পাতা:বিশ্বকোষ পঞ্চম খণ্ড.djvu/৩২৪

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


- গাজিপুর -TTF -F- *—-—`----- তহতুিলের লাটয় নামক ক্ষুদ্র গ্রামে একটা ৫০ ফুট লম্ব ও ২•• ফুট গ্রন্থ ইষ্টকের ভগ্ন গুপের পশ্চিমদিকে একটা প্রস্তর স্তম্ভ আছে * । কোন কোন মুদ্রার ও শিলালিপিতে ঐগুপ্ত ক্রলুলেন্দ্রের নাম পাওয়া গিয়াছে। { ৬৩ খৃষ্টাব্দে চীন পরিত্রাজক হিউয়েন-সিয়াং যখন এই প্রদেশ দর্শন করিতে আগমন করেন, তখন এখানে বৌদ্ধ ও হিন্দু উভরেরই প্রাচুর্ভাব ছিল । হিউয়েন-সিরাং এই প্রদেশের ‘চেন-চু' নাম দিয়াছেন । রাজ্যটী চারিদিকে ১৬৫ ক্রোশ । (১) গঙ্গাতীরে ইহার রাজধানী। অধিবাসীবর্গ সমৃদ্ধিশালী, ভূমি উৰ্ব্বর ও f: 1 হিউয়েন-সিয়াংএর আগমনের পরে হিন্দুগণ বৌদ্ধদিগের সহিত যুদ্ধ করিয়া তাহাদিগকে দেশ হইতে দূর করিয়া দেন। সেই সময় ভর নামক পরাক্রান্ত জাতি এই স্থানে আধিপত্য বিস্তার করে । উত্তরপশ্চিমে যখন মুসলমান জাতি রাজ্য বিস্তার আরম্ভ করে, ভখন ব্রাহ্মণ ও রাজপুতগণ পলায়ন করিয়া এই ভর জাতীয় রাজাদিগের আশ্রয় গ্রহণ করেন। তাহারাই ক্রমে ঐ রাজার নিকট হইতে জমি গ্রহণ করির পরে জমিদাররূপে পরিণত হইয়াছে। ক্রমে কুতুবউদ্দীন ১১৯৩ খৃষ্টান্ধে উত্তর পশ্চিম গ্রান্ত হইতে বঙ্গদেশ পৰ্য্যন্ত মুসলমান রাজ্য বিস্তার করিলেন। গাজিপুর অবশুই ওঁtহার রাজ্যের অন্তভুক্ত হইয়াছিল । কথিত আছে, ১৩৩০ খৃষ্টাব্দে সম্রাটু মুহম্মদ তোগলকের সময়ে মুসাউদ নামক একজম লামন্ত এই প্রদেশের রাজাকে যুদ্ধে নিহত করেন । সম্রাট তাহার উপর তুষ্ট হইয় তাহাকে গাঞ্জি (ধৰ্ম্মের সহায়) উপাধি দেন ও নিহত রাজার রাজ্যদান করেন । এই মুলাউদই উক্ত স্থানের ‘গাজিপুর’ নামকরণ করেন । সেই অবধি উহার নাম গাজিপুর হইয়াছে। ১৩৯৪ হইতে ১৪৭৬ খৃষ্টাব পৰ্য্যস্ত এই প্রদেশ জৌনপুরের সড়কি রাজগগের অধীন ছিল । সড়কি রাজবংশ দিল্লীর লোদীবংশীয় রাজগণের অধীনতা পরিত্যাগ করিয়া স্বাধীন হইয়াছিল। ১৫২৬ খৃষ্টাব্দে সম্রাটু বাবর এই প্রদেশ অধিকার করির লন। বক্সারের যুদ্ধে লেরশাহ হুমায়ুনকে পরাস্ত করির এই প্রদেশ অধিকার করেন । আকবরের সময় এই স্থান মোগলদিগের অধিকারে এলাহাবাদ মুবার অন্তর্গত থাকে। তাহার পর ইহা অযোধ্যার মবাব উজীরের রাজ্যের অন্তর্নিবিষ্ট হয় । ১৭৩৮ খৃষ্টাব্দে নবাব [ ৩২৫ ]

  • Führer's Monumental Antiquities and Inscriptions. р, 239.

t Cunningham's Archæological Survey Reports, XXII. р. 98. (*) Cummingham's Ancient Geography of India, p. 489. ү vR গাজিপুর সাহাদাত খাঁ, সেখ অায়দুল্লা নামক এক ব্যক্তিকে গাজিপুরের শাসনকৰ্ত্ত নিযুক্ত করেন। এই স্থানে তাহার কৃত চিহলসতুন (চল্লিশ স্তম্ভযুক্ত বাট ), ইমামবাড়া, মসজিদ, নবাৰকি চারদোরারি, একটী দুর্গ ও নবাৰ-বাগ নামে উদ্যান নিৰ্ম্মাণ করেন । (১) উদ্যাসের নিকট তাহার সমাধিমন্দির ছিল। জলালাবাদ ও কাশিমাবাদে তাহার কৃত মসজিদের ভগ্নাবশেব এখনও দেখা যায়। আবদুল্লার शुक्लब পর ভৎপুত্র ফজলঙ্গালি রাজ্যশাসন ক্ষরিতে থাকেন। বারাণসীর রাজ বলবন্তসিংহ তাহাকে তাড়াইয় দিয়া গাজিপুর প্রদেশ নিজ অধিকারভুক্ত করিয়া লম । ১৭৭০ খৃষ্টাব্দে বলবস্ত সিংহের মৃত্যু হইলে চৈতসিংহ রাজা হন । নবাব উল্পীরের সন্মতিক্রমে গাজিপুর চৈতসিংহের অধিকারে রছিল। ১৭৭৫ খৃষ্টাব্দে মহাব উত্নীর আসফ উদ্দৌলা বারাণসী রাজ্য ইংরাজদিগকে অর্পণ করেন । শেষ ১৭৮১ খৃষ্টাব্দে ওয়ারেণ হেষ্টিংস চৈতসিংহকে সিংহাসন চু্যত করেন। সেই অবধি গাজিপুর ইংরাজরাজের অধীন হইয়াছে। ১৮৯৫ খৃষ্টাব্দে গাজিপুরে তারতের গবর্নর-জেনারল লর্ড কর্ণওয়ালিসের মৃত্যু হয় । সেই ঘটনার স্মরণার্থ "কর্ণওয়ালিস মনুমেণ্ট’ নামক ইমারত নিৰ্ম্মিত হইয়াছে। ইহাতে ১২টি স্তম্ভ ও উপরে একট গম্বুজ আছে । উহার মেজ ভূমি হইতে প্রায় ৮ হস্ত উচ্চ, উপরে মৰ্ম্মর প্রস্তর বাধীন। মধ্যস্থলে প্রস্তর খোদিত লর্ড কর্ণওয়ালিসের অৰ্দ্ধমূৰ্ত্তি। উহার এক পার্থে হিন্দু ও অপর পার্শ্বে মুসলমান মূৰ্ত্তি । উত্তরদিকে একজন গোর ও একজন সিপাহীর মূৰ্ত্তি, যেন শোকাকুল ভাবে অবস্থিত । সিপাহী বিদ্রোহের তরঙ্গ গাজিপুরেও আসিয়াছিল। কিন্তু তাহা শীঘ্রই দমিত হয় । ইংরাজ অধিকারে আসিবার পর ১৭৮৯ খৃষ্টাবো গাজিপুরে জমি সম্বন্ধীয় ষে বন্দোবস্ত করা হয়, তাহাই চিরস্থায়ীরূপে চলিয়া আলিতেছে। এক একটী বিভাগের প্রতিনিধিস্বরূপ কয়েক জমের সহিত সরকারের বন্দোবস্ত হয়। কোন কোন স্থলে কোন জমিদারী এইরূপ প্রতিনিধির নিজ সম্পত্তি হইয়। দাড়াইয়াছে। ১৮৪ খৃষ্টাঙ্গে জমির সত্বাসত্বের ও অংশাদির নুতন ব্যবস্থা করা হয়। বাকি খাজনার জন্ত অনেক ভূসম্পত্তি বিক্রয় হইরা যায়। ১৮৫৯ খৃষ্টাব্দে জমি সম্বন্ধে নুতন আইন হইলে জমির পুরাতন অধিকারীদিগের সহিত নুতন অধিকারীদিগের অনেক বিবাদ ও মোকদম হইয়াছিল । এখানে শাসনকার্য্যের জন্য একজন মাজিষ্ট্রেট-কালেক্টর, একজন জয়েন্ট মাজিষ্ট্রেট ও তিনজন ডিপুটী মাজিষ্ট্রেট आरश्न। यांगिब्रांद्र छछ शांछिशूरत्वग्न लाग्नग्नांद्र दिल्लीज़ ( ») Führer's Monumental Antiquities &c. 232,