পাতা:বিশ্বকোষ ঊনবিংশ খণ্ড.djvu/৬০৪

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


বর্ণলিপি [ ون هوان ] বর্ণলিপি যুদ্ধে লিপ্ত হইয়াই তাহার ক্রশম: পশ্চিমাভিমুখে উপনীত হয় । এবং তত্ত্ব স্থানে আপনাদের জন্মভূমির প্রচলিত চিত্রবর্ণমালার প্রচার করে। বাস্তবিক পক্ষে, এই মিসরীয় সঙ্কেতলিপি প্রথা ( Hieratic writing ) নীল নদের উপত্যকাদেশে সম্যক পুষ্ট লাভ করে নাই; অথবা যে প্রাচীন চিত্রলিপি (Pictographic System ) হইতে অস্তুরীয় ও তৎসমীপবৰ্ত্তী স্থানের কীললিপি ক্রমশঃ পুষ্ট হইয়াছে, তাহ হইতে এই মিসরীয় সঙ্কেতলিপি উচ্চ বা নিম্ন ধারায় অমুস্থত বলিয়া স্বীকার করা যায় না । চীনবাসীয় স্তায় মিসরবাসিগণও একই উদ্দেশ্রে স্বতঃপ্রবৃত্ত হইয়া (চিত্রলিপি হইতে ) বর্ণমালা নিৰ্দ্ধারণে অগ্রসর হন । তাহারাও বস্তবিশেষের আকৃতি এবং বস্তুগত ভাব সাদৃশ্বের উপর নির্ভর করিয়া সেই চিত্রগুলির ছাট বাদ দিয়া এক একটা । "বর্ণশব্দ" জপ অক্ষর নির্ণয় করেন ; পরে তাহ হইতেই এক । প্রকার যুরোপের প্রচলিত ভাষাগুলি যেরূপ আক্ষবিক, মিসরীয় ভাষা সে ভাবে কথন ও আক্ষরিক হয় নাই । কারণ প্রাচীন মিসবাসিগণ স্বভাবতঃই আত্মগৌরববক্ষণশীল এবং চিত্রবিদ্যা । বিশারদ ছিলেন। র্তাহার স্বকীয় এই শোভাবৰ্দ্ধক ও সৌষ্ঠবশালী চিত্রলিপিরই পক্ষপাতী হইয়া তৎপরিবর্তে বর্ণমালা চিহ্নব্যবহারবাসনাকে বিলক্ষণ ক্ষতির বিষয়ই জ্ঞান করিতেন । সেই কারণেই তাহারা চীনবাসীর দ্যায় বর্ণমালা সম্বন্ধে বিশেষ কোন উন্নতি সাধন করিতে পারেন নাই । তাহারা শব্দপরম্পরার সংযোগ লক্ষ্য করিয়৷ সেই শব্দে যে বস্তু, পশু, পক্ষী বা মনুষ্যের উদ্যোতক শব্দকে বুঝায়, সেই বস্তুর দ্বারাই ভাষালিপি অঙ্কন করিয়া যাইতেন। যেমন জল বুঝাইতে চিহ্নের দ্বারা তরঙ্গায়িত জলপৃষ্ঠ আঁকিত, তৃষ্ণ বুঝাইতে জলের চিহ অ কিয় একটী গোবৎস ছুটিয়া জলের অভিমুখে যাইতেছে, দেখাইলেই চলিত। যুদ্ধ বুঝাইতে একহন্তে ঢাল ও অপরে বড়শা বা তববাল্লিযুক্ত বীরমূৰ্ত্তি লিখিত । এই সকল চিত্রলিপির মধ্যে পরম্পর সম্বন্ধনির্দেশার্থ তাহারা কতকগুলি চিহ্নও ব্যবহার করেন। ডাক্তার আইজাক টেলার বলেন, সেই | AFT STRRRIIT ( Alphabetic symbol ) চিহ্ন হইতেই বৰ্ত্তমান ইংরাজী বর্ণমালার বীজকীট প্রস্তুপ্ত ছিল, কালে তাছা প্রবুদ্ধ ও প্রকাশিত হইয়া পড়িয়ছে। এই হাইরোগ্লিফিক চিত্রলিপি হইতে কিরূপে মিসররাজ্যে হিরাটিক লিপির প্রচলন হইয়াছিল, সাধারণের অবগতির জন্ত নিয়ে তাহার একটা দৃষ্টান্ত দেওয়া গেল –ইংরাজী m বর্ণের উৎপত্তি দেখাইতে গিয়া পাশ্চাত্য ভাষাবিদগণ বলেন যে, প্রাচীন মিসরী-ভাষায় পেচকের নাম মূলক = উলুক। প্রথম চিত্রলিপি অনুসারে পেচক পক্ষী বা সেই বস্তুর ধারণা (as a igram) বাইতে পেচকপক্ষত্রিই অতিয়াল পরে তাহ পেচক শব্দার্থের ( Phonograms ) বোধকরূপে ব্যবহৃত হয় । শেষোক্ত অর্থে তাহার শব্দরূপ পরিণতি ঘটে এবং শব্দানুসারে তাহাতে উ যুক্ত হইয়া ma.পন্ন হয়। প্রাচীন হায়রোগ্লিফিকের পেচকচিত্র প্রস্তরাঙ্কণের পরিবর্তে যখন পাপি, রাস ( Papyrus ) পত্রে লিখিতে আরম্ভ হয়, তখন দ্রুতলিপির জন্ত সুস্পষ্ট পেচকাকৃত না লিখিয়া মোটামুটি উহার চারিপাশ্বের রেখাই লিখিত হইত। পরে লেখার তারতম্যানুসারে ক্রমে আদি পেচকচিত্রের লোপ ঘটে এবং পদ ও পৃষ্ঠবিহীন পেচক রেখার স্যার ইংরাজী হস্তলিখিত জেড় বর্ণ বা সংস্কৃত “দ” বর্ণের অনুরূপ আকৃতিতে লিখিত হয়। ডেমোটক লিপিতেও উহ! ক্রমশঃ বিরুত হইয়া আইসে । আবার সেমিটক বর্ণমালার প্রতি লক্ষ্য কৰিলে দেখা যায় যে, উক্ত অক্ষরগুলি মিসরীয় সঙ্কেতলিপি (Hieratic) হইতে যেন গৃষ্টীত। মোআবাইটু প্রস্তরফলকে সেমিটিক অক্ষরে যে স্ন প্রাচীন শিলাফলক উৎকীর্ণ আছে তাহাতে in অক্ষব স্থলে " অক্ষর অঙ্কিত দেখা যায়। উহার সহিত মিসরীয় সঙ্কেতলিপির m বর্ণের অনেক সাদৃশু আছে। সুতরাং মোআবাইট্‌ অক্ষর হইতে প্রাচীন গ্রীকের " অক্ষরের উৎপত্ত্বি কল্পনা করা যায়। উহা হইতে পরবর্তী সময়ে পরিবর্তন নিয়মে গ্রীকভাষার M বা " অক্ষর উদ্ভূত। ইহার পরে গ্রীকলিপি ইতালীতে উপনিবেশ স্থাপন করে। সেই গ্রীকদিগের সংস্পশে sitfiti cățarişti a fiițată Roman capipal AA 3ă করিয়াছিল । সেই রোমক অক্ষর হইতে মুছাদবিশিষ্ট ইংরাজী m অক্ষরের উৎপত্তি । মিসরীয় সঙ্কেতলিপিতে ব্যঞ্জন ও অৰ্দ্ধব্যঞ্জন বর্ণের প্রাধান্ত থাকায় মিসরীয় ধাতুগুলি সাধারণতঃ তিনট অক্ষরে গঠিত হইয়াছে, এ সম্বন্ধে চীনভাষার সহিত মিসরীভাষার অতি নিকট সম্বন্ধ। টলেমিবংশের অধিকার পর্য্যন্ত সুপ্রাচীন মিসররাজ্যে সঙ্কেতলিপিরই প্রচলন ছিল। পরে অপেক্ষাকৃত সুবিধাজনক ও সহজলেখ গ্ৰীক বর্ণমালার প্রচলন হওয়ায় উহ একবারে লুপ্ত হইয়া গিয়াছে। ১৮৯২ খৃষ্টাব্দে আকেরল্লাদ নামক একজন স্বইড, মিসরীয় বর্ণমালার উদ্ধারের চেষ্টা পান, ঐসময়ে গ্রোটফেও পারস্ত রাজ্যান্তর্গত কতকগুলি কীলফলকের পাঠোদ্ধার করিয়া তাহার প্রথম উদ্যম সাধাবণের গোচরার্থ প্রকাশ করেন । তৎপরে কাম্পোলিয়ে ও টমাস ইয়াং বিশেষ অধ্যবসায়ের সহিত মিসরভাষা আলোচনা করিতে থাকেন। তাহারা অনেক গবেষণার পর, রোজেটার প্রস্তরলিপির সাহায্যে প্রাচীনভাষা উদ্ধারে পথ বিস্তৃত করিয়া দেন। গ্রোটফেও ও সর হেনী রলিন্‌সন