পাতা:বিন্দুর ছেলে - শরৎচন্দ্র চট্টোপাধ্যায়.pdf/৬২

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে চলুন অনুসন্ধানে চলুন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।

فU বাড়ীর সুমুখ দিয়া ইস্কুলে যাইবার পথ। প্রথম কয়েক দিন অমূল্য ছাতি আড়াল দিয়া এই পথেই গিয়াছিল, আজি দুদিন ধরিয়া সেই লাল রঙের ছাতিটি আর পথের এক ধার বহিয়া গেল না। চাহিয়া চাহিয়া বিন্দুর চোখ ফাটিয়া জল পড়িতে লাগিল, তবুও সে চিলের ছাদের আড়ালে বসিয়া তেমনি একদৃষ্টি পথের পানে চাহিয়া বসিয়া রহিল। সকাল নটাদশটার সময় কত রকমের ছাতি মাথায় দিয়া কত ছেলে হাটিয়া গেল ; ইস্কুলের ছুটির পর কত ছেলে সেই পথে আবার ফিরিয়া আসিল; কিন্তু সেই চলন, সেই ছাতি বিন্দুর চোখে পড়িল না। সে সন্ধ্যার সময় চোখ মুছিতে মুছিতে নামিয়া আসিয়া নরেনকে আড়ালে ডাকিয়া জিজ্ঞাসা করিল, ই নরেন, এই ত ইস্কুলে যাবার সোজা পথ, তবে সে এদিক नेि अद्धि धाश्र न । ? নরেন চুপ করিয়া রহিল। বিন্দু বলিল, বেশ ত রে, তোরা দুটি ভাই গল্প করতে কবুতে যাবি আসবি-সেই ত ভাল । নরেন তাহার নিজের ধরণে অমূল্যকে ভালবাসিয়াছিল, চুপি চুপি বলিল, সে লজ্জায় আর যায় না মামি, ঐ হোথা দিয়ে ঘুরে যায়। বিন্দু কষ্টে হাসিয়া বলিল, তার আবার লজ্জা কিসের রে ? না না, তুই বলিস তাকে, সে যেন এই পথেই যায়। নরেন মাথা নাড়িয়া বলিল, কক্ষণ যাবে না মামি ! কোন যাবে না জান ? বিন্দু উৎসুক হইয়া বলিল, কেন ? নরেন বলিল, তুমি রাগ করবে না ? न्