পাতা:বিশ্বকোষ প্রথম খণ্ড.djvu/১৫৬

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


অও [ ১৩২ ] অও অণ্ডপ্রণালী। জরায়ুর নিয়ে যোনিমার্গ। অণ্ডপ্রণালী ক—অণ্ডাধার। খ—অণ্ডপ্রণালী। গ—জরায়ু । প্রায় চারি ইঞ্চ দীর্ঘ। যাহাদের সন্তান হয় নাই, তেমন স্ত্রীলোকের জরায়ু তিন ইঞ্চ দীর্ঘ ; উপর দিকে দুই ইঞ্চ প্রশস্ত এবং মুখের কাছে অৰ্দ্ধ ইঞ্চ মাত্র। ছোট ছোট বিন্দু বিন্দু কোষ, সকল বয়সেই অগুধারের ভিতরে সংলগ্ন হইয়া থাকে। শৈশবাবস্থা হইতে প্রৌঢ়াবস্থা পৰ্য্যস্ত সকল অবস্থাতেই ঐ কোষ বিদ্যমান থাকিতে দেখা যায়। ক্রমে ক্রমে বড় ও পরিপক্ক হইলে ঐ কোষ অগুtধারের উপরে উঠিয়া আসে। ঐ কোষের মধ্যে লালাবৎ পদার্থ থাকে । মানুষের ডিমও অতিশয় ক্ষুদ্র। অও ক্রমশঃ বড় হইয়া আসিলে ভিতরের কুসুমাদি বাড়িতে থাকে এবং উপরের আবরণ-চৰ্ম্ম পাতলা হইয়া আসে, কাজেই শেষে ফাটিয়া যায়। ফাটিয়া গেলে ঐ কুসুমাদি অণ্ডাধারের উপর দিয়া অণ্ডপ্রণালীতে আসিয়া পড়ে। অণ্ডাধার হইতে অণ্ড পৃথক হইয়া অণ্ডপ্রণালীতে আসিলে স্ত্রীলোকদের ঋতুর কাল উপস্থিত হয়; পশুপক্ষীর সেই সময়ে শরীরে সন্তাপ জন্মে বলিয়া তাহারা বাতাইয় উঠে । এই অবস্থায় পুরুষ | ংসর্গ ঘটিলে অণ্ডের ভিতর জীবের সঞ্চার হয়। পুরুষসঙ্গ মা ঘটিলে ডিম শুকাইয়া যায়। অনেকে দেখিয়াছেন, গৃহপালিত হাসের ও পায়রার বাওয়া ডিম হয়, সেই ডিমে বাচ্ছ জন্মে না। বাওয়া ডিম আর কিছুই নয়,-পক্ষীর সংসর্গ ভিন্ন পক্ষিণী যে ডিম পাড়ে, তাহাই दteश्व' यि । - মাচের গর্ডের ভিতরে ডিমে জীব সঞ্চার হয় না । মৎসী ডিম পাড়িলে সেইখানে মৎস্ত গিয়া শুক্রত্যাগ করিতে থাকে । সেই শুক্র ডিমে লাগিলে তাহাতে পোনা জন্মে । কেবল তিমি ও কোন কোন জাতীয় হাঙ্গরের গর্ডের ভিতরেই ডিম হইতে পোন বাহির হয়, ইছার অন্ত মাচের মত অণ্ড প্রসব করে ন! । সকল প্রকায় অণ্ডজ জন্তুদিগের ডিমের সংখ্যা সমুন দশাৰ এৰ একবারে নাৰুি ৫• পঞ্চাশটী । করিয়া ডিম পাড়ে । উই পোকা প্রতিদিন অনুন ৮০,০০০ আশি হাজার ডিম পাড়িয়া থাকে। ইহার একাদিক্ৰমে দুষ্ট বৎসর অও প্রসব করে ; কাজেই এক عrsta g ۰۰۰,۰۰۰ره & th critTrR stsچی কচ্ছপের এক একবারে ৫• হইতে অনুন ১৫• ডিম হয়। সচরাচর পক্ষী জাতির একবারে দুইটা হইতে চারিটা পৰ্য্যন্ত অণ্ড হয়। হাসের ডিম পাড়িতে আরম্ভ করিলে একাদিক্রমে প্রায় ১৫ । ১৬ দিন অওঁ প্রসব করে। অনেক ক্ষুদ্র জাতীয় পক্ষীর একেবারে আঠারটা ডিম হয়। উঠুক পক্ষীর ডিম সকলের চেয়ে বড়,—সচরাচর প্রায় এক ফুট দীর্ঘ হইয় থাকে। উহার খোলা অত্যন্ত কঠিন। আফ্রিকার অসভ্য জাতির উহাতে জলপাত্র করে । সাধারণতঃ পক্ষীরা বসন্ত ও গ্রীষ্মকালের মধ্যে দুইবার ডিম পাড়ে। কেবল পায়রা, পাতী স্থাস, চড়া প্রভৃতি কোন কোন পক্ষী এই নিয়মের বহির্ভূত । পক্ষীর অণ্ডে চারিট দ্রব্য আছে। যথা— ১ খোলা, ২ ঝিল্লিবৎ চৰ্ম্ম, ৩ শ্বেতলালা, ৪ কুসুম । ( ১ ) উপরের খোলার রাসায়নিক উপাদান শতকরা এই— কার্বনেট অব লাইম্‌ ... ... ফস্ফেট্‌ অব লাইম ও ম্যাগ্নেসিয়া গন্ধক ও জাস্তব পদার্থ ... , 8.” (২) খোলার অন্তবেষ্ট ঝিল্লিবৎ চৰ্ম্মের রাসায়নিক উপ ・・ ケay"Wり &” দান শতকরা এই— অঙ্গার • • • )? o. "وي জলজান \ويلي" ول যবক্ষারজান ••• >や"b" গন্ধক ও অম্লজান · · · ২৬'o এক একটা হংসডিম্বের ওজন প্রায় ৫০০ রতি । তাহার মধ্যে খোলা ৫০ রতি। শ্বেতলাল ৩•৫ রতি, এবং কুসুম ১৪৫ রতি। সচরাচর কঁাচ ডিম্ব ওজনে প্রায় এক ছটাক; সিদ্ধ করিলে উহার কতকটা ভার কমিয়৷ যায়। ডিম্বের কুসুম শ্বেতলালার সঙ্গে দুইটা রঞ্জর মত পদার্থে বাধা থাকে। শ্বেতলালায় শতকরা এই কয়েকটা পদার্থ আছে— - জুল 3 * * * * * * * * * * * * ・ ケ8* * অলিবিউমেন্‌ ... . . ১২ - ৫ cयन, क्लिमेिं ইত্যাদি • , R" o পার্থিব দ্রব্য . . ... - , - , չՀ পাধিব দ্রব্যে এই কয়েক পদার্থ মিশ্ৰিণ্ড ধা-ফস্কেট ।