পাতা:বিশ্বকোষ পঞ্চম খণ্ড.djvu/৫৪৮

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


গোয়ালপাড়া वt६, १ोंf७iग्न ७ भश्मिणि नॉनांzकाँग्न दछ अख ८णथl थॉन्न । প্রায় ত্রিশ বৎসর পূৰ্ব্বে রাজশ্ববিভাগ হইতে অাদেশ হয় যে, ষে ব্যক্তি বন্য জন্তু সংহার করিভে পরিবে, জাহাকে পারিতোষিক দেওয়া হইবে । এই জেলায় কতকাংশ প্রাচীন কামরূপ রাজ্যের জস্তবৰ্ত্তী ছিল । সেই সময়ে নিৰ্ম্মিত থাকেশ্বরীর প্রাচীন মন্দিরের ধ্বংশাবশেষাদি দেখিতে পাওয়া যায়। পরবর্তী প্রাচীন ইতিহাস কোচবিহার রাজ্যের ইতিবৃত্তের সহিত সন্নিবিষ্ট । কোচবিহার রাজবংশের বৃদ্ধির সঙ্গে সঙ্গে এই রাজ্য ক্রমেই অনেকগুলি ক্ষুদ্র বিভাগে পরিণত হইয়াছে । জেলার মধ্যে বর্তমান বিজনিদ্বারের রাজার একটী বৃহৎ জমিদারী আছে । তিনি আপনাকে কোচবিহাররাজের কনিষ্ঠপুত্রের বংশধর বলিয়া পরিচয় দেন এবং উক্ত সম্পত্তি রাজবংশীয়গণের ভরণপোষণার্থ প্রাপ্ত বৃত্তি বলিয়া জা গুঞ্জ করেন । খৃষ্টীয় ষোড়শ শতাব্দীতে দুই দিক্ হইতে দুই দল শত্রুসৈন্ত গোয়ালপাড়া আক্রমণ করিতে আইসে । পুৰ্ব্বাঞ্চল হইতে অসভ্য আহোম জাতি ক্রমে ক্রমে ব্রহ্মপুত্রের উপত্যকাভূমিতে আসিয়া উপস্থিত হয়। এই জাতির নাম হইতেই পরে এই প্রদেশের নাম আসাম হইয়াছে। পশ্চিমদিক হইতে মোগলের দিল্লী সাম্রাজ্যে ইসলাম্ ধৰ্ম্মের বৃদ্ধির মানসে ক্রমশঃই অগ্রবর্তী হইয়াছিল । আফ গানদিগের হস্ত হইতে মানসিংহ কর্তৃক বঙ্গ অধিকৃত হইবার ২৭ বৎসর পরে ১৬০৩ খৃষ্টাব্দে মোগলের প্রথমে আসিয়া আসাম উপত্যকা হইতে দরঙ্গজেলা পৰ্য্যন্ত ভূমি দিল্লীর অধিকারভুক্ত করিয়া লয়। শীঘ্রই এইখানে আহোম জাতির সহিত তাহাদিগের বিবাদ বঁধে । ১৬৬২ খৃষ্টাব্দে গৌহাটীর নিকটবর্তী প্রদেশে মোগল । সেনানী মীরজুমূল আহোম কর্তৃক পরাজিত ও বিশিষ্টরূপে ক্ষতিগ্রস্ত হইয়া পলাইতে বাধ্য হইয়াছিলেন । এই নগরে এবং ব্ৰহ্মপুত্রের পরপারস্থিত রাঙ্গামাটি মামক স্থানে সৈনিকবাস নিরূপিত হয়। স্থানীয় জঙ্গলভূমি পর্যবেক্ষণ ও আহোমদিগের হস্ত হইতে এই প্রদেশ রক্ষা করাই উক্ত সৈনিকদিগের প্রধান কাৰ্য্য ছিল । মোগলরাজ্যাধিকারে এই জেলার প্রায় ২২ অংশ লোক ইসলামূধৰ্ম্মে দীক্ষিত হইয়াছিল। ১৭৯৩ খৃষ্টাবে চিরস্থায়ী বন্দোবস্তের সমর এই জেলার রাজস্ব ১১৭••\ টাকা নিরূপিত হয়। বৃটিশ শাসনের প্রথমে রঙ্গপুর জেলার সহিত এই জেলার শাসনকাৰ্য্য স্বতন্ত্ৰ ভাবে চলিয়া আসিতে V يج S موال [ ¢8> .. ] গোয়ালপাড়া . झिश ; किरू s४२२ धुंडेॉक श्हेcड ५कखम रूभिगनtन्नग्न श्रशौtन ইহার শাসনকার্ধ্য স্বাধীনভাবে চলিয়া আদিতেছে । বছদিম হইতেই গোৱালপাড়া নগর রাজনৈতিক ও বাণিজ্য বিষয়ে প্রধান স্থান বলিয় গণ্য। ১৭৮৮ খৃষ্টাস্বে মিষ্টার রউস নামে একজন ইংরাজ বণিক মোয়াभांब्लिप्तांक्षिt१ीव्र दिtझांझणमानव्र छत्रु निछ १ब्रtा १०० वस्त्र সশস্ত্র ব্যক্তি দিয়া আসামরাজের সাহায্য করিয়াছিলেন । ১৮২৫ খৃষ্টাব্দে আসাম প্রদেশ ইংরাজের হস্তগত হইলে, গোয়ালপাড়া জেলা উক্ত নব অধিকৃত প্রদেশভুক্ত হয় । কিন্তু এখানকার রাজস্ব আদায়কার্য বাঙ্গালার নিয়মে পরিচালিত হইয়া থাকে। ১৮৬৪ খৃষ্টাব্দে ভূটান যুদ্ধের পর ভূটীয়ার দ্বাররাজ্য ইংরাজদিগের হস্তে গ্ৰদান করেন। ইহার কতকাংশ বর্তমান গোয়ালপাড়ার অধিকারভুক্ত হয় । ১৮৬৮ খৃষ্টাব্দে গোয়ালপাড়ার দেওয়ানী ও ফৌজদারী বিচারকার্য্য আসামের জুডিশিয়াল কমিসনরের হস্তে অর্পিত হইল । ১৮৭২ খৃষ্টাব্দে আসাম প্রদেশ বাঙ্গাল হইতে স্বতন্ত্রভাবে সংগঠিত হর। এখানে একজন ডেপুটী কমিসনর অtছেন । তিনি মাজিষ্ট্রেট, কালেক্টার ও সবরডিনেট জজের কৰ্ম্ম করিয়া থাকেন । এই শতাব্দীর প্রথমভাগে হামিণ্ট বুকানন সাহেব গোয়ালপাড়া জরিপ করিয়া ইহার ভূপরিমাণ ২৯১৫ বর্গ মাইল ধাৰ্য্য করেন । তৎপরে ইহার ভু পরিমাণ ২৫৭১ বর্গ माझेक निझश्रृिंउ ह्द्र ! এই প্রদেশে রাভ, মেচ, কাছাড়ী, গারে প্রভৃতি কয়েকট আদিম জাতির বাস আছে। এতদ্ব্যতীত কোচ জাতির সংখ্যাও অধিক । ধান্ত এখানকার প্রধান ফসল। ছৈমস্তিক, শালী বা আমন ধান আষাঢ়ে এবং আউস্ ধান ফাল্গুন মাসে রোপিত হইয়া থাকে। জলাভূমিতে ফাল্গুন মাসে বাও নামক এক প্রকার ধান্ত রোপিত হয়, উহ। কাৰ্ত্তিক মাসে কাটা হুইয়া থাকে। জমিদারের নিকট হইতে চাষী জমিজমা ব্যতীত অপর শর্তে জেলার জমি জমা দেখা যার । এখানে জোতদারী বন্দোবস্তে অধিকাংশ জমিই ৰিলি হইয়া থাকে এবং চামীদিগের মধ্যে কাৰ্য্যামুসারে প্রজ, আধিয়ায় ও চুকানিদার এই তিন প্রকার বিভাগ আছে। ১৮৬৩ খৃষ্টাব্দে পঙ্গপাল আসিয়া এথানকার সমস্ত ফসলই নষ্ট করিয়া যায়। এতদ্ভিন্ন প্রতিবৎসর বন্যার সময় জেলার শ্রী উত্তরাংশ জলে ভালিয়া যায়, কিন্তু এরূপ জল প্লাবনেগুৰ্ণ ईलिंक्र इह न । | r سایر *