পাতা:বিশ্বকোষ প্রথম খণ্ড.djvu/৫৯৫

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


ਬਸੀ। গোলাকার করিয়া তাহার উপরে ঐ রঙ ঢালিয়। किन আল তা গ্রস্তুত হয় । এষ্ট আলতা স্ত্রীলোকের পক্ষে পরম মঙ্গলময় সামগ্রী । সধবা স্ত্রীলোকেরা অঙ্গের বেশবিষ্ঠাস করিতে হইলে আগে পারে আলত পরিয়া থাকেন। পূৰ্ব্বে এদেশের পুস্তক ও মন্ত্রাদি আল তায় লিখিত হইত। এখন ধারণ করিবার নিমিত্ত কবচাদি লিখিতে হইলে আল তা ব্যবহৃত হয়। পরিবার আল তা ভিন্ন বৈদ্যের তৈলে এবং ঔষধের অনুপানে লাক্ষারস ব্যবহৃত হইয়া থাকে। ইহাতে বস্ত্রের এবং চন্ধেরও রঙ করা হয় । ইংলণ্ডে প্রতি বৎসর প্রায় পনর হাজার মণ লাক্ষরসের কাটতি হইয়া থাকে। সেখানে সৈনিক বিভাগের বস্ত্র রঙ্গাইবার জন্ত ইহা ব্যবহৃত হয় । ১৮৮০ খৃঃ অন্ধে প্রায় ৩৭০,০০০০ টাকা মূল্যের লাক্ষণ ইংলণ্ডে প্রেরিত হইয়াছিল। এক্ষণে কৃমিদানার চলন হওয়ায় । লাক্ষা রসের অাদর দিন দিন কমিয়া আসিতেছে । লাক্ষায় অপভ্রংশ লা বা লাহা। চলিত বাঙ্গালায় লাহা শব্দে কাট লাহা বা খুলী লাছাকে বুঝায়। গালিত লাক্ষার অপভ্রংশে আমরা গালা বলিয়া থাকি। জতু বা যাব শব্দের অপভ্রংশে আমরা জউ বলি। বাঙ্গালায় জউ শব্দে কেবল গালাকে বুঝায়। ংস্কৃত ভাষায় লাহার এই কয়েকট পর্য্যায় দেখিতে পাওয়া যায়। অলক্ত, রাক্ষা, লাক্ষা, জতু, যাব, ক্রমাময়, রক্ষা, অরক্ত, জতুক, যাবক, অলক্তক, রক্ত, পলঙ্ক্যা, কৃমি, বরবর্ণিনী। আল তা অর্থাৎ লাক্ষরসের এই কয়েকটা পৰ্য্যায় দৃষ্ট হয়,—অলক্তক, জতুরস, রাগ, নির্ভৎসন, জননী, জনকরী, সম্পদ্যা, শুক্রবৰ্ত্তিনী। বৈদ্য শাস্ত্রমতে লাক্ষারস তিক্ত ও উষ্ণ। ইহাতে কফ, বায়ুরোগ, রক্তৰমন, ব্রণ, কণ্ঠরোগ প্রভৃতি महे इश । অলক্তক (পুং) অলক্ত-স্বার্থে কন্‌। আল তা । লাক্ষ । অলক্ষণ (ক্লী) লক্ষ্যতে দৃপ্ততে চুরা লক্ষ-(লক্ষেরট, চ। উ৭, ৩। ৭) ইতি ন আড়াগমঞ্চ। ন লক্ষণম্। নঞउ९ । श्रुि नप्रु। झर्मिमिस्र । भक श्।ि (ত্রি ) নাস্তি লক্ষণং সুচিহ্নং যন্ত। নঞ বহুব্রী। স্বচিহপূক্ত। নাস্তি লক্ষণ শক্য সম্বন্ধবিশেষে যত্র । মঞ বহুত্রী। লক্ষণশূন্ত বাক্য। অলক্ষিত (ত্ৰি ) ন লক্ষিতম্। নঞ তৎ। অজ্ঞাত। লক্ষণ बाब्रा अमत्रुथिछ । अङ्ग उश् ि। [ ৫৭১ ] अशब्रो (बी) गऋ७ झा• शक-(गएकी.छ। ". एीश्वेौ . * ===------- - ৩ । ১৬০ ) ইতি ঈ মুট, চ। ততো বিরোধে নঞ তৎ। লক্ষ্মীর বিরুদ্ধ। নিঋতি। অলক্ষ্মী এই শব্দের স্থানে । আলক্ষ্মী শব্যের ব্যবস্থায় আছে । অলক্ষ্মী শঙ্কের এই কয়েকটা পৰ্য্যার দৃষ্ট হয়,— নয় ক দেবতা । কালকণী । কালকণিকা । জ্যেষ্ঠাদেৰী । পদ্মপুরাণের উত্তরখণ্ডে অলক্ষ্মীর উৎপত্তি সম্বন্ধে এই রূপ বিবরণ লিখিত হইয়াছে,—প্রথমে একবার সমুদ্র भश्न इहेग्नां c१श । *tब्र शून€ीज़ cमयष्ठांब्री भशप्नदएक প্রণাম করিয়া ক্ষীরসাগয় মন্থন করিতে লাগিলেন । এই বার সমুদ্র হইতে জ্যেষ্ঠ দেবী উঠিলেন। তাছার গলায় রক্তমালা, এবং তিনি বস্ত্রাবৃত। অলক্ষ্মী দেবী উঠিয়া দেবতাদিগকে জিজ্ঞাসা করিলেন,—‘এক্ষণে আমাকে কি করিতে হইবে, তোমরা বল’ ! দেবতারা বলিলেন,— যে গৃহে সৰ্ব্বদা কলহ হয় ; ঘাহাদের গৃছে খাপরা, তুষ, অঙ্গার, অস্থি, ভষ্ম, কেশ প্রভৃতি পড়িয়া থাকে ; যে মিথ্যাবাদীরা নিয়ত কৰ্কশ বাক্য কহে ; ষে কৃতির। সন্ধ্যাকালে শয়ন করে ; যে ব্যক্তি আগে পা না ধুইয়া প্রথমে আচমন করে; যে নরাধম তৃণ, অঙ্গার, খাপরা, প্রস্তর, বালুক, লৌহ কিম্বা চৰ্ম্ম দিয়া দস্তুধাবন করিয়া থাকে ; যাহারা তিলের পিটা, নক্ত, কঁাকুড়, সঞ্জিনা, গুঞ্জন, ছত্রক, বিড়রাহ, বেল, ঝিঙ্গে, লাউ এবং শ্ৰীফল ভোজন করায় অথবা ভোজন করে—হে দেবী ! তুমি সেই নরাধমদের বাটীতে গিয়া বাস কর । দ্বীপান্বিতা অমাবস্তার রাত্রিতে আলক্ষ্মীয় পূজা হয়। সন্ধ্যার পর প্রথমে আচারানুসারে গৃহের মধ্যে লক্ষ্মীর পূজা হইয়া থাকে। তাছার পর পূজক বাটায় বাহিরে আসিয়া গোবরের পুতুলে কৃষ্ণপুষ্প দিয়া আলক্ষ্মীর পূজা করেন। অলক্ষ্মীর ধ্যান এই রূপ,— অলক্ষ্মীং কৃষ্ণবর্ণং দ্বিভূজাং কৃষ্ণবস্ত্রপরিধানাং লৌহভরণভূষিতাং শর্করাচন্দনচর্কিতাং গৃহসন্মার্জনীংস্তাং গর্দভারূঢ়াং কলহপ্রিয়াং । শেষে মুখ ফিরাইয়া কৃষ্ণবর্ণ পুষ্প দ্বারা পূজার পর প্রণাম করিবে— অলক্ষ্মীত্বং কুরূপালি কুৎসিতস্থানবাসিনী। মুখরাত্রেী ময়া দত্তাং গৃষ্ণু পূজাঞ্চ শাশ্বতীং । দারিদ্র্যকলহপ্রিয়ে দেবী ত্বং ধননাশিনী। शाहि अप्ञाभूtह निष्ठा९ श्ब्रिा उल्ल उविवानि । अश्रु रर भनिबर भरजाश्रौष sाषच्९ बब । । মাশ্ৰয়ং পরিত্যজ্য স্থিত তজ তৰিবালি। .