পাতা:বিশ্বকোষ সপ্তম খণ্ড.djvu/২২০

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


জোনাকি জোতঘরিব, মালদহ বিভাগে কোতৰালি পরগণায় একটা वफू &jॉम । জোতদার, ১যাহার জোত বা কোন বিস্তৃত চাষের জমি জমা রাখে বা জোত অধিকার করে । ২ কটকের দক্ষিণ পূৰ্ব্বকোণে প্রবাহিত একটা প্রণালী ; মহানদীর খাড়ির সহিত সংযুক্ত। ইহা ২০ ১১’’ উত্তর অক্ষা এবং ৮৬ ৩৪ পূৰ্ব্বদ্রাঘিমায় সমুদ্রের সহিত মিলিত হইয়াছে। জোতনরসিংহ, মালদহ বিভাগে কেতবালি পরগণায় একটা বড় গ্ৰাম । জোতা (দেশজ) শকটাদিতে গো অশ্ব প্রভৃতি সংযোজিত করা। জোনরাজ, রাজতরঙ্গিণী বা কাশ্মীরের ইতিহাসের দ্বিতীয় লেখক । ইহার ২০ বৎসর পূৰ্ব্বে কলেণ পণ্ডিত রাজতরঙ্গিণী লিখিতে আরম্ভ করিয়া জয়সিংহের রাজত্বকাল পর্য্যন্ত ইতিহাস লিপিবদ্ধ করেন। তাহার পরবর্তীকাল হইতে জোনরাজ নিজের সময় পৰ্য্যস্ত ইতিহাস লিখেন। ইহার পরে আরও দুই জন লেখক রাজতরঙ্গিণী লিখিয়াছেন । জোনরাজ পৃথ্বীরাজবিজয় নামে আর একখানি কাব্য এবং ১৩৭ • শকে কিরাতার্জনীয় গ্রন্থের টীকা রচনা করেন। জোনাকি (দেশজ) জ্যোতিরিঙ্গণ, খদ্যোত, জ্যোতিঃশালী ক্ষুদ্র #bfitofą" (Lampyris noctiluca) èsttysa strētā čt:4 প্রায় অৰ্দ্ধ ইঞ্চি । ইহাদের মস্তক ও গ্রীব হ্রস্ব, বর্ণ কৃষ্ণাভ ধূসর। পক্ষের উপর লোহিত ও কৃষ্ণমিশ্রিত চিহ্ন দৃষ্ট হয় । স্ত্রী-জোনাকি অপেক্ষা পুং-জোনাকির চক্ষু বৃহৎ । ইহার তরু, গুল্ম, লতা, পুষ্করিণী ও নদীতীর ইত্যাদি স্থলে বাস করে, এবং অন্ধকার রাত্রিতে ঝাকে কাকে ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র দীপমালার দ্যায় দেখা দেয়। ইহাদের ঐ আলোক বস্তিদেশের শেষ হইতে বহির্গত হয়। বৈজ্ঞানিকগণ অনুমান করেন ঐ আলোক দীপকসভূত। জোনাকির পুচ্ছে দীপক (Phosphorus) বিদ্যমান আছে । জোনাকিগণ ইচ্ছানুসারে আলো কমাইতে বা বাড়াইতে পারে। সৰ্ব্বদা দেখিতে পাওয়া যায়, ইহার একবার খুব উজ্জল হইয় উঠে, আবার পরক্ষণেই প্রায় একবারে নিবিয়া যায়। ঐ উজ্জ্বল অংশ পৃথক করিয়া লইলেও অনেকক্ষণ পৰ্য্যস্ত উহা হইতে আলোক নির্গত হয়। নিবিয়া গেলে পুনরায় জল দিয়া কোমল করিলে আবার আলো বাহির হয় । গরম জলে ডুবাইলে এই কীট হইতে উজ্জ্বল আলোক উদগত হয়, কিন্তু শীতল জলে ডুবাইলে নিবিয়া যায়। পুং-জোনাকি অপেক্ষ স্ত্রী-জোনাকিই অধিক উজ্জল । স্ত্রীগণের গাথা নাই, সুতরাং উড়িতে পারে না, এক স্থানে থাকিয় টপ টপ আলোক বিস্তার করিতে থাকে। ঐ { نبالاة } জোন্স আলোক দেখিয়া পুং-জোনাকিগণ উহাদিগকে সন্ধান করিয়া লয়। সিংহলে একরূপ জোনাকি কীট আছে, উহারে স্ত্রীজাতি প্রায় ৩ ইঞ্চি লম্বা। বৈজ্ঞানিকগণ পরীক্ষা করিয়াছেন, ইহার বায়ুশূন্ত স্থানে এবং বাম্পের মধ্যে অনেকক্ষণ জীবনধারণ করিতে পারে। উদজন বাম্পের মধ্যে রাখিলে কখন কখন সশব্দে ফাটিয়া যায় । ইহাদের শাবকগণ ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র কৃমির ন্তায় এবং স্পষ্ট হইবামাত্র আলোক বিকীরণ করে, কিন্তু ঐ আলোক পূৰ্ণাবস্থ জোনাকির ন্যায় উজ্জল নহে । - জোন্স, সরু উইলিয়ম, ১৭৪৬ খৃঃ অন্ধে ২৮ সেপ্টেম্বর তারিখে লণ্ডন নগরে জন্মগ্রহণ করেন। ইহার পিতা উইলিয়ম জোন্সের গণিতে অতিশয় বুৎপত্তি ছিল । তিনি গণিতবিষয়ক কতকগুলি পুস্তক ও দর্শনবিষয়ে কয়েকটা প্রবন্ধ লিখিয়াছেন । তিন বর্ষ বয়ঃক্রম কালে জোন্সের পিতৃবিয়োগ হইলে র্তাহার মাতাই তাহার একমাত্র অবলম্বন হইলেন। জোন্সের মাতাকেই তাহার শিক্ষার ভার গ্রহণ করিতে হইল। এই রমণী অতিশয় বুদ্ধিমতী ও জ্ঞানবতী ছিলেন । বাল্য-কালেই জোন্স শিক্ষাবিষয়ে অসাধারণ নৈপুণ্যের পরিচয় দিলেন । সাত বর্ষ বয়ঃক্রমকালে তিনি হারোর বিদ্যালয়ে প্রেরিত হইলেন এবং যখন তিনি নবম বর্ষে পদার্পণ করিলেন, তখন যদিও কোন আকস্মিক অশুভ ঘটনায় এক বৎসর কাল জোন্স বিদ্যালয়ে গ্রীক ও লাটিন ভাষা শিক্ষা করিতে পারেন নাই, তথাপি তিনি প্রায় তাহার সমগ্র সমপাঠী অপেক্ষা অধিকতর শিক্ষিত ছিলেন এবং শীঘ্রই তদানীন্তন প্রধান শিক্ষক ডাক্তার থ্যাকারের অতিশয় প্রিয়পাত্র হইলেন। ডাক্তার থ্যাকারে প্রায়ই বলিতেন, জোন্সকে উলঙ্গ এবং নিরাশ্রয় অবস্থায় সলিসবেরির প্রাস্তরে ছাড়িয়া দিলেও সে অর্থ এবং যশের রাস্তা প্রাপ্ত হইবে অর্থাৎ জোন্স ভবিষ্যতে নিশ্চয়ই একজন প্রধান যশস্বী ও সঙ্গতিশালী ব্যক্তি হইবেন । জোন্স ক্রমে ক্রমে শিক্ষায় এত উন্নতিলাভ করিলেন যে, পরবর্তীকালে থ্যাকারের স্থলাভিষিক্ত ডাক্তার সম্নার বলিতেন যে, জোন্স গ্রীকভাষায় তাহা অপেক্ষ অধিক ব্যুৎপন্ন ও শিক্ষিত । হারোয় বাসকালে শেষ দুই বৎসর তিনি আরব্য ও হিব্রু ভাষা শিক্ষা করিতে লাগিলেন । তৎকালে তিনি সময় गभग्न जानि, औक ७ ३२ब्रांछि उांबांग्न थवक निशिाङन । তাহার লিমন নামক পুস্তকে কয়েকট প্রবন্ধ মুদ্রিত হইয়াक्लिड । विशृणिtग्नग्न शैौर्ष करुकांशंकांzण ऊिनि शब्रांनैौ ७ ইতালীয় ভাষা শিক্ষা করিতেনণ f