পাতা:বঙ্গ-সাহিত্য-পরিচয় (দ্বিতীয় খণ্ড).djvu/১৪৮

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


ు 68 বঙ্গ-সাহিত্য-পরিচয় । শরত-সময়ে যার নাথ নাহি ঘরে । হৃদয়ে দারুণ শেল অন্তর বিদরে ॥ ও গৌরাঙ্গ রন্থ মোরে কর উপদেশ । জীবনে মরণে মোর করিহ উদ্দেশ ॥ কাৰ্ত্তিকে হিমের জন্ম হিমালয়ের বা । কেমনে কৌপীনবস্ত্রে আচ্ছাদিবা গা ॥ . কত ভাগ্য করি তোমার হৈয়াছিলাম দাসী। এই অভাগিনী মুই হেন পাপরাশি ॥ ও গৌরাঙ্গ পন্থ হে অন্তর্যামিনী । তোমার চরণে আমি কি বলিতে জানি ॥ অগ্রাণে নূতন ধান্ত জগতে বিলাসে। সৰ্ব্বমুখ ঘরে প্রভু কি কাজ সন্ন্যাসে ॥ পটনেত ভোটে প্রভু শয়ন কম্বলে। সুখে নিদ্রা যাও তুমি আমি পদতলে ৷ ও গৌরাঙ্গ পহু হে তোমার সৰ্ব্বজীবে দয়া । বিষ্ণুপ্রিয়া মাগে রাঙ্গা চরণের ছায়া৷ . পৌষে প্রবল শীত জলন্ত পাবকে। কান্ত-আলিঙ্গনে দুখ তিলেক না থাকে ॥ নবদ্বীপ ছাড়ি প্রভু গেলা দূরদেশে। বিরহ-অনলে বিষ্ণুপ্রিয় পরবেশে ॥ ও গৌরাঙ্গ পহু হে পরবাস নাহি শোহে। সংকীর্তন অধিক সন্ন্যাস-ধৰ্ম্ম নহে ॥ মাঘে দ্বিগুণ শীত কত নিবারিব। তোমা না দেখিয়া প্রাণ ধরিতে নারিব ॥ এই ত দারুণ শেল রহিল সম্প্রতি । পৃথিবীতে না রহিল তোমার সন্ততি ॥ ও গৌরাঙ্গ পন্থ হে মোরে লেহ নিজ-পাশ। বিরহ-সাগরে ডুবে এ লোচন দাস। রাধার বারমাসী । বৈশাখে বিষম ঝড় এ হিয়া-আকাশে । কে রাখে এ তরি পতি-কাণ্ডারী বিদেশে ॥ জ্যৈষ্ঠে রসাল-রস সবে পান করে। বিরস আমার হিয়া পিয়া নাই ঘরে ॥