পাতা:বঙ্গ-সাহিত্য-পরিচয় (দ্বিতীয় খণ্ড).djvu/৯৬২

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা হয়েছে, কিন্তু বৈধকরণ করা হয়নি।
১৯০৪
বঙ্গ-সাহিত্য-পরিচয়।

নানা রসে ভুলে শেষে বল্‌ছেন ত্রিলোচন।
মর্ত্ত্যে গিয়া কি আনিবে আমার কারণ॥
গুটি পাঁচ সাত বিল্বপত্র এই আমি পাই।
দুর্গা বলে প্রভু ছাড়া কোন্‌ দ্রব্য খাই॥
এইরূপে নানা কথায় পোহাল রজনী।
সকাল বেলা নায়ে চল্লেন জগতজননী॥
উল্কি ফোঁটা সিন্দুর-ছটা মুক্ত-বান্ধা কেশে।
সোণার ঝাঁপা কনক-চাঁপা শিব ভুলেছেন বেশে
গলায় সুচন্দ্র-হার চন্দ্রকান্ত মণি।
চন্দ্রমুখ-মধু-লোভে ঘুরে ভ্রমরিণী॥

চল্লেন বাপের বাড়ী দেব-ভগবতী।
সঙ্গে কাৰ্ত্তিক গণেশ আর লক্ষ্মী সরস্বতী॥
জয়া বিজয়া চল্লেন দিয়া দরশন।
গুপ্তবেশে চল্লো শেষে দেব পঞ্চানন॥
সারি সারি শঙ্খ বাজে উলু ঝাঁকে ঝাঁক।
উমা আস্‌ছে রাজার বাড়ী বাজে কাঢ়া ঢাক?
মর্ত্ত্যলোকে পূজে যাহা বড় ভাগ্যবান্‌।
পূজিয়া অভয় পদ পায় পরিত্রাণ॥
ধূপ দীপ নৈবেদ্য আদি সমেত গঙ্গাজল
দেবগণে সাবধানে গাইছে মঙ্গল॥
উমা কোলে রাণী বোলে চুম্ব দিয়া মুখে।
কহ তারিণী হরের ঘরে ছিলে কেমন সুখে॥
পঞ্চ রাজার ধন যেমন অমূল্য রতন।
অযোধ্যায় রামকে পেলে হরষিত যেমন॥