পাতা:বিশ্বকোষ দশম খণ্ড.djvu/২৪

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


নায়িকা । [ २8 ] নায়িকা , তথাপি দারুণ মন পর লাগি মরে গে। বক্রোক্তি গৰ্ব্বিতা नादिक সঙ্কেত তরুর মূলে সঙ্কেত নদীর কুলে গৰ্ব্বিতা দ্বিমত হয় জপ আর প্রেমে ।

  • ঘাটেgভাঙ্গামঠে মাঠে অন্ধকার ঘরে গো ॥ 詹 কঙ্কণ রেল লুকায়ে চুম্বন কোল

রমণে নাহিক স্বথ কোটালের ডরে গো । পরকীয়া নায়িকার ভেদ বিদগ্ধ লক্ষিত গুপ্ত কুলট মুদিত । পরকীয়া নানাভেদ প্রাচীন লিখিত ॥ বিদগ্ধ – বিদগ্ধা দ্বিমত হয় বাক্য অার কাজে । কথা শুনি কাৰ্য্য দেখি বুঝিবা অব্যাজে । বাশ্বিদগ্ধ-চির পরবাসী স্বামী বিরহে কাতর আমি বসন্তে মাতিল কাম কেমনে ব থাকিব । প্রভুর কুসুমোদান বড় মনোহর স্থান মমুষ্যের গম্য নহে সেই স্থানে যাইব । ডাকে পিক অলিকুল ফোটে নানা জাতি ফুল, গাছিয়া প্রভুর গুণ রজনী পোহাইব । করিতে আমার তত্ব হইবে যাহার সত্ত্ব সেই বঁধু তারে দেখা সেইখানে পাইব । ক্রিয় বিদগ্ধ! — সুখে শুয়ে পতি আছে রামা শুয়ে তার কাছে ইসারায় উপপতি পিক ডাকে ডাকিল । রাম বলে হলো দায় পতি পাছে টের পায় না দেখি উপায় ভেবে স্তন্ধ হয়ে রহিল ॥ কোকিল ডাকিছে হোর, কামভয়ে পাছে ঘোর শ্রাস্ত আছে নিদ্রা যাও বলে চক্ষু ঢাকিল । জাগ্ৰত আমার প্রিয় কেন ডাক বনপ্রিয় আর কি তোমারে ভয় বল্য দুই রাখিল ৷ লক্ষিতা—পর পতি রতি চিহ্ন ঢাকিতে না পারে । লক্ষিতা করিয়া কবিগণে বলে তারে । গুপ্তা—হয়েছে হতেছে হবে পর সঙ্গে রতি । গুপ্ত করে যে জন সে জন গুপ্ত মতি ৷ কুলট-পতি কোলে থাকি যার অনেকেতে কাজ । কুলট। তাছারে বলে পণ্ডিত সমাজ । মুদিতা-পর সঙ্গে রতি আশে উল্লাসিত যেই। বিঘ্নহীন দেখিয়া মুদিত হয় সেই । সামান্তবনিতা—ধনলোভে ভঙ্গে যেই পুরুব সকলে । সামাগুবনিতা তারে কবিগণ বলে ৷ অদ্যভোগঃখিত। আর বক্রোক্তিগৰ্ব্বিত । মানবর্তী আদিভেদে সামান্তবনিত ॥ দুইটী একত্র হলে হীরা যেন হেমে ৷ রূপগৰ্ব্বিত নায়িকা--মুখ দেখি যদি অরিণী ধরে। বড় বল্য ছায়া সে লয় হরে ৷ মদনে জানিত অধিক করে । দেখিতাম কিন্তু গিয়াছে মরে ॥ প্রেমগৰ্ব্বিতা—অনিমিষ আঁখি স্থির চরিত্র। আপনার বধু করিয়া চিত্র। অামারে দেখায় একি বিচিত্র । কেহ বঁধু সখী শত্রু কি মিত্র। অবস্থাভেদ—এ সব নায়িক পুন অষ্ট মত হয়। বিপ্ৰলন্ধ সম্ভোগ তাহার পরিচয় ॥ বাসসজ্জা উৎকাষ্ঠতা ও অভিসারিকা । বিপ্ৰলন্ধা তার পর স্বাধীনভত্ত্বকা । খণ্ডিত তাহার পর কলহান্তরিত । প্রোধিতভত্ত্বক। এই অষ্ট পরিমিত । নায়িকাভেদ-উত্তম মধ্যম আর অধম নিয়মে। এ সব নায়িকা তিন মত হয় ক্ৰমে । উত্তমা—অহিত করিলে পতি যেবা করে স্থিত। উত্তম তাহার নাম বলয়ে পণ্ডিত । মধ্যম – হিত কৈলে হিত করে অহিতে অহিত । মধ্যম তাহার নাম মধ্যম চরিত ॥ অধমা—হিত কৈলে অহিত করয়ে যেইজন। অধম তাহার নাম বলে কবিগণ ॥ চণ্ডী-পতি প্রতি করে যেই অকারণ ক্রোধ । চণ্ডী তার নাম বলে পণ্ডিত সুবোধ ॥" (ভারতচন্দ্ৰ—রসমঞ্জরী ) রসমঞ্জরীমতে নায়িকা স্থিপঞ্চাশদধিক দশসহস্রপ্রকার। | সাহিত্যদর্পণে নায়িকার বিষয় এইরূপ লিথিত আছে। প্রথমতঃ নায়িকা স্বীয়া, অন্ত ও সাধারণ এই তিন প্রকার । নায়কের যে সকল সাধারণ গুণ লিখিত হইয়াছে, নায়িকার সেই সকল গুণ থাকিবে । ইহার মধ্যে বিনয় ও সরলতাদিযুক্ত, পতিব্ৰতা এবং সৰ্ব্বদ গৃহকার্য্যে নিরতা হইলে তাছাকে স্বীয়ানায়িক কহে । এই স্বীয়ানায়িকা মুগ্ধ, মধা ও প্ৰগলভাভেদ তিন প্রকার। প্রথমাবতীর্ণযৌবন, মদনবিকারবর্তী, রতিবিষয়ে প্রতিকুল, পতির প্রতি মানবিষয়ে মৃদু ও অতিশয় লজ্জাবর্তী হইলে তাহাকে মুগ্ধানায়িক কহে । বিচিত্র সুরতযুক্ত, এবং যাহার ীেবন ও মদন প্রবৃদ্ধ হইয়াছে, বাক্য ঈষৎ প্ৰগলভ,