যে মহাপুরুষের আশ্রয়ে ইহার বাস, তিনি অতি ভয়ঙ্করস্বভাব । তাহার নিকট প্রত্যাগমন করিলে আপনার যে দশা ঘটিতেছিল, ইহার সেই দশ ঘটিবে । ইহার কোন উপায় বিবেচনা করিতে পারেন কি না ?” নবকুমার উঠিয়া বসিলেন । কহিলেন, “আমিও সেই আশঙ্ক। করিতেছিলাম । আপনি সকল অবগত আছেন, ইহার উপায় করুন । আমার প্রাণদান কপিলে যদি কোন প্রত্যুপকার হয়,—তবে তাহাড়েও প্রস্তুত আছি ! আমি এমন সঙ্কল্প করিতেছি যে, আমি সেই নরঘাতকের নিকট প্রত্যাগমন করিয়া আত্মসমর্পণ করি । তাহা ভূক্টলে ইহার রক্ষ হইবে ।” অধিকাৰী হান্ত করির। কহিলেন, “তুমি বাতুল । ইহাতে কি ফল দশিবে ? তোমারও প্রাণসংহার হইবে—অথচ ইহার প্রতি মহাপুরুষের ক্ৰোধোপশম হইবে না । ইহার একমাত্র উপায় আছে ” লব ! সে কি উপায় ? আধি । আপনার সহিত চহার পলায়ন । কিন্তু সে অন্তি ঘেট । আমার এখানে থাকিলে দুই এক দিনের মধ্যে ধত হইবে । এ দেবালয়ে মহাপুরুষের সৰ্ব্বদ। যাতায়াত । সুতরাং কপালকুণ্ডলার অদুষ্টে অশুভ দেখিতেছি । নবকুমাব আগ্রহ সহকারে জিজ্ঞাসা করিলেন, “আমার সহিত পলায়ন দুর্ঘট কেন ?" অধি। এ কাহার কন্যা,-কোন কুলে জন্ম, তাহ। আপনি কিছুষ্ট জানেন না । কাহার পত্নী,—কি চরিত্র, তাহা কিছুই জানেন না । আপনি ইহাকে কি সঙ্গিনী করিবেন ? সঙ্গিনী করিয়া লইয়া গেলেও কি আপনি ইহাকে নিজ গৃহে স্থান দিবেন ? আর যদি স্থান না দেন, তবে এ অনাথা কোথায় যাইবে ? নবকুমার ক্ষণেক চিন্ত করিয়৷ কহিলেন, “আমার প্রাণরক্ষয়িত্রীর জন্য কোন কার্য আমার অসাধ্য নহে । ইনি আমার আত্মপরিবারস্থ হইয়া থাকিবেন ।” অধি। ভাল। কিন্তু যখন আপনার আত্মীয়স্বজন জিজ্ঞাসা করিবে যে, এ কাহার স্ত্রী, কি উত্তর দিবেন ? নবকুমার পুনৰ্ব্বার চিন্তা করিয়া কহিলেন, “আপনিই ইহার পরিচয় অামাকে দিন । অামি সেই পরিচয় সকলকে দিব ।” >(t অধি। ভাল ! কিন্তু এই পক্ষাস্তরের পথ যুবকযুবতী অনঙ্গসহায় হইয়া কি প্রকারে ধাইবে ? লোকে দেখিয়া শুনিয়া কি বলিবে ? আত্মীয়স্বজুনের নিকট কি বুঝাইবে ? অার আমিও এই কন্যাকে ম৷ বলিয়াচ্ছি, আমিই বা কি প্রকারে ইহাকে অজ্ঞাতচরিত্র যুৱার সহিত একাকী দুৰ্বদেশে পাঠাই দিষ্ট ? ঘটকরাজ ঘটকালিতে মন্দ লঙ্কেল ! নবকুমার কন্সিলেন, “আপনি সঙ্গে আসুন " আধি ; আমি সন্সে যাইব ? করিবে ? নবকুমার ক্ষুব্ধ হইয়। কহিলেন, “তবে কি কোন উপায় করিতে পারেন ন} ?" আধি | একমাত্র উপায় ইষ্টতে পারে, “..স আপনার ঔদার্য্যগুণের অপেক্ষ করে । নব । সে কি ? আমি কিসে তাস্বাক্ ত ? কি উপায় বলুন ? আধি । শুনুন । ইনি ব্রাহ্মণক । 'গব বৃত্তান্ত আমি সবিশেষ অবগত আছি । ঠান বালাকালে দুরন্ত খ্ৰীষ্টিয়ান তস্কর কর্তৃক অপহৃত হইয়া মানভঙ্গপ্রস্ক্র তাহাদিগের দ্বার কালে এই সমূদ্রর্তীরে ত্যক্ত হয়েম । সে সকল বৃত্তান্ত পশ্চাৎ ভঙ্গর নিকট আপনি সবিশেষ অবগত হইতে পারিলেন ; কাপালিক ইহাকে প্রাপ্ত হইয়া আপন যোগসিদ্ধিমানসে প্রতি পালন করিয়াছিলেন । তাটির ২ অ{ষ্মপ্রয়োজন সিদ্ধ করিতেন । ইনি এ পর্যস্ত অমড় : তীর চরিত্র পরম পবিত্র । আপনি সহাকে বিবাহ কবির গুহে লষ্টয় যান। কেহ কোন কথা বলিতে পরিপে না । আমি ষথাশাস্ত্র বিবাহ দিব । নবকুমার শষ্য হইতে দাড়াইয়। উঠিলেন । অতিদ্রুতপদবিক্ষেপে ইতস্ততঃ স্ৰমণ করিতে লাগিলেন । কোন উত্তর করিলেন না । অধিকারী কিরৎক্ষণ পরে কহিলেন, “আপনি এক্ষণে নিদ্র থান । কলা প্রত্যুষে আপনাকে আমি জাগরিত কন্ধিব । ইচ্ছ। হয়, একাকী যাইবেন । আপনাকে মেদিনীপুরের পথে রাখিয়। আসিব ।” এই বলিয়। অধিকারী বিদায় হইলেন । থমনকালে মনে মনে কহিলেন, “রাঢ়দেশের ঘটকালি কি ভুলিয়া গিয়াছি না কি ?” ভবানীর পূজা কে