পাতা:বিশ্বকোষ ত্রয়োদশ খণ্ড.djvu/২৮০

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


उग्रश्ड [ २१b” ] ভরাড়ি ভরম (ত্রি ) ভূ-বাহুলকাং অমচ । ভরণকৰ্ত্ত। তন্ত অপত্যং শুভ্রাদিত্বাং ঠক্ ভারমেয়—ভরণকারীর অপত্য। ভরস্ (পুং ) ভূ-অম্লন। মরণ। (ঋক্ ॥১৫৪ ) ভরহপাল, কাঠার জনৈক অধিপতি। ইনি টাকবংশীয় ছিলেন। ভরছত, মধ্যপ্রদেশের নাগোদরাজ্যের (উচহয়) অন্তর্গত একটা প্রাচীন জনস্থান১। উচহর হইতে ৩ ক্রোশ উত্তরপূৰ্ব্বে এবং প্রয়াগ হইতে ৬• ক্রোশ দক্ষিণপুৰ্ব্বে অবস্থিত। স্বত্ন৷ রেলষ্টেসন হইতে ১॥• ক্রোশ দক্ষিণপূৰ্ব্বাভিমুখে গমন কল্পিলে এই স্থানে উপনীত হওয়া যায়। বহুকাল হইতে এই প্রাচীন নগর নিবিড় জঙ্গলে পূর্ণ হইয়াছিল। ডা: কনিংহাম প্রভৃতি প্রত্নতত্ত্ববিদের অমুসন্ধিৎসাগুণে ইহার অভ্যন্তরস্থ লুক্কায়িত ঐতিহাসিক-রত্ন “বিস্কৃত ছষ্টয়াছে। খৃঃ পুঃ ৪ৰ্থ শতাকে এইস্থান বৌদ্ধকীপ্তির কেন্দ্রস্থল ছিল। এখানকার বৌদ্ধকাৰ্ত্তি জগতের একটা প্রাচীন রয়। এই ধ্বংসাবশিষ্ট কীৰ্ত্তিগুপের ব্যাস প্রায় ৬৮ ফিট এবং উহার চতুৰ্দ্দিকস্থ প্রাচীরের ব্যাস ৮৮ ফিট। প্রস্তরগঠিত এই বহিঃপ্রাচীর ভগ্ন ও উহার কতকাংশ নিকটস্থ গ্রামবাসী কর্তৃক গৃহনিৰ্ম্মাণার্থ অপহৃত হইলেও অদ্যাপি উহার অৰ্দ্ধাংশ রক্ষিত আছে। ইহার অভ্যস্তরস্থিত স্তম্ভশ্রেণী, দ্বারদেশ ও চতুৰ্দ্দিকৃস্থ প্রাচীরের শিল্পনৈপুণ্য ও গঠনাদি দেখিলে উহাকে কিছুতেই সাচি স্তপের পরবর্তী বলিয়া মনে হয় না। ডাক্তার কনিং হাম উহার দ্বারদেশস্থ শিলালিপির অক্ষরমাল দেখিয়া অনুমান করেন যে, সিন্ধুপারস্থিত বৈদেশিক কারিকরগণ এ ঘরাজ কর্তৃক মধ্যভারতে আনীত হইয়াছিল। তাহাদের সেই অক্ষর কীৰ্ত্তি আজিও অক্ষুণ্ণ থাকিয় পুৰ্ব্বগৌরব ঘোষণা করিতেছে। অনেকেই অনুমান করেন যে, এই স্ববৃহৎ বৌদ্ধ কীপ্তির বহিঃ প্রাচীর সম্রাট, অশোকের রাজ্যকালে নিৰ্ম্মিত হইয়। থাকিবে । এই প্রাচীন মন্দিরগাত্রে যে সমস্ত খোদিত চিত্র আছে, তাছ বৌদ্ধদিগের জাতক গ্রন্থ হইতে গৃহীত হইয়াছে ২ । এতদ্ভিন্ন কএকটী চিত্রের নিম্নে তদ্বিবরণজ্ঞাপক লিপিও খোদিত আছে ৩। বৌদ্ধ চিত্র ভিন্ন, এখানে হিন্দু চিত্রেরও অভাব নাই। তথায় অযোধ্যাপতি রামচন্দ্র, জনকরাজ, শীতলাদেবী, যক্ষ ও বক্ষিণী প্রভৃতি মূৰ্ত্তি এবং অন্যান্ত নানাচিত্র পরিশোভিত আছে। এই চিত্রগুলির বেশভূষা হইতে তৎকালের পরিচ্ছদপারিপাট্য উপলব্ধি হইতে পারে" এই ধ্বংসাবশেষের কতকাংশ লইয়। নিকটে আরও একটা অপেক্ষাকৃত আধুনিক মন্দির নিৰ্ম্মিত হইয়াছে। উছাতেও অনেকগুলি হিন্দুদেবদেবীর মূৰ্ত্তি খোদিত দেথা যায়। ভয়াড়ি, দক্ষিণাত্যবাসী জাতিবিশেষ। ইহার কুনবি জাতির ংশধর বলিয়া পরিচিত। পথে পথে ডমরু বাজাইয়া ইহার অম্বাবাই বা সপ্তশৃঙ্গীদেবীর মহিমা গান করিয়া বেড়ায় । ভিক্ষাই ইহাদের প্রধান উপঞ্জীবিকা। ইহাদের মধ্যে দুইটা স্বতন্ত্র থাক আছে, গদ অর্থাৎ শুদ্ধ ভরাড়ি এবং কছু ব: সঙ্কর ভরাড়ি। উক্ত দুই শ্রেণীর মধ্যে বিবাহাদি সম্বন্ধ চলিত নাই । ইহার সাধারণতঃ কৃষ্ণবর্ণ ও বলিষ্ঠ । গে৷ ও শূকরমাংস ব্যতীত অঙ্গ মাংস, মৎস্ত ও মদ্যে ইহাদের বিলক্ষণ প্রতি মাছে। আকারামুরূপ ভোজন করিতে সমর্থ হই লেও ইহার রন্ধনকার্য্যে বিশেষ নিপুণ নহে। মদ্য ব্যতাত গঞ্জ ও তামাকুসেবনে ইহাদের আমুরক্তি অধিক । ইহারা মরাঠী ভাষায় কথা কয় এবং সাধারণতঃ মহারাষ্ট্ৰীয়ের স্থায় বেশভূষা করিয়া থাকে। স্ত্রীপুরুষ উভয়েই অলঙ্কার ধারণ করে । পুরুষেরা মাথা নেড়া করিয়া টিকি রাখে। ‘গোন্ধল’ নৃত্যের সময় ইহার নানালঙ্কারে সজ্জিত হইয়া বাদ্য সহকারে তুলজা-ভবানী ও ভৈরবনাথের গীত গায়। নবরাত্র উৎসবের সময় এই নৃত্যগীতের জন্ত ইহার প্রত্যেক কৃষকের নিকট বার্ষিক কিছু কিছু ধান্যাদি পাইয়া থাকে। এই নৃত্য ও দেবদেবীর সঙ্গীত সুৰ্য্যাস্ত হইতে প্রাতঃকাল পর্য্যস্ত হয়। এইরূপে নাচিয়া গাছিয়া ইহারা যে অর্থ উপার্জন করে, তাহাতেই ইহাদের উদরারের ংস্থান হয় । ইহারা কখনও ভবিষ্যতের জন্তু অন্নসংস্থাপন করিয়া রাখে না। ইহারা পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন হইলেও আলস-প্রকৃতি । ১ ভৌগোলিক টলেমি এই স্থানকে Bardnotis নামে উল্লেখ করিয়াtছন। মানচিত্রে ইহার বসন্ধি নাম লিখিত আছে । २ हरमबीउक, किल्लग्रजांठक, भूभप्राष्ठक, भषोरक्शैग्न आठक, गयभक्षकिन्न काठक, विषश्द्रमॆक-छाङक, शङ्कर-बाष्ठक महठि । ৩ অজাতশত্রুচিত্রে “জজাতশত ভগবতো বন্দতে, মায়াদেৰীর শ্বেতহস্তিস্বপ্নদর্শনে ভগবতো উকৃপ্তি’। একটী বৌদ্ধসঙ্গে—‘জটিল সম্ভ, অপর বৌদ্ধলক্সে—‘স্বধৰ্ম্ম রেব সভা ভগৰতে চুড়া মহা এইরূপ পদ লিখিত আছে। এই রেবসম্ভ বৌদ্ধাচার্যা রেবতকৃত মছবোধিসঙ্ঘ বলিয়া মনে হয়। উক্ত চিত্ৰাদি ব্যতীত, এখানকার খগুলিপি হইতে ক্ৰশ্ন, পাটলিপুত্র, বিদিশ, ঙ্কোশাম্বী, মাসিক, অসিতক্ষল প্রভৃতি মগঞ্জের সাম পাওয়া যায় ।