পাতা:বাংলার পাখি - জগদানন্দ রায়.djvu/১০৯

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


so বাংলার পাখী। ইহাদের স্বভাব নয়। তাই ইহারা অনেকে মিলিয়া একই গাছে অনেক বাসা তৈয়ারি করে। কাক বা শালিক প্ৰভৃতির বাসার সহিত বাবুইয়ের বাসার একটুও, মিল দেখিতে পাওয়া যায় না। এই বাসার চেহারা যেন জল রাখার ছোটুে কুঁজোর মতো। কুঁজোর গলা নীচে রাখিয়া বুলাইলে যেরকম দেখায়, বাবুইয়ের বাসা যেন ফ্লোই রকম। তাল নারিকেল ও খেজুর-গাছের অ্যাশ বা লম্বা খড়ের ছিল দিয়া বাবুইরা বাসগুলিকে এমন সুন্দরভাবে তৈয়ারি করে যে, তাহা দেখিলে অবাক হইতে হয়। বাবুই পাখীরা কেবল ঠোঁট দিয়া যেমন সুন্দর বাসা তৈয়ারি করে, খুব ভালো কারিগর নানা যন্ত্রপাতি দিয়াও বোধ করি সে-রকম বাসা DBD DDD DBBDBD S G B LDBB BD LDL KBD BB DBBSBuBDBBD gEO BBD S DDDBS St D DDS DDLDDS দেখিলেই আশ্চৰ্য্য হইতে হয়। বাবুইয়ের বাসা গাছ ছইতে পড়িয়া গেলে, তাহার সরু খড়কুটা দিয়া লোকে বালিশ তৈয়ারি করে। এই বালিশ তুল-ভরা বালিশের মতোই 3श् छ् । বাসা বঁধার সময় হইলে বাবুইরা মাঠে বা জঙ্গলে গিয়া ঠোঁট দিয়া ঘাসের ফালি এবং তাল ও খেজুর-গাছের ছালের অংশ জোগাড় করিয়া আনে । তাল-গাছের ডালে আট্‌কাইয়া এগুলি দিয়া বাসা ঝুলাইবার দড়ির কাজ করা হয়। দড়ি ঝুলানো হইলে বাবুইরা আসল বাসা বঁধিতে