পাতা:বাগেশ্বরী শিল্প-প্রবন্ধাবলী.djvu/১৬৩

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।
১৫৭
শিল্পশাস্ত্রের ক্রিয়াকাণ্ড

না, নিক্রিয় অবস্থায় হাত পেতেই বসে আছি । হঠাৎ কোন একটা সুযোগ যদি এসে পড়ে এই আশায় । এই হ’ল জাতীয় জীবনের সব দিক দিয়ে আতি ভয়ঙ্কর পক্ষাঘাতের প্রথম লক্ষণ—বাইরেট রইলো ঠিক কিন্তু ভিতরটা নিঃসার শিল্পের দিক দিয়ে । এই মানসিক এবং বাইরে ও হাত পায়ের পক্ষাঘাত নিবারণ কেবল শিল্পক্রিয়ার দ্বারা হ’তে পারে, বহুকাল ধরে’ হ’য়েও এসেছে । রাজ্য গেল রাজা গেল এমন কি ধমৰ্শও অনেকখানি গেল যখন, তখন বাচবার রাস্ত হ’ল মানুষের পক্ষে শিল্প ৷ 'আপৎকালে শিল্পের উপর নির্ভর এটা শাস্ত্রের কথা । কেননা শাস্ত্রকাররা জানতেন ক্রিয়াশীলতা এবং ক্রীড়াশীলতা দুটোই শিল্পের এবং জীবনেরও লক্ষণ তাই ক্রিয়া-ভেদে তারা কলা-ভেদ নির্ণয় করে গেলেন । “পৃথক পৃথক্ ক্রিয়াভিহি কলাভেদস্তু জায়তে" – ( শুক্রনীতিসার )