পাতা:বিশ্বকোষ চতুর্দশ খণ্ড.djvu/৩২৫

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


মহম্মদ শাহ তোগলক [ ৩২৫ ] মহম্মদ শাহ তোগলক - বর্গের পরামর্শমত্তে মিসর-রাজ্যে লোক প্রেরিত হইল। তিনি স্বনামাঙ্কিত মুদ্রায় খলিফার নামাঙ্কন করিয়া তোষামোদের পরাকাষ্ঠ দেখাইয়াছিলেন। ১৩৪৩ খৃষ্টাব্দে মিসর হইতে হাজী সৈয়দ সর্শারি খলিফার সনন্দ ও স্বলতানের জন্য সম্মানা পরিচ্ছদ লইয়া আসিলেন। পক্ষাস্তরে তিনিও খলিফার সম্মান বৃদ্ধি করিয়া হাজী রাজব বর্কাইকে মিসুর রাজ্যে পাঠাইয়া দিলেন। তাহার এই বগুত। স্বীকারের জন্য তিনি খুলিফার নিকট হইতে খলিফার সহকারী’ উপাধি লাভ করিয়াছিলেন । স্বৰ্গদ্বারা হইতে দিল্লীতে আসিয়া পুনরায় তিনি কৃষিকার্য্যের উন্নতিবিধানে বদ্ধপরিকর হন । অতঃপর তিনি রাজ্যমধ্যস্থ মোগলদিগকে বশীভূত করিতে চেষ্টা পাইলেন। এই উভয় কার্য্যে তাহাকে প্রভূত অর্থব্যয় করিতে হইয়াছিল। ইহাতে রাজকোষ শূন্ত হইয়া পড়ায় তিনি আয়বৃদ্ধির জন্ত বিবিধ উপায় উদ্ভাবন করিতে লাগিলেন । সঙ্গে সঙ্গে সেনাৰিভাগের অনেক সংস্কার করিলেন। ছত্ত্বত্তের দণ্ডবিধান জন্তু তিনি বিভিন্ন অাইন বিধিবদ্ধ করিতে লাগিলেন, পুনরায় তাহার অত্যাচারে প্রপীড়িত প্রজাবৰ্গ বিদ্রোহী হইয়া উঠিল । ইহাতে র্তাহাকে বিশেষরূপে ক্ষতিগ্রস্ত হইতে হইয়াছিল । দেবগিরির শাসনকৰ্ত্ত কংলুঘ খ। রাজস্বের অপব্যয় করিতেছেন শুনিয়া সুলতান তাহাকে পদচ্যুত করিয়া আজিজ হিমার নামক জনৈক নীচকুলোদ্ভবকে সমগ্র মালরের শাসনকৰ্ত্ত করিয়া পাঠাইলেন । তিনি কৎলুঘ খার পরিবর্তে র্তাহার অন্যতম ভ্রাতা মৌলান নিজাম উদ্দীনকে ভরোচ হইতে আনাইয়া দেবগিরির রায়ুসংগ্রাহকের পদে উন্নীত করিলেন । অপরিণামদর্শী নিজামের ও নীচকুলোদ্ভব আজিজ, হিমারের শাসনে প্রজা-মওলা উৎপীড়িত হইয়। রাজ্য মধ্যে বিশেষ বিশৃঙ্খলতা ঘটাইয়াছিল । ধারা-নগরে আজিজ বিদেশীয় আমীরগণকে বিনা অপরাধে হত্যা করিয়াও জুলতানের নিকট পুরস্কৃত হইয়াছিলেন। সমসাময়িক ঐতিহাসিক জীয়া-উদ্দীন বরণী সুলতানের এই ব্যবহারে বিশেষ কুষ্ঠিত হইয়াছিলেন। আজিজের অত্যাচারে উৎপীড়িত হইয়া অবশিষ্ট আtমীরগণ গুজরাত অভিমুখে পলায়ন করেন। এই সময়ে গুজরাতের नायब खेछौद्र मकूद्य ऋणडोनटक खेटफ़ोकन निवाब्र यत्र কতকগুলি অশ্ব ও মণিমাণিক্য লইয়া বড়োদাপথে অগ্রসর হইতেছিলেন। সুবিধা বুঝিয়া জামীরগণ অত্যাচারের প্রতিcचाथ जहेप्णन । भकूबूण 'ब्रजिष्ठ 4थर छैहाब्र शशाणक्ष লুটত হইল। আমীরগণ এইরূপে কতকগুলি অশ্ব ও ধনরত্ব XIV *.

- - লাভ করিম স্পৰ্দ্ধিত হইলেন। অর্থবলে আপনাদের শক্তিপুঞ্জ মুদৃঢ় করি। তাছার কাৰে ( খৰাত ) অভিমুখে অগ্রসর হইয়া বিদ্রোহিত্যচরণ করিতে লাগিলেন। ১৩৪৫ খৃষ্টাৰো এই সংবাদ সুলত্তানের নিকট পৌঁছিলে তিনি লম্বলে গুজরাত অভিমুখে অগ্রসর হইলেন । দিল্লী রাজধানীতে সুলতান ফিরোজ, মালিক কবীর ও আহ্মদ আল্পাজ কে প্রতিনিধিস্বরূপ রাখিয়া সুলতানপুর অভিমুখে অগ্রসর হইলেন। এখানে আলিয়। তিনি সংবাদ পাইলেন যে, তাহার বিনামুমতিতে আজিজ হিমার বিদ্রোহদমনে অগ্রসর হইয়া অামারদিগের হন্তে নিহত হুইম্বাছেল । সুলতান এই বিদ্রোহের প্রতিবিধান জন্য গুজরাত অভিমুখে ধাবিত হইলেন । নহরবালা (অনছিল বাড়) উপস্থিত হইয়াই তিনি শেখ মুইজ্জ উদ্দীনকে ক একজন সেনানীর সহিত নগরাভিমুখে পাঠাহলেন এবং স্বয়ং বড়োদ। আক্রমণ করিবার অভিপ্রায়ে আবুপৰ্ব্বতের দিকে অগ্রসর হইলেন । এথানে আসিয়া তিনি আমীরদিগের বিরুদ্ধে একদল সৈম্ভ প্রেরণ করেন। পাঠানসেনার প্রতিকুলে দণ্ডায়মান হইতে সমর্থ ন চুইয়। আমীর-সেনাদল ছত্রভঙ্গ হইয়া পড়িল । আনস্তর তাহার রণক্ষেত্র পরিত্যাগপুৰ্ব্বক দেবগিরি অভিমুখে পলায়ন কল্পিল । সুলতান পলায়মান শক্রসেনাদলের গতিরোধকরণার্থ নাএব উল্পীর-ই-মমালিক মালিক মকুবুল কে তাহাদের অস্থসরণার্থ প্রেরণ করিলেন । নৰ্ম্মঘাতীয় পৰ্য্যন্ত আলিয়। তাহার সহিত পলাতক সেনাদলের একটা ঘোরতর যুদ্ধ হয় । এই যুদ্ধে বিপক্ষদল বিধ্বস্ত এবং তাহাদের সর্বস্ব মালিক মকুবুলের হস্তগত হইয়াছিল । রণক্ষেত্রে যে সকল আমার ধৃত হইয়াছিলেন, সুলতানের আদেশে তাছাদের সকলেরই প্রাণদও হইল। কেবলমাত্র ক একজন দেবগিরি ও গুজরাতের হিন্দু সামগুদিগের আশ্রয়ে লুকাইয়া আত্মরক্ষা করিয়াছিলেন। কএকদিনমাত্র তথায় অবস্থান কল্পিয় মুলতান ভরোচ, ধম্বাত ও গুজরাতের যাবতীয় বাকী রাজস্ব সংগ্ৰহ করিয়া লইলেন । যে কেহ কর দিবার কালে সুলতানের বিরুদ্ধে বাক্য প্রয়োগ করিয়াছিল, তাহার। অচিরে দণ্ডিত হইল । যাহারা মালিক মকুবুলের সহিত বিবাদ করিয়াছিল, তাছারাও স্বলতানের কোপে পড়িয়া শমনসঙ্গনে গ্রেমিত হইল । অতঃপুঞ্জ স্থলতান , দেৰগিরিস্থ পলাতক অ! মারাদগকে দও দিতে অগ্রসর হইয়া পিলার থামেশ্বরী ও মুদ্ৰ দ উল, মুলককে প্রেরণ করিলেন। এদিকে তিনি স্বয়ং পত্র দ্বারা ठथाकांब नागनकé ८मोशांना निजाम सेनौब्एक णिथिब्र।