পাতা:বিশ্বকোষ ত্রয়োদশ খণ্ড.djvu/৫৬৫

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


--------- ভোজকত্ৰাহ্মণ


[ α&α ] ভোজকত্রীক্ষণ পরিবে। তুমি নিশ্চয় জানিও, আমি যেরূপ কহিলাম, তোমার পুত্ৰগণ এই প্রকারই হইবে। তাহারা ভূতলে মগৰংশে সমুৎপন্ন হইরা যাবতীয় বেদবিদ্যা অধ্যয়নপূর্বক মহাপুরুষ নামে বিখ্যাত হইবে। ভাস্কর নিক্ষুভী দেবীকে এইরূপে আশ্বাস প্রদান করির তৎক্ষণাৎ অস্তধান করিলেন এবং সেই দেবী ও সাতিশয় পুলকিত হইলেন । এইরূপে ভোজকগণ পরে সমুৎপন্ন হইয়াছে। ইহারা আদিত্য ও নৈক্ষুড় নামে প্রসিদ্ধ-হইয়া লোকমধ্যে পূজিত হইয়াছেন। ভবিষ্যপুরাণে আবার অন্তস্থলে ১৪০ অধ্যায়ে লিখিত আছে— "নারদ কহিলেন, কৃষ্ণনন্দন ! আমি তোমার নিকট মগব্ৰাহ্মণগণের অপুৰ্ব্ব চরিত বলিতেছি, শ্ৰৰণ কয়। এই মগ ব্ৰাহ্মণগণ বেদবিস্কায় পারদর্শী হইলেও ইহাদিগের মধ্যে প্রায় অধিকাংশ ব্যক্তি ক্রিয়াকাণ্ডে রত । ইহার বিপরীতক্রমে বেদাধ্যয়ন করেন বলিয়া মগ ও মগু এই দুই নামেই বিখ্যাত হইয়াছেন । তগবান ব্ৰহ্মা, তপোধন ঋষি এবং পবিত্রমূত্তি স্বৰ্য্য ইহারা সকলেই কুর্চ ধারণ করেন বলিয়া এই মগগণও অতি দীর্ঘ কুণ্ঠ ধারণ করিয়া থাকেন। নিয়মস্থিত ঋষিগণ মোনাবলম্বনে অবস্থান করেন বলিয়া ইহারাও মেীনী হইয়া ভোজনাদি নিৰ্ব্বাছ করিয়া থাকেন। এইরূপে শাকদ্বীপবাসী প্রায় সকল ব্রাহ্মণই মুনিবৃত্তি আচরণে নিরত আছেন । সুতরাং সিদ্ধি-অভিলাষী সমস্ত মগুরই মৌনাবলম্বনে ভোজন করা কর্তব্য। মগুগণ বচকেই স্বৰ্য্য এবং বচকেই কারণরূপে বিদিত হইয়া প্রতিদিন তাহারই অর্চনা করেন, এ কারণ র্তাহারা বচার্চ নামে ও প্রসিদ্ধ । ইহার ভোজকন্যার গর্ভে উৎপন্ন হইয়াছিলেন বলিয়া ভোজক নামে বিখ্যাত হইয়াছেন । ব্রাহ্মণগণের যেমন ঋক্, সাম, যজু ও অথৰ্ব্ব নামে চারি বেদ আছে, সেইরূপ ইহাদিগেরও বিদ, বিশ্বরদ, বিদাদ ও আঙ্গিরস নামে চারি বেদ প্রসিদ্ধ রহিয়াছে। এই বেদচতুষ্টয় পুৰ্ব্বকালে স্বয়ং প্রজাপতি মগগণের নিকট ব্যক্ত করিয়াছিলেন। মগগণ বেদ অধ্যয়ন করেন, এ জন্ত তাহাদিগকে বেদজ্ঞ বলা যায় । সৰ্ব্বপ্রাণীর প্রতিকর গেষ নামে এক মহানাগ আছে। এই মহানাগ স্বৰ্য্যরথে অবস্থান করিয়া স্বৰ্য্যকিরণসহ স্বীয় নিৰ্ম্মোক পরিত্যাগ করে। এই নিৰ্ম্মোক আমাহক নামে থ্যাত । মগগণ প্রত্যহ অস্ত্ৰ-মন্ত্র উচ্চারণপূৰ্ব্বক এই অমাহকের বন্দনা করিতে থাকেন। যেমন পূজাকালে দ্বিজগণ পুষ্পমাল্য দান করেন, সেইরূপ মগগণও পূজাকালে আমাহক দান করিয়া থাকেন। - যেমন ব্রাহ্মণগণমধ্যে সংস্কারাদি সমুদায় কার্য্যে দর্ভের প্রয়োজন হয়, সেইরূপ ইহুদিগের মধ্যেও আবশ্বকীয় বাগবজ্ঞা XIII 》8象 निष्ठ नषिद्ध यश्वfब्र श्रावश्चक श्छ। नाकदौभवानैो भशशण ७श् বশ্ব দ্বারাই অধিক সময় পূজা করিয়া থাকেন। তিনি হুৰ্যপূজা মিরত থাকিয়া শৌচাচার অবলম্বনপূৰ্ব্বক সৰ্ব্বদা স্বৰ্য্যমন্ত্ৰ জপ করেন, স্বৰ্য্যদেব তাছার প্রতি সাতিশয় প্রতি হইয়া থাকেন। মগগণ প্রতিনিয়ত যে বেদ মন্ত্ৰ পাঠ করেন, তাছাই তাহাদিগের সাবিত্ৰী বলিয়া পরিকল্পিত। কিন্তু হে বস্তুশ্রেষ্ঠ ! আমাদিগের সাবিত্রী সেরূপ নহে। আমরা ব্যান্ধতিপূর্বক সাবিত্রী উচ্চারণ করি। শাকদ্বীপবাসীরা মৌনাবলম্বনে আমাছক দ্বারাই স্বর্গগতি প্রাপ্ত হইয়া থাকে। ইহার কদাপি মৃত বা রজস্বল৷ ব্যক্তিকে স্পর্শ করেন না। সখশুদিগের মৃতদেহ মাটীতে নিক্ষেপ করিবে না এবং স্বীয় অম্ভীষ্টদেব স্বৰ্য্যকে সৰ্ব্বদাই নমস্কার করিবে । যেমন ব্রাহ্মণগণ যাগযজ্ঞাদিতে মন্ত্রসংস্কৃত স্বরাপানে দূষিত হন না, লেহুরূপ মস্ত ও মগগণের পানীয় হইয়া থাকে। এই মন্ত বিধিপূৰ্ব্বক মন্ত্রসংস্কৃত করিয়া পান করেন বলিয়া ইহা প্রকৃত মস্তুের স্তায় দোযাবহ হয় না । শাকদ্বীপীয়া ইছ ছবিঃ বলিস্ক মনে করিয়া থাকেন। যেমন ব্রাহ্মণগণের অগ্নিহোত্র প্রসিদ্ধ, ইহাদিগের সেইরূপ অচযু নামে অধ্বল্পহোত্র বিহিত রহিয়াছে। ইহারা সিদ্ধিকামনায় প্রতিদিন ত্রিসন্ধ্যা দিবাকরকে পঞ্চপ্রকার ধূপ দান করেন श्ऊIांमि । আবার ১৩৯ অধ্যায়ে লিখিত আছে যে, শাকীপী ব্রাহ্মণগণ সূর্য্যের তেজ হইতে বিশ্বকৰ্ম্ম কর্তৃক নিৰ্ম্মিত হইয়াছেন । এখন এক ভবিষ্কাপুরাণ হইতেই আমরা কয় প্রকার শাকদ্বীপীয় ব্রাহ্মণের সন্ধান পাইতেছি,-১ম স্বৰ্য্যের স্বশরীর হইতে নিঃস্তুত ও শাকদ্বীপাধিপতির প্রতিষ্ঠিত স্বৰ্য্যপূজায় নিযুক্ত অষ্ট জন, ২য় বিশ্বকৰ্ম্ম কর্তৃক স্বৰ্য্যশরীর হইতে নিৰ্ম্মিত একশ্রেণী, ৩য় অগ্নি-জাতীয়, ৪র্থ সোমজাতীয়, ও ৫ম ভোজক বা আদিত্যজাতীয় । এই পঞ্চ প্রকার ব্রাহ্মণের মধ্যে স্বৰ্য্যশরীরনিঃস্থত অষ্ট জনই সৰ্ব্বশ্রেষ্ঠ এবং ইহারাই বোধ হয় বিশ্বকৰ্ম্ম নিৰ্ম্মিত বলিয়। অগুত্র বর্ণিত হইয়াছেন, কারণ বিশ্বকৰ্ম্মাই পূর্য্যের দেহ টাচিয়া নানা খণ্ডে বিভাগ করিয়া দিয়াছিলেন। ৰোধ হয়, এই কারণেই ব্রাহ্মণের সূৰ্য্যাংশসস্তব বলিয়া বিবৃত হইয়াছেন । ইহারাই শাকদ্বীপের আদিব্ৰাহ্মণ বলিয়া গণ্য। এই ব্রাহ্মণ-বংশেই সম্ভবতঃ খুঞ্জিশ্ব ঋষির উৎপত্তি হইয়াছিল। গ্রীক ঐতিহাসিক দিওদোরসের বিবরণ পাঠ করিলে জানা যায় যে, পূৰ্ব্বকালে শাকদ্বীপে ‘অগ্নি-অম্প’ নামে এক শ্রেণী বাস কল্পিত । • আমরা এই শ্রেণীকে

  • ৰঙ্গেয় জাতীয় ইতিহাস ব্ৰাহ্মণৰাও ২য় ভাগ ৪র্থাংশ দ্রষ্টষ্য ।