পাতা:বিশ্বকোষ পঞ্চম খণ্ড.djvu/৫৭৪

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


গোলাপসিংহ --- अझ्ttारु जङ्गणe उँाझ्ोल्न झाङ्ग अंकिङ्ग कझिश । ७बन्न कि তৎকালে জম্মুর অtৱালস্তৃক্কজনিত সকলেই গোলাপের নাম শুনিলেও ভীত হইত । taलिएक cभण* ७ठ बूथभिहे हिरणन, ॐांशंङ्ग दशनমগুলে এমনিসুলার স্বচ্ছ আবরণ ছিল, যে একবার তাহাকে দেখিত ও তাহার সহিত আলাপ কয়িভ, সে ব্যক্তিই ८कभन ॐ शिंद्र cभांश्मिौ*क्लि८ङ अtङ्कळे श्ग्रां ऊँtश्tब्र वt५, হইয়া পড়িত । ১৮২০ খৃষ্টাবে গোলাপসিংহ রাজোয়ারিয় রাজা অগরখাকে আক্রমণ ও বন্দী করেন । ১৮৩৯ খৃষ্টাব্দে পঞ্জাবকেশরী রণজিৎসিংহের মৃত্যু হয় ও তৎপুত্র বীরবর খড়গসিংহ সিংহাসনে আরোহণ করেন। গোলাপ প্রভৃতি সকলেই মনে করিয়াছিলেন যে রণজিতের মৃত্যুর পর তাছার ভ্রাতা ধ্যানসিংহের পুত্র হীরসিংহ পঞ্জাবের সিংহাসনে অভিষিক্ত হইবে, কিন্তু তাহাদের অভীষ্ট সিদ্ধ না হওয়ায় রাজা ধ্যানসিংহ মহারাজ খড়গসিংহের বিনাশের জন্ত ষড়যন্ত্র করিতে লাগিলেন । রাজা গোলাপসিংহ সেই নিদারুণ বড়যন্ত্রে যোগ দিয়াছিলেন। যখন কুমার নবনেহালসিংহ থাইৰfর হইতে পিতার শত্রুরূপে লাহোরাভিমুখে আমিতেছিলেন, তৎকালে রাজা গোলাপ সিংহ পথে তাহার সহিত মিলিত হন। গভীর নিশীথে যে কয়জন রাজদ্রোহী মিলিয়া অসহায় খড়গসিংহকে বন্দী করিয়া ছিলেন, তাহদের মধ্যে গোলাপসিংহ ও একজন । [ খড়গসিংহ দেখ । ] যখন খড়গসিংহ কারাগারে ও তৎপুল্ল নবনেহালসিংহ | পঞ্জাষের সিংহাসনে সমাসীন, গোলাপসিংহ প্রভৃতি তিন | ভ্ৰাতায় একপ্রকার পঞ্চাবে আধিপত্য কয়িতেছিলেন। রণজিৎপৌত্র নবনেহালের তাহ নিতান্ত অসহ হইয়াছিল । থতৃগসিংহের অস্ত্যেষ্টিক্রিয়ার দিনে মাথায় টালী পড়িম্ব নবনেছাল ক্ষত বিক্ষত হন। লোকে বলে তাছাতে তাহার মৃত্যু হয়। কিন্তু কোন কোন ঐতিহাসিক লিখিয়াছেন, "সেই সামান্স আঘাতে তাছার মৃত্যুর কোন সম্ভাবন ছিল না।” স্বপ্রসিদ্ধ শিখ-ইতিহাস-লেখক কানিংহাম্ লিখিয়াছেন, *নবনেহালের হত্যাকাণ্ডে জঙ্গুয়াজগণ যে লিপ্ত ছিলেন, তাহার স্পষ্ট প্রমাণ পাওয়া যায় না বটে, কিন্তু এই ঘোরতর অপরাধ হইতে র্তাহাদিগকে নিষ্কৃতি দেওয়া একবারে भगडद " वांछविक शांननिश् अङ्गठिद्र बज्रयtब्रहे थदण পরাক্রাস্তু শিখরাজ্যের অধঃপতনের স্বত্রপাত হয় । बरtनशtणब शृङ्गाद्र "ब्र छैiशंद्र यांछ क्लॉगङ्गमांझै ब्राज [ 4૧& ] গোলাপসিংহ - -----

  1. ও গ্রহণ করেন । তিনি ধ্যানসিংহকে বেশ চিনিয়া

ছিলেন। তখনও ধ্যানসিংহ রাজ্যের শাসনসচিব। মহারাণী চাকুমারী ধ্যানসিংহকে উপেক্ষা করিয়া সিন্ধুবালা উত্তরসিংহকে প্রধান মন্ত্রিপদ প্রদান করিলেন ও প্রবল প্রতাপে রাজ্যশাসন করিতে লাগিলেন। ক্ররগ্রকৃতি ধ্যানসিংহ কিলে সেই বুদ্ধিমতী বিচক্ষণ রমণীকে সিংহাসন হইতে দূরে রাখিবেন তাছার বিশেষ চেষ্টা করিতে লাগিলেন । রণজিৎসিংহের লেগ্নসিংহ নামে বাসনাসক্ত ও মদ্যপায়ী এক জারজ পুত্র ছিলেন । ধানসিংহ স্থির করিলেন সেই অকৰ্ম্মণ্যটাকে সিংহাসনে বসাইয়া নিজে রাজ্যের হর্জা কৰ্ত্ত হইবেন । চতুর গোলাপসিংহও ভ্রাতার সহিত এই ষড়যন্ত্রে লিপ্ত ছিলেন । ধ্যানসিংহ সেরসিংহকে আপনার অভিপ্রায় জানাইয়। তাছাকে সসৈন্তে লাহোরে আসিতে লিখিলেন । ১৮৩১ খৃষ্টাবে ১৪ই জানুয়ারী, সেরসিংহ সসৈন্তে ফতেগড়ে আসিয়া উপস্থিত হইলেন । রাণী চাদকুমারী তৎক্ষণাৎ সিংহদ্বার রুদ্ধ করিতে আদেশ कग्निtशन । धांब्रक्रक श्ल वtछे, रिकरु बांब्रग्नक्ररुशृं* সেরসিংহের পক্ষ অবলম্বন করিল। গোলাপসিংহ ও হীরাসিংহ যেন চাদকুমারীর পক্ষ হইয়া দুর্গ হইতে গোলবর্ষণ করিতে লাগিলেন। দুবৃত্ত ধ্যানসিংহ ফরাসী সেনাপতি ভেঞ্চুরার সহিত সেরসিংহের পক্ষ অবলম্বন করিলেন । অবরোধের সপ্তম দিবসে, রাণী চাদকুমারী দেখিলেন গোলাপসিংহ ও ডোগ্ৰা সৈন্য ব্যতীত প্রায় সকলই তাছায় বিপক্ষ হইয়া উঠিয়াছে । আজ মহাবীর রণজিতের পুত্র বধু নিজের মানসন্ত্রম রক্ষার জন্য ব্যস্ত হইয়া পড়িলেন। সুযোগ বুঝিয়া সুচতুর গোলাপসিংহ তাহাকে বলিলেন, *আর রাজ্য রক্ষার উপায় নাই, এখনও তিনি তঁfহার ভ্রাতার অভিপ্রায়ামুসারে সেরসিংহকে রাজ্য ছাড়িয়া দিন । তাছা হইলে তিনি তাছার মানসংভ্রম রক্ষার জগু প্রাণপণে যত্ন করিবেন।” তখন অবল রমণী হাত জোড়ে কাদিতে *াদিতে বলিলেন, “আমি সকল ভার দিভেছি, আপনিই আমার একমাত্র রক্ষক, যেন আমার মান সন্ত্রম রক্ষা হয়, দুষ্ট সেরসিংহ আমার কয়প্রার্থ, কিন্তু আমি কিছুতেই আমায় পবিত্র দেহ বিক্রয় করিয়া কলঙ্কিত হইতে পারিব ন।” গোলাপসিংহ তfহাকে অনেক আশ দিলেন । যুদ্ধ বন্ধ হইল। মহারাণী চাদকুমারী জযুর নিকটস্থ ৯ লক্ষ টাক আয়ের কন্দিকুদিয়ালি নামক স্থান জায়গীয় পাইলেন । cश्राणाश्रनिश् गर्शब्रागैत्र ७ उँहाँब्र गन्धांख्छि ७ोवश्वब्रक .rইলেন এবং লাহোৱাৰ্গে নে প্রচুর অর্থ রক্ষিত ছিল যে