পাতা:বাংলার পাখি - জগদানন্দ রায়.djvu/৫৬

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


বাংলায় পাখী। ኣgoዓ 'দোয়েলের সঙ্গে খঞ্জনের রঙের মিল দেখিয়া অনেকে খঞ্জনকে দোয়েল মনে করে । তোমরা লক্ষ্য করিলে দেখিবে, খঞ্জনেরা যেমন লেজ নাচাইয়া বেড়ায়, দোয়েলরা তাহা করে না । ইহাদের লেজ 4ܡܹܙܖ সর্বদা খাড়া থাকে, उां छांgा श्नाश মতো ইহাদের সাদা ভ্ৰও নাই। আমরা দোয়েল দোয়েলদের এক মুহূৰ্ত্তও স্থির থাকিতে দেখি নাই। কখনো গাছের ডালে, কখনো মাটিতে, কখনো বা ঝোপ-জঙ্গলের উপরে অবিরাম লাফাইয়া চলে। পোকামাকড়ই ইহাদের প্রধান খাদ্য। বোধ হয়, পোকা ধরিবার জন্যই উহাদের 'éाऊ ब्लायाब्लाकि । তোমরা যদি লক্ষ্য কর, তবে দেখিবে, ডিম পাড়িবার ও বাসা বঁধিবার সময়েই অধিকাংশ গায়ক পাখীর গলা খুলিয়া যায়। কোকিলরা সমস্ত বৎসর চুপ করিয়া থাকিয়া বসন্ত কালে ডিম পাড়িবার সময় আসিলে গলা ছাড়িয়া গান সুরু করে। পুরুষ-কোকিলে গান করে, আর স্ত্রী-কোকিল শীঘ্ৰ ডিম পাড়িবে বলিয়া আনন্দ করে । পাপিয়ারাও সমস্ত বৎসর মুখ বুজিয়া থাকিয়া ফাল্গুন মাসে গল ছাড়িয়া গান গাইতে থাকে । দোয়েলদের মধ্যেও তাহাই দেখিতে পাওয়া যায়। শীতকালে তাহারা প্ৰায়ই গান গায় না,-যেই বসন্তের হাওয়ার সঙ্গে ডিম পাড়া ও বাসা বঁধার তাগিদ আসে অমনি তাহদের গলা খুলিয়া যায়। তাহদের