পাতা:বিশ্বকোষ একাদশ খণ্ড.djvu/৬৪৫

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


পুরাণ (ভবিষোত্তর) नाङ्गन-भएउ-अप्टेमैौकल्ल इहेष्ठ दक्ष१श्रृंसी श्राझस्त्र । २च्न ভবিষ্যের ১৫১ অধ্যায় হইতে বিষ্ণুপৰ্ব্ব ও মষ্টমীকল্পের আরম্ভ দেখা যাইতেছে। কিন্তু এই ২য় ভবিষ্যে তৎপূৰ্ব্বে যে সকল কথা আছে, কোন কোন স্থানে ১ম ভবিষ্যের সহিত মিল থাকিলেও অধিকাংশ স্থলেই মিল নাই । সম্ভবতঃ এই অংশের অধিকাংশই প্রক্ষিপ্ত বা পরবর্তীকালে সংযোজিত । কোথায় ১ম ভবিধ্যে ব্রাহ্মপর্বে ১৩১ অধ্যায়, কিন্তু এই ২য় ভবিধ্যে বিষ্ণুপর্কের পূৰ্ব্বাংশে ১৫ অধ্যায় পাওয়া যাইতেছে। অধিকাংশ পুরাণের মতে ভবিষ্যের শ্লোকসংখ্যা চোঁদ হাজার । কিন্তু ২য় ভবিষ্যে ১ম অধ্যায়ে লিখিত হইয়াছে যে, ভবিষ্যপুরাণের শ্লোকসংখ্যা • • • • • । শিবপুরাণের বায়ুসংহিতায় পরিবন্ধিত ও নবকলেবরপ্রাপ্ত শিবপুরাণ যেমন লক্ষ শ্লেীকাত্মক বলিয়া আড়ম্বর রহিয়াছে, ২য় ভবিষ্যের উক্তি সেইরূপ অত্যুক্তি বলিয়া মনে হয় । এই অংশে বহু বিষয় সংযোজিত হইয়াছে, তাহাতে সন্দেহ নাই। এই কারণে রুরু বধ ( ২৫• অঃ ) প্রভৃতি কোন কোন বিষয় একাধিকবার বর্ণিত দেখা যায়। পূৰ্ব্বে বলিয়াছি, নারদপুরাণের মতে—অষ্টমীকল্প হইতে বিষ্ণুপৰ্ব্ব ভারম্ভ। কিন্তু ২য় ভবিষ্যে অষ্টমীকল্প হইতেই বিষ্ণুপৰ্ব্ব নির্দিষ্ট হইলেও এই পৰ্ব্বে বিশেষরূপে রুদ্রমাহাত্ম্য বর্ণিত থাকায় ইহার সহিত শৈবপৰ্ব্বও সন্মিলিত হইয়াছে বোধ হয়। শেষাংশে সেীরপর্কের বিষয়েরও অভাব নাই । কিন্তু প্রতিসর্গপৰ্ব্ব পাওয়৷ গেল না । পুরাণপ্রবন্ধের উপক্রমে দেখাইয়াছি, আপস্তম্ব-ধৰ্ম্মস্থত্রে ভবিষ্যৎপুরাণের প্রসঙ্গ আছে । * আলোচ্য ২য় ভবিষ্যের ২য় অধ্যায়ে উক্ত বিষয়ের সন্ধান পাইয়াছি। এতদ্বারা মনে হয়, এই অংশে অনেক জিনিস প্রক্ষিপ্ত হইলেও অাদি পুরাণের অনেক কথা রহিয়াছে। উপরোক্ত দুইখানি ভবিষ্য অপেক্ষ ৩য় ভবিষেই কিছু বেণী ভেজাল মিশিয়াছে, ইহাতে ভবিষ্যের কোন কোন লক্ষণ থাকিলেও ইহার বারআন। পরবর্তী কালের রচনা বলিয়া বোধ হয় । যে সময়ে সমস্ত ভাগ্‌তে তান্ত্রিক প্রভাব বিস্তারলাভ করিয়াছিল, এই ৩য় গুবিধা সম্ভবতঃ সেই সময়ের রচনা। ৩য় ভবিষোর ৭ম অধ্যায়ে আগম, তন্ত্র, জামল ও ডামরাদির কথা বিবৃত হইয়াছে। এই অধ্যায়ে একটী বিশেষ উল্লেখযোগ্য কথা আছে—‘পুরাণবাচকের ব্যাস উপাধি। সাধারণের বিশ্বাস, বর্তমান পুণি গুলি ব্যাসের রচনা, এখন আমাদের বোধ হইতেছে, পুরাণকথকেয়া প্রাচীন পুরাণখ্যানাদি [ ७8> ] ۹ ام از این » و .Xl >や〉 পুরাণ (ব্রহ্মবৈবর্ত) বর্তমান আকারে সঙ্কলিত করায় পুরাণ ব্যাসের রচনা বলিয়া প্রবাদ চলিয়া গিয়াছে । 婚 भ९ॐ मध्ठ ভবিষ্যপুরাণে অনেক ভবিষ্য কথা আছে । ১ম ও ৩য় ভবিষ্য হইতে তাহার কতক কতক পরিচয় পাওয়া যায় । ৩য় ভৱিষ্যে ৯ম অধ্যায়ে স্নেচ্ছোক্ত শাস্ত্রাদি পরিত্যাগের কথা, ১০ম অধ্যায়ে কলিতে নিগম জ্যোতিব ও বেদের সংগ্রছে দোষকথন ও মনসা, ষষ্ঠী, দশহর প্রভৃতি পূজাকথা আছে । जांब्र ७कौ दख्ञांनिरुनिरशग्न लाउया दिषञ्च श्रांtश्, उांश ‘खेड़िरूविनाग्नि दूखांख्' ( Botany ), अ”ब्र cकtन *ीtC* উদ্ভিজ্জবিদ্যার এরূপ প্রসঙ্গ নাই । নারদপুরাণের আশ্রয় লইলে বলিতে হয় ১ম ভবিষ্যে অর্থাৎ ব্ৰাহ্মপর্বে তত ভেজাল চলে নাই, অনেকটা খাটী অাছে। এই ব্রাহ্মপর্কে একটী অতি গুরুতর ইতিহাসিক কথার আলোচনা পাওয়া গিয়াছে। তাছা এই— শাম্ব স্বৰ্য্যমূৰ্ত্তি প্রতিষ্ঠা করিলেন, কিন্তু তাছার উপযুক্ত পুজক পাইলেন না। তখন নারদের উপদেশে তিনি শাকদ্বীপ হইতে ১৮ প্রকার কুলীন ব্রাহ্মণ জানাইলেন, ইহার ‘মগ’ নামে খ্যাত। শ্রীকৃষ্ণের আদেশে এই সকল মগ ব্রাহ্মণ যাদব-কন্তু বিবাহ করিলেন, তাহাতেই ভোজকগণের উৎপত্তি এবং ইহারাই একমাত্র স্বৰ্য্যপূজার অধিকারী বলিয়া গণ্য হইলেন । প্রাচীনকালে আরব ও পারস্তে সেীয় বা অগ্নিপূজকগণ ‘মঘ’ নামেই খ্যাত ছিলেন। সম্ভবতঃ তাহদেরই কোন শাখা ভারতীয়ের সহিত মিলিত হইয়। শাকদ্বীপী ব্রাহ্মণ নামে পরিচিত হইলেন । [ মগ ও শাকদ্বীপী ব্রাহ্মণ দেখ । ] ব্রহ্মবৈবৰ্ত্তপুরাণ। প্রচলিত ব্ৰহ্মবৈবর্তপুরাণে এইরূপ বিষয়সূচী আছে,-- ব্ৰহ্মখণ্ডে-১ মঙ্গলাচার, গেীতিশৌনকসংবাদ, ২ পরব্রহ্মনিরূপণ, ৩ স্মৃষ্টিনিরূপণ, কৃষ্ণদেহে নারায়ণাদির আবির্ভাব ও শ্ৰীকৃষ্ণের স্তব, ৪ সাবিত্র্যাদির আবির্ভাব, ব্ৰহ্মাণ্ডের উৎপত্তি, মহাবিয়াড় জন্মকথন, ৫ কালসংখ্যান, রাসমণ্ডলে রাধার উৎপত্তি, রাধাকৃষ্ণশরীরে গোপী, গোপ ও গবাদির আবির্ভাব, শিবাদির বাহনদান, গুহ কাদি উৎপত্তি-কথন, ৬ খ্রীকৃষ্ণের শঙ্করকে বরদান, শিবনামনিরুক্তিকথন, স্বষ্টি জন্ত ব্ৰাহ্মণ প্রতি নিয়োগ, ৭ পুথিবী প্রভৃতি ব্রহ্মস্থষ্টিকখন, ৮ ব্রহ্মসর্গ, বেদাদি শাস্ত্রের উৎপত্তি, স্বায়ভুব ময় ও ব্রহ্মমানসপুত্র পুলস্ত্যাদির উৎপত্তি, ব্ৰহ্মনীয়দ শাপোপলম্ভন, ৯ কগুপাদির স্বষ্টি, ধরাগর্ভে মঙ্গলের উৎপত্তি, কগুপ-বংশবর্ণন, চক্সের প্রতি দক্ষেয় অভিশাপ, শিবশরণাপন্ন চক্রের বিষ্ণুবরলান্ত এবং দক্ষের সছিত গমন, ১ • জতিনির্ণয়প্রস্তাবে ঘৃতাচী ও বিশ্বকৰ্ম্মের পরম্পয় শাপ