পাতা:বিশ্বকোষ প্রথম খণ্ড.djvu/৫২২

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


অম্বর ( ജst്]. অম্বর দেবীর মস্তকের উপরে পশ্চাদ দিকে গণেশ, ব্ৰহ্ম বিষ্ণু, শিব এবং কীৰ্ত্তিকের মূৰ্ত্তি। এই প্রতিমা পাষাণময়ী, উজ্জ্বল , কৃষ্ণবর্ণ ; জানি না, কি জন্ত বাম ভাগে মুখ একটু বক্র করিয়া আছেন। এ কথার গল্প অনেক। কেহ কেহ বলেন, মানসিংহের সঙ্গে যুদ্ধের সময়ে প্রতা পাদিত্য শঙ্কটে পড়িয়া দেবীর কাছে স্তব করিয়া কালীর পূজা করিতেছে। কোন রাশাল পাঠা সাজিয়া হাড়ীকাঠে গলা দিয়া পড়িল ৷ এক জন বালক তাহার হাত, এক জন বালক তাহার পী টানিয়া ধরিল ; অন্য এক জন বালক কামার হইয়া একগাছা হোগলা দিয়া তাহার গলায় আঘাত করিল। অমনি দুই থও,-গলা কাটিয়া মাথা এক দিকে আর দেহ এক দিকে পড়িয়া ধড়, ফড, করিতে লাগিল। রাখালের ডয়ে চারিদিকে ছুটিয়া পলাইল। কমল খোজ এই সংবাদ পাইয়া জঙ্গলের ভিতর গিয়৷ দেখেন,—সত্যই বটে, এক গাছ হোগলায় রক্তমাখা রহিয়াছে, রাখালের শরীয় সেই থানে পড়িয়া আছে। তিমি মহারাজ প্রতাপাদিত্যকে রাখালের আশ্চৰ্য্য মৃত্যুর বিবরণ এবং রাত্রিকালের আলোর কথা জানাইলেন। প্রতাপাদিত্য সেই মৃতদেহ সিদ্ধকে বন্ধ করিয়া রাত্রিতে নিজে কমল থোজার কাছে সিংহদ্বারে থাকিলেন। রাত্রি দুই গ্ৰহর, গভীর নিশীথকাল ; দেখেন, আকাশ হইতে একটা জ্যোতিঃপুঞ্জ নামিয়া বনের ভিতরে পড়িল । রাজা কমল খোজাকে সঙ্গে লইয়া দেখিতে গেলেন। কিন্তু বনের মধ্যে প্রবেশ করিয়াই দুই জনে মুচ্ছি ত হইয়া পড়িলেন। তখন এই আকাশবাণি হইল—আমি তোমার ইষ্টদেবতা। তোমায় প্রতি প্রসন্ন৷ হইয়াছি। কল্য এই চিপ খনন করাইলে আমার মূৰ্ত্তি পাইবে। আমি তাঁহাতে অধিষ্ঠান করিব, তুমি সেই মূৰ্ত্তির পূজা করিতে থাকিবে। আর তোমার প্রজা রাখাল মরে নাই, সে আপনার জননীর কাছে ঘুমাইয়া আছে । রাজা সজান হইয়া চাহিয়া দেখেন, বনে আর কিছুই নাই। দৈববাণ কেবল স্বপ্নের মত উহার একটু একটু মনে পড়িতে লাগিল। তিনি প্রথমে সিদ্ধকের কাছে আসিয়া দেখেন তাহাতে স্কৃত রাখালের শরীর নাই, সিদ্ধক খোলা পড়িয়া আছে। কমল খোজাকে লইয়া রাখালের বাটতে গেলেন, দেখেন বাস্তবিক সে জননীর কাছে শুইয়া ঘুমাইতেছে। পর দিন প্রাতঃকালে মহারাজ, জঙ্গলের ভিতরের চিপী খনন করাইতে লোক লাগাইলেন। কিঙ্কিং খনন করিলেই একটা শিলাময়ী মূৰ্ত্তির গলদেশ পর্যন্ত বাহির হইল। তখন দেবী জাকাশৰাশি দ্বারা এই প্রত্যাদেশ করিলেন যে, জার খনন কদিও না। এই খানে মলিয় নিৰ্মাণ করি আমার মূল : कब्रिाड पांक' । * শিলাদেীর উৎপত্তির কথা এই রূপ শুনিতে পাওয়া যায়। ৰেং কেহ বলেন, ধূমধাটে এখনও যে পাযাণমূৰ্ত্তি রহিয়াছে ইছাই প্রত भश्tिठाङ्ग अकृठ निशाcशशै। भानम्श् िcश्रौष्क बन्नरग्न शहेग्रा कांब जाँ३ ।। - Jayantanth (আলাপ) ১২:২৯, ৭ ফেব্রুয়ারি ২০১৬ (ইউটিসি) ছিলেন ; কিন্তু যশোরেশ্বরী তাহ শুনিলেন না, রুষ্ট হইয়৷ মুখ ফিরাইলেন। তাই দেবীর মুখ বাম দিকে একটু বক্র হষ্টয়া আছে। ভারতচন্দ্রও লিথিয়াছেন,— শিলাময়ী নামে, ছিল তার ধামে, অভয়া যশোরেশ্বরী । পাপেতে ফিরিয়া, বসিল রুবিয়া, তাহারে অকৃপা করি । এই গেল এক মত। আর এক প্রবাদ আছে,— পূৰ্ব্বে মানসিংহের সময়ে শিলাদেবীর নিকটে প্রতাহ নাকি নরবলি হইত। কিছু দিন পরে এই 33 ब्रदि७ इद्देब्र गाग्न । cन काङ्गी ८नशैं क्रप्ट इद्देशा মুখ ফিরাইয়াছিলেন। শেষে মহারাজ জয়সিংহ স্বপ্নে এই সকল ব্যাপার জানিতে পারিয়া প্রত্যহ একটা করিয়া ছাগবলি দিতে লাগিলেন । এখনও সেই নিয়ম চলিয়। আসিতেছে। কেবল আশ্বিন মাসের মহাষ্টমীতে এবং বাসন্তীপূজার সময়ে অধিক জাক হয়। ঐ দুই উৎসবে জয়পুরের মহারাজ স্বয়ং পূজা দেখিতে যানু, সঙ্গে প্রধান প্রধান সর্দার এবং অনেক কৰ্ম্মচারী গিয়৷ থাকেন । বলিদান মন্দিরের ঠিক সম্মুখে হয় না। দেবীর মুখ বাম দিকে একটু বক্র বলিয়া বলিদানও মন্দিরের বাম পাশে হয়। মিনেরাই প্রত্যহ বলিদান করে ; কিন্তু মহাষ্টমীতে এবং বাসন্তীপূজায় অসংখ্য মহিষ ও ছাগ বলি হয়। তখন সর্দারের নিজেই তুলবার দিয়া বলিদান কয়েন । শিলাদেবীর মনির হইতে বাহির হইয়া একটু পূৰ্ব্ব মুখে গেলে আর একটা সিংহদ্বার। ইহার কপাট পিতলের পাতে মোড়া। এখানেও প্রহরী আছে। মহারাজের অনুমতি পত্র না দেখাইলে প্রহরীরা এখানকার পথ ছাড়িয়া দেয় না । এই পথ দিয়া প্রবেশ করিলে সন্মুখে বিস্তীৰ্ণ ৰাধান উঠান। উঠানের পূর্ব দিকে প্রসিদ্ধ দেওয়ান থান। ইহাতে চল্লিশটা রক্তবর্ণ পাথরের থাম ; থামের গায়ে শ্বেতবর্ণ পলস্ত্রা লাগান। উপরের সমস্ত ছাদ খিলান कब्र ! भइब्रॉछ भनिनिश्श् uई धरन नब्रदाब्र कब्रिटऊन। প্রথমে থামের গায়ে পৰ্যন্ত্রা ছিল না। কথিত আছে, এই দেওয়ান খান নাকি অকবরের দেওয়ান –ই— আমের অনুকরণ করিয়া নিৰ্ম্মাণ করা হইয়াছিল। गबाभ्रे, eं कृथ् । ७निवाचारबाज़ कछरूeनि লৈগু