পাতা:বিশ্বকোষ প্রথম খণ্ড.djvu/৮৩

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


জএবীপ লোকের সমাগম হয় । ষাত্রিদের মধ্যে বাউল, দরবেশ এবং অন্তান্ত সম্প্রদায়ের বৈষ্ণবই অধিক । এই মেলায় বৎসর বৎসর বিস্তর টাকার দ্রব্য কেন বেচা হয়। অগ্রদ্বীপ নদীয়া জেলার অন্তর্গত। গোপীনাথের ইতিহাস অনেকটা অদ্ভুত । সত্যের সঙ্গে কতক কতক অদ্ভুত ঘটনা মিশান না থাকিলে দেবতার প্রতি সামান্ত লোকের ভক্তি জন্মে না। কথিত আছে, অগ্রদ্বীপের জনৈক গোয়ালার সন্তান হয় নাই। তৰ্জ্জন্য সে নিয়ত দেবতাদের নিকট পুত্র কামনা করিত। এক দিন সে ঘুমাইয়া আছে। ঘুমাইতে ঘুমাইতে সপ্ল দেখিল, কে যেন শিয়রে বসিয়া বলিতেছে,-“কল্য তুমি স্নান করিতে গিয়া গঙ্গাঙ্কলে একখানি পাথর দেখিতে পাইবে। তাহাতে কৃষ্ণমূৰ্ত্তি নিৰ্মাণ করাষ্টয়া যদি সেই বিগ্রহ স্থাপন কর, তবে আমিই তোমার পুত্র হইব । ঘুম ভাঙ্গিল । গোয়াল চাহিয়া দেখে, রাত্রি নাই—প্রভাত । প্রভাতের স্বপ্ন প্রায় মিথ্যা হয় না । বিশেষতঃ, গোপজাতির প্রতি শ্ৰীকৃষ্ণের আজি এ নৃতন কৃপা নয় । একবার তিনি গোকুলে নন্দঘোষের পুত্র হইয়াছিলেন, আবার যদি অগ্রদ্বীপের গোপকে পিতা বলিবার সাধ হইয়া থাকে, তবে ত আশালতায় ফুল ধরিয়াছে, হাতে হাতে ফল মিলিবে । এই তাবিয়া সে স্নানের ঘাটে চলিল । গিয়া দেখে গঙ্গাজলে একখানি পাথর ভাসিয়া আসিতেছে। উজ্জ্বল নীলবর্ণ, যেন দলিত অঞ্জন মাথানো;—প্রস্তর খানির রূপ বা কি! সেই ইন্দ্রনীল মণি দিয়া কৃষ্ণমূৰ্ত্তি গড়ানো হইল । ইহাই এখনকার গোপীনাথ । ঘোষঠাকুর বিগ্ৰহ মূৰ্ত্তি প্রতিষ্ঠা করিয়া লোকান্তর গমন করেন । তাহার মৃত্যু তিথি বারুণীর পূৰ্ব্বে কৃষ্ণ একাদশী । এখন ঘোষঠাকুর নাই, তাহার সন্তান গোপীনাথজীউ আছেন। সস্তানের কৰ্ত্তব্য পিতার উদ্দেশে পিণ্ডদান করা–গোপীনাথের সে কর্তব্য কৰ্ম্মে ক্রটি নাই। মৃত্যু তিথির দিন পূজকগণ মাটীতে কুশ বিছাইয়া বিগ্রহের হাতে পিণ্ড তুলিয়া দেন। দ্বার রুদ্ধ করিয়া কিঞ্চিৎকাল পরে খুলিলে সেই পিও নাকি কুশের উপর পড়িয়া | থাকে, ইহা অনেকে দেখিয়াছেন। - কেহ কেহ বলেন ঘোৰঠাকুর গোয়ালা নহেন, 'জাতিতে কায়স্থ। তিনি চৈতন্তের জনৈক শিষ্য। এক निन आशब्राप्ड ६फ़लछ बूषoकि काशिणन । cबाद *ाकूत्र ক্তিক্ষ कत्रिश अकने इबैौकरी মালিলেন । স্বানিয়া [હરૂ ] অগ্রদ্বীপ 鷗 驢聽總 ८गनि धड्रक आश्थामि निर्णन, दाकि आश्थानि পরদিনের জন্তু রাশিলেন চৈতন্য দেখিলেন, ঘোষঠাকুরের এখনও সঞ্চয় পৃহা বায় নাই,সে কারণ তিনিবিরক্ত হইয় তাহাকে বাট ফিরিয়া ৰাইতে বলেন। ঘোষঠাকুর কাদিতে কঁাপিতে বলিলেন,-“আমি তোমাকে পুত্রের চেয়ে অধিক ভালবালি। বাটীতে তোষাকে না দেখিয়া কিৰূপে ধাচিৰ' ? চৈতম্ভ কছিলেন,—“তুমি কৃষ্ণমূৰ্ত্তি প্রতিষ্ঠিত করিয়া তাস্থায় প্রতি বাংলল্য ভাব প্রকাশ করিও, তাহা হইলে তোমার মনস্তাপ দূর হইৰে । সেই উপদেশানুসারে অগ্রদ্বীপে এই গোপীনাথ প্রতিষ্ঠিত হইয়াছেন । ঘোষঠাকুরের প্রক্টভ সাম বাহুদেব, মিৰাস অগ্রদ্বীপের নিকট কাশীপুর বিষ্ণুতলাগ্রামে। গোপীনাথের প্রতিমূৰ্ত্তি উদ্ধে প্রায় দেড়হাত হইবে। ইহার গঠন অতি পরিপাটি । নবদ্বীপের রাজারা এই दिशश्द्र cगबाग्न खछ दिख्द्र छूमि मान कब्रिब्रादइन, ५वश् দোলোপঙ্গক্ষে তাহারা বিস্তর ঘটা করিতেম । কথিত আছে, রাজা নবকৃষ্ণ নাকি গোপীনাথকে একবার কলিকাতায় আনিয়াছিলেন । কলিকাতায় আলিয়। তিনি গোপীনাথের মত ঠিক আর একটা মূৰ্ত্তি নিৰ্ম্মাণ করাইলেন। এখানে কৃষ্ণচন্দ্র রাজা ঠাকুরের শোকে অত্যন্ত কাতর, অন্নজল সকলি ত্যাগ করিলেন । তখন গোপীনাথ স্বপ্নযোগে এই প্রত্যাদেশ করিলেন,- “তুমি কলিকাতায় চল, আমি রাজা নবকৃষ্ণের গুহে আছি । কৃষ্ণচন্দ্র রাজা ঠাকুর ফিরিয়া দিবায় জন্ত নবকৃষ্ণ বাহদুরকে অনেক সাধ্যসাধনা করিলেন । রাজা নবকৃষ্ণ কছিলেন,--বেশ, আমার দেৰালয়ে তবে চলুন। গোপী- - নাথ থাকেন, আপনি চিনিয়া লইয়। যাউন। তাছাতে আমার আপত্তি নাই ।” রাজা কৃষ্ণচন্দ্র দেবালয়ে গিয়া দেখেন, গোপীনাথ আছেন ; কিন্তু ছুইটী মূৰ্ত্তি। দুইট এক, বেশভূষায় আকারপ্রকারে কোন প্রভেদ নাই। তিনি বিষম সমস্তায় পড়িলেন। অনেক চেষ্টা করিলেন, কিন্তু কোন গোপীনাথ তাহার, চিনিতে পারিলেন না। পরে রাত্রিতে গোপীনাথ দেব এই স্বপ্ন দিলেন,-মহারাজ! তুমি ভাবিবে না । যে মূৰ্চিটর কপালে স্বৰ্গ দেখিবে, তাছাই তোষার রিগ্রন্থ প্রাতঃকালে কক্ষচন্দ্র রাজা নবকৃষ্ণ ৰাহাম্বরকে বলিদেৰ-জাঙ্গি জাম্বার cश्रो*माश्वष्क जात्रि ब्रिनिद्रा नहेत, कुकून {#हैऋत्रिा কৃষ্ণচন্দ্র রাজা দেৱালৰে গির দেখেল, এক্ট এতিয়াৰ