পাতা:বিভূতি রচনাবলী (সপ্তম খণ্ড).djvu/৫৮

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


ভাবেন–নিজের নাই, তাতে কী ! আমার ছেলেমেয়ে এই ওয়েলেসলি বয়সে আমার ভাবনা কী ? —স্তার, আজ পড়ব না। —বেশ, গল্প শোন—এই বরিশালের গায়ে— —ম স্তার, একটা ভূতের গন্ন করুন। —ভূত-টুত সব মিথ্যে। ও-সব নিয়ে মাথা ঘামাল নে ছেলেবেলা থেকে। –কিন্তু স্তার, কুণ্ডাতে একটা বাড়ী আছে— ‘ —কোথায় ? —কুণ্ডা-দেওঘরের কাছে স্যার, । সেখানে একটা বাড়ীতে ভূতের উপাব ৰ'লে কেউ ভাড়া নেয় না। সত্যি, আমরা জানি স্যার । নারাণবাৰু আর এক সমস্যায় পড়িলেন। মিথ্যা ভয় এক বালকের মন হইতে কী করিয়া অভিভাবকদের দোষে। তিনি শিক্ষক, তাহার কৰ্ভৰ্য, বালকদের মন হইতে লে লমন্ত কুসংস্কার উচ্ছেদ করা। নারাণবাৰু নিজের নোট-বইয়ে লিখিয়া লইলেন। গাহেবের সঙ্গে পরামর্শ করা আবগুক, ७ दिवाव्र कौ कब्र थांग्न ! চুনির মা আসিয়া দরজার কাছে দাড়াইয়া বলিলেন, বলি ও দিদি, মাস্টারকে বল না— ছেলে যে মোটে বই হাতে করতে চায় না। (দেওঘরে গিয়ে বেড়িয়ে আর খেলে বেড়াবে-তায় কী করবেন উনি ? চুনির মা বলিলেম, ও দিদি, বল যে, পরীক্ষা সামনে আসছে, চুনিকে ছ বেলা পড়াতে হবে। এক মাস দেড় মাস তো বলিয়ে মাইনে দিয়েছি। এখন মাস্টার যেন দু-বেলা জালে। নারাণবাৰু মেয়েমানুষের কাছে কী প্রতিবাদ করিবেন ? স্বাধ্য পড়াইয়া এখানে মাহিনী ছুটির আগের মাসের মাহিনী এখনও বাকী। মুখে বলিলেন, বউমা, সকালে আজকাল সময় বেশী পাওয়া ধায় না। আমারও নিজের